August 17, 2018

নৌকায় ভোট দিলে কেউ খালি হাতে ফেরে না : চাঁদপুরে প্রধানমন্ত্রী

wwwwwএ কে আজাদ, চাঁদপুর : স্বাধীনতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রী বানিয়ে তাদের হাতে দেশের লাল সবুজের পতাকা তুলে দেওয়ায় বিএনপি চেয়ারপরসন খালেদা জিয়াকে ধিক্কার জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। রোববার (১ এপ্রিল) বিকেলে চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃাকালে তিনি এ ধিক্কার জানান। চাঁদপুর স্টেডিয়াম মাঠ সভাস্থলে প্রধানমন্ত্রী চাঁদপুরের ৪৮টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ধিক্কার জানাই বিএনপি ও খালেদা জিয়াকে, যারা ওই স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধীদের হাতে তুলে দিয়েছিল এদেশের পতাকা। অবশ্য তাদের লজ্জা-শরম কম, তারা নিজেরাইতো বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই দেশের উন্নয়ন হয় উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিয়েছেন বলেই আমরা সেবা করার সুযোগ পেয়েছি, জনগণের সেবা করছি। নৌকায় ভোট দিলে কেউ খালি হাতে ফেরে না। বাঙালি মাতৃভাষার অধিকার পেয়েছে, স্বাধীনতা পেয়েছে। আওয়ামী লীগ দেশ গড়ে তোলে, উন্নয়ন করে। কিন্তু বিএনপি যানে ধ্বংস করতে, তারা জনগনের অর্থ লুটে খায়। সন্ত্রাস, বোমা হামলা, গ্রেনেড হামলায় তারা পারদর্শী। তারা মানুষকে আগুনে পুড়িয়ে মেরেছে। পঁচাত্তরের পর যারাই ক্ষমতায় এসেছিল, কেউ-ই উন্নয়ন করেনি। নিজেরা লুটপাট করেছে, চুরি করেছে, দুর্নীতি করেছে। এবার তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মামলায় কারাগারে (বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া) সাজা খাটছেন। সার্বিকভাবে দেশের উন্নয়নে সরকারের কর্মসূচি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের লক্ষ্য স্বাধীনতার সুফল বাংলার প্রতিটি ঘরে ঘরে পৌছে দেয়া। সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। আমরা শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে বই দিচ্ছি, নিজের পায়ে দাঁড়ানোর জন্য শিক্ষার্থীদের বৃত্তি, এমনকি উচ্চশিক্ষার জন্যও বৃত্তি দিচ্ছি। বতৃমানে মায়েদের মোবাইল ফোনে বৃত্তির টাকা পৌঁছে যাচ্ছে। সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলেছে উল্লেখ করে বলেন, আজ মোবাইল ফোন সবার হাতে হাতে। আওয়ামী লীগই সবার হাতে হাতে মোবাইল ফোন তুলে দিয়েছে। এখন প্রবাসে আত্মীয়-স্বজন ছাড়াও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন সবাই। কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করেছি। এখন আমরা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করবো, জেলায় জেলায় আইটি পার্ক হবে। সেখানে প্রচুর কর্মসংস্থানও হবে।

pm chamdpur

দারিদ্র্য বিমোচন সরকারের লক্ষ্য উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে বয়স্ক ভাতা ও বিধবা ভাতার ব্যবস্থা করেছি। মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বাড়িয়েছি। গ্রামের মানুষের উন্নয়নে কর্মসংস্থান ব্যাংক করে দিয়েছি। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে, সাধারন সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলালের, আবু নাচের বাচ্চু পাটওয়ারীর যৌথ পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল কাদের এমপি, যুগ্ম-সম্পাদক, মাহবুবুল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি এমপি, আব্দুর রহমান এমপি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহন্মদ হোসেন, এনামুল হক শামিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক হারুনুর রষিদ, ত্রান ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, উপদেষ্টা খন্দকার গোলাম মাওলা নস্কসবন্দী, কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পাপিয়া আক্তার, ত্রান ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া (বীর বিক্রম)এমপি, মেজর (অব) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি, ড. মোহান্মদ সামছুল হক ভূঁইয়া এমপি, এড. নূরজাহান বেগম মুক্তা এমপি, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছা সেবকলীগ সাধারন সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ এমপি, কেন্দ্রীয় যুব মহিলা লীগের সাধারন সম্পাদক অধ্যাপিকা অপু উকিল, কেন্দ্রীয় ছাতওলীগের সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সামছুল হক মন্টু পাটওয়ারী, সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন পাটওয়ারী, স্বেচ্ছা সেবক লীগের আহবায়ক এস এম জয়নাল আবেদিন, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি ফরিদা ইলিয়াছ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতাউর রহমান পারভেজ, সাধারন সম্পাদক পারভেজ করিম বাাবু প্রমুখ।

Related posts