November 15, 2018

নৌকার বিজয়ে অব্যাহত থাকবে কৃষকদের উন্নয়ন—শফিক চৌধুরী

76543বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, শেখ হাসিনা সরকার কৃষি বান্ধব সরকার। তাই যখনই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশে সরকার গঠিত হয়েছে তখনই কৃষিখ্যাতে ব্যাপক উন্নয়ন করা হয়েছে। আসন্ন নির্বাচনেও নৌকার বিজয়ে অব্যাহত থাকবে কৃষকদের উন্নয়ন। শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী থাকলে দেশের কোন কৃষককে সার-বীজের জন্য আন্দোলন করতে হয়না, সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ বিনামূল্যে ঘরে বসেই সার-বীজ পেয়ে থাকেন। এজন্য তৃণমূল থেকে শুরু করে আমাদের সবাইকে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড জনসম্মুখে তুলে ধরে নির্বাচনী এলাকার প্রত্যেক বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রত্যেক মানুষের কাছে নৌকায় ভোট চাইতে হবে।

তিনি রোববার রাতে সিলেটের বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন কৃষক লীগের কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথাগুলো বলেন। প্রধান বক্তার বক্তব্যে জেলা কৃষক লীগের সভাপতি শাহ নিজাম উদ্দিন বলেন, শেখ হাসিনা’কে পুনঃরায় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে কৃষক লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধভাবে সিলেট-২ আসনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করতে হবে। সভার শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সুফি সামছুল ইসলাম ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল হান্নান বদরুল।

উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ছুরাব আলীর সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আলতাব হোসেনের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সামছুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি শাহ আসাদুজ্জামান আসাদ, হাজী ইরন মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ সুমন, বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মহব্বত আলী, মহানগর কৃষক লীগের সহ সভাপতি শেখ মোঃ আসাদ, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি রাশেদুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মুহিবুর রহমান সুইট।

কর্মীসভায় উপস্থিত ছিলেন ওসমানীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজলু চৌধুরী, বিশ্বনাথ উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা মিজানুর রহমান মিজান, বীরেন্দ্র কর, ময়না মিয়া, রফিক মিয়া মহাজন, নূর মিয়া, উপজেলা কৃষক লীগের সহ সভাপতি সাহাব উদ্দিন, হাজী আকবর আলী, আবদুল হেকিম, দপ্তর সম্পাদক শাহ কবির আহমদ, তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক নজরুল ইসলাম, কৃষক লীগ নেতা আবদুর রাজ্জাক, পরতাব আলী, আবুল হোসেন, আজিজুল ইসলাম, সামছুল ইসলাম, আওলাদ আলী, আজেফর আলী, আত্তর আলী, আলী আমজদ চৌধুরী, মঈনুল ইসলাম, লাল গেদা, আবদুস শহিদ, ইসলাম উদ্দিন, আলতাব আলী, আজাদ মিয়া, উপজেলা শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরান দে, যুবলীগ নেতা ইউসুফ আলী, সঞ্চিত আচার্য্য, দবির মিয়া, এমদাদ হোসেন নাঈম, রাজু আহমদ খান, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রফিক মিয়া, রফিক আলী, সিজিল মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমদ জয়, মাসুদ আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম রুকন, জাকির হোসেন মুন্না, আবিদুর রহমান আবিদ, আশরাফ আহমদ, শিপন আহমদ, জুয়েল আহমদ, কয়েছ মিয়া, হিমেল আহমদ প্রমুখ’সহ আওয়ামী লীগ, অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার নেতৃবৃন্দ।

Related posts