September 25, 2018

নেত্রকোনায় ২৩৫ মাদকসেবীর পুণর্বাসনে জেলা পুলিশ

Pic

নেত্রকোনা প্রতিনিধি : স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে নেত্রকোনা জেলা পুলিশের ডাকে সাড়া দিয়ে অন্ধকার জগৎ ছেড়ে নেত্রকোনার সদর ও পূবধলা উপজেলার নারী-পুরুষ ২৩৫ মাদকসেবী ও ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করেছে। আজ শনিবার বিকেলে নেত্রকোনা জেলা শহরের কুরপাড়স্থ জেলা পুলিশ লাইনে আত্মসমর্পণের পর তারা মাদকসেবন ও ব্যবসা না করার অঙ্গিকারাবদ্ধ হয়ে শপথ নেন। শপথ বাক্য পড়ান সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমিন নেলী।

 

পরে তাদেরকে পুনর্বাসনের জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে রিক্সা, ছাগল, সেলাই মেশিন ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আব্দুল্লাহ্ আল মামুন (পিপিএম)। এসময় বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘মাদক সেবন অথবা ব্যবসায় জড়িত কোনো অপরাধকে ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। মাদক জঙ্গিবাদের মতোই ভয়াবহ এক অপরাধ। তবে যারা এ পথ থেকে সড়ে আসতে চাইবে তাদেরকে পুলিশ সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। প্রয়োজনে তাদেরকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা পর্যন্ত পাঠানো হবে। সুস্থ জীবনে ব্যাক করার পর পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেয়া হবে।’ সামাজিক অসঙ্গতির পাশাপাশি পরিবারে সম্পর্কের টানাপোড়নই মাদকাসক্ত তৈরি করে। আর ওই আসক্ত ব্যক্তিরাই একসময় ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন বলে মত দেন ডিআইজি মামুন।

 

পুলিশ সুপার (এসপি) জয়দেব চৌধুরী’র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রশান্ত কুমার রায়, জেলা প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) আনোয়ার হোসেন আকন্দ, পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম খান, পূর্বধলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন প্রমূখ। এদিকে শপথ শেষে মাদকসেবী-ব্যবসায়ীরাও তাদের সুস্থ-সুন্দর জীবনে ফিরে আসা নিয়ে অভিমত ব্যক্ত করে জেলা পুলিশের এ ধরনের আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন জানান, নেত্রকোনা সদর থেকে ১৪০ ও পূর্বধলা উপজেলা থেকে ৯৫ জন আত্মসমর্পণ করেছে। প্রথম দিকে ১৮০ জনের আত্মসমর্পণের কথা থাকলে পরবর্তীতে আয়োজনে উদ্বুদ্ধ হয়ে বাকিরা আত্মসমর্পণ করেন।

Related posts