September 20, 2018

নিহত জঙ্গির স্ত্রী মাছুমা গ্রেফতারঃ ৩ দিনের রিমান্ডে

মো: তাহানুল মারুফ ,বগুড়াঃ  বগুড়ার শেরপুরে গ্রেনেড  বিস্ফোরণে নিহত জঙ্গির নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। সে চট্রগ্রাম অ লের জেএমবি সামরিক শাখার প্রধান  এবং চট্রগ্রামে বহুল আলোচিত  ন্যাংটা ফকির হত্যা ও ধনাঢ্য হিন্দু ব্যবসায়ীকে গ্রেনেড নিক্ষেপ করে টাকা ছিনতাইয়ের মুল হোতা।

পুলিশ জানায়, নিহত জঙ্গির নাম রাইসুল ইসলাম খান ওরফে নোমান ওরফে ফারদিন ওরফে সজল ওরফে রাসেল (২৬)। সে ময়মনসিংহ জেলার ফুলবাড়িয়া থানার জোরবাড়িয়া গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে। কে এই জঙ্গি ফারদিন ? জানা যায়, সে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞানের ছাত্র ছিল। পড়া শোনার সুযোগে এবং সংগঠনের সুত্র ধরে তার পরিচয় গড়ে উঠে বগুড়ার শাজাহানপুরের কামারপাড়ার আব্দুল বাকি প্রামানিকের ছেলে মোস্তাফিজার রহমান ওরফে মোস্তাক ওরফে শাকিল ওরফে বোমা শাকিল  ওরফে নজরুল ইসলামের সাথে। পরবর্তিতে বোমা শাকিলের ছোট বোন মাছুমা আক্তারকে সে বিয়ে করে।

পুলিশ জানায়, বোমা ফারদিনের স্ত্রীর বড় ভাই মোজাহিদও জেএমবির সক্রিয় সদস্য। মোজাহিদ জেএমবির শীর্ষ নেতা বাংলা ভাইয়ের সহযোগি ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যু কার্যকর করা জঙ্গি মামুনের ভগ্নিপতি। পুলিশ জানায়, মোস্তাফিজ ও মামুনের বোন মাছুমা আক্তার জিএমবি’র সাথে জড়িত।

উল্লেখ্য, গত ৩ এপিল রাত সাড়ে ৮ টায়  শেরপুরের গাড়ীদহ গ্রামের মৃত মজিবর রহমান মন্ডলের ছেলে মাহবুব আলম এর ভাড়াটিয়া বাড়িতে ২ জঙ্গি গ্রেনেড  বিস্ফোরণে নিহত হয়। এদের মধ্যে সিরাজগঞ্জের জামুয়া গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে জঙ্গি তরিকুল ইসলাম জুয়েলের নাম পরিচয় পাওয়া গেলেও অপর জঙ্গি ফারদিনের নাম পরিচয় মিলেনি।

যে ভাবে জঙ্গি নিহত জঙ্গি ফারদিনের স্ত্রী মাছুমা আক্তার গ্রেফতার হয়।বগুড়া পুলিশ সুপার মোঃ আসাদুজ্জামানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে উপরোক্ত ঘটনাটি উদঘাটনে সার্বক্ষনিক ও নিরবিচ্ছন্ন তদন্ত ও অনুসন্ধান চলতে থাকে। ডিবি পুলিশ অসনাক্ত নিহত জঙ্গি ফারদিনের  শ্বশুর বাড়ীর সন্ধান পায় বগুড়ার শাজাহানপুরের কামার পাড়ায়।দীর্ঘ ৩৫ দিন পর গতকাল রোববার ভোরে ডিবি পুলিশ বগুড়ার কামার পাড়ায় বোমা শাকিলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ফারদিনের স্ত্রী মাছুমাকে গ্রেফতার করে।মাছুমা তার স্বামী জঙ্গি ফারদিনের ছবি দেখে চিনতে পারে এবং  তার স্বামী বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করে।

মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা বগুড়ার শেরপুর থানার ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান জানান, জঙ্গি মাছুমা আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গতকাল রোববার সন্ধ্যায় বগুড়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ( আমলি আদালত) এর বিচারক  মোঃ আবুল কালাম আজাদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছিল। আদালত ৩ দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করেছেন।
এ প্রসঙ্গে গতকাল রোববার দুপুরে বগুড়া পুলিশ সুপারের সভা কক্ষে  পুলিশ সুপার মোঃ আসাদুজ্জামান উপরোক্ত তথ্য নিশ্চিত করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/৮ মে ২০১৬

Related posts