November 14, 2018

নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে সু চি’র এনএলডি

অং সান সু চি

অং সান সু চি’র নেতৃত্বাধীন মিয়ানমারের প্রধান বিরোধীদল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসি বা এনএলডি দেশটিতে আড়াই দশকের মধ্যে অনুষ্ঠিত প্রথম অবাধ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে।

এ পর্যন্ত ঘোষিত ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, পার্লামেন্টের ৮০ শতাংশ আসন দখল করেছে এনএলডি। দেশের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য পার্লামেন্টে দুই তৃতীয়াংশ আসনের প্রয়োজন ছিল সু চি’র দলের। কিন্তু তার চেয়ে অনেক বেশি আসন পেয়ে গেছে দলটি। তবে সু চি’র প্রয়াত স্বামী ও দুই সন্তান ব্রিটিশ নাগরিক হওয়ার কারণে সংবিধান অনুযায়ী তিনি নিজে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হতে পারবেন না। তারপরও এনএলডি নেত্রী বলেছেন, মিয়ানমারকে তিনিই নেতৃত্ব দেবেন। তবে সেটি ঠিক কিভাবে তা পার্লামেন্ট অধিবেশন বসার পর পরিষ্কার হবে বলে পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন।

অবশ্য পার্লামেন্টের ২৫ শতাংশ আসন সেনা সমর্থিত ব্যক্তিদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে। ফলে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারের মাধ্যমে দৃশ্যত মিয়ানমারে সামরিক শাসনের অবসান হলেও সেনাবাহিনী সরকার পরিচালনায় এখনো শক্তিশালী প্রভাব বজায় রাখতে পারবে।

মিয়ানমারে অবাধ নির্বাচনের পাঁচ দিন পর আজ (শুক্রবার) পার্লামেন্টে সু চি’র দলের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত হলো। যদিও এর আগে সোম ও মঙ্গলবারেই দলটির বিজয় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। আজকের দিনটি আরেকটি দিক দিয়েও এনএলডি দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ দিন; কারণ ঠিক পাঁচ বছর আগের আজকের দিনে দলনেত্রী সু চি গৃহবন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়েছিলেন। মিয়ানমারের জনগণ এ ধরনের দিনক্ষণকে বেশ গুরুত্ব দিয়ে থাকে বলে দেশটি থেকে সংবাদদাতারা জানিয়েছেন।

এনএলডি নেত্রী অং সান সু চি তার দলের সমর্থকদের উল্লাস প্রকাশের ক্ষেত্রে ভারসাম্য রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি বলেছেন, পরাজিত প্রার্থীদের অনুভূতিতে যাতে আঘাত না লাগে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

Related posts