September 26, 2018

নিজামীর ফাঁসি কার্যকরের চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু

ঢাকাঃ  ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যুদ্ধাপরাধী মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সব প্রস্তুতি চূড়ান্ত করার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

পৌনে দুই ঘণ্টা জামায়াতে ইসলামীর আমিরের সঙ্গে থেকে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় বেরিয়ে আসেন ২৪ জন স্বজন।

এর পরপরই ঢাকার সিভিল সার্জন আবদুল মালেক মৃধাকে কারা অভ্যন্তরে ঢুকতে দেখা যায়। মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময় সিভিল সার্জন উপস্থিত থাকেন।

কারা অভ্যন্তরে ফাঁসিকাষ্ঠ তৈরির চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু হয়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কারা কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

এই যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যুদণ্ড কখন কার্যকর হবে, সে সময় জানা না গেলেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের স্পষ্ট, তা এই রাতেই হবে।

কারাগারের সামনে সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সব দোকানপাটও।

কারাফটকের সামনে র‌্যাব-পুলিশের বেষ্টনি ছাড়াও পুরো এলাকা এখন কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে।

মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত মতিউর রহমান নিজামী রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চেয়ে আবেদন করেননি বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

কারাগারে জামায়াত আমিরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তোড়জোড়ের মধ্যে মঙ্গলবার রাত ৮টা ১০ মিনিটে মন্ত্রী জানান, ক্ষমা না চাওয়ায় নিজামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে নির্বাহী আদেশ কারা কর্তৃপক্ষকে দেওয়া হয়েছে।

স্বজনদের ডেকে পাঠানো এবং কারাফটকে নিরাপত্তা জোরদারের মধ্যে কিছু ইঙ্গিত মিললেও মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের কোনো স্পষ্ট ঘোষণা দিনভর পাওয়া যাচ্ছিল না।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের কারাধ্যক্ষ জাহাঙ্গীর কবির সন্ধ্যায় কারা অভ্যন্তরে যাওয়ার পরপরই কারাগারের ভেতরে-বাইরে তৎপরতা বেড়ে যায়।

গত বৃহস্পতিবার রিভিউয়ের রায় খারিজের পরদিন কাশিমপুর কারাগারে নিজামীর সঙ্গে দেখা করে এসেছিলেন পরিবারের সদস্য। এরপর রোববার তাকে ঢাকা কারাগারে আনা হয়।

বুদ্ধিজীবী হত্যার পরিকল্পনা, নির্দেশনা ও নেতৃত্ব দেওয়ার দায়ে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেওয়া রায়ে একাত্তরের আলবদর নেতা নিজামীকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করলে এই বছরের ৬ জানুয়ারি আপিল বিভাগের রায়ে মৃত্যুদণ্ডের সাজা বহাল রাখা হয়। তা পুনর্বিবেচনায় নিজামীর আবেদন গত ৫ মে খারিজ হয়ে যায়।

ওই রায় সোমবার প্রকাশের পর শুরু হয় মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/১০ মে ২০১৬

Related posts