September 25, 2018

নিউইয়কে পালিত হলো “জাতীয় শোক দিবস” বঙ্গবন্ধুর ৪১ তম শাহদাৎ বাষিকী

হাকিকুল ইসলাম খোকনঃ কেঁদেছিল আকাশ, ফুঁপিয়ে ছিল বাতাস। বৃষ্টিতে নয়, ঝড়ে নয়- এ অনুভূতি ছিল শোকের। পিতা হারানোর শোক। কী নিষ্ঠুর, কী ভয়াল, কী ভয়ঙ্কর ছিল- সেই রাত। যা ৪১ বছর পরও ৫৬ হাজার বর্গমাইলের জনপদের ধূলিকণা ভুলতে পারেনি, ভুলতে পারবে না। স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে অশ্রুভেজা, কলঙ্কময় পচাওোরের ১৫ আগস্ট রাতের কথা। যে রাতে স্ত্রী-সন্তানসহ সপরিবারে নিহত হয়েছিলেন স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

“শোকই হোক শক্তি” এই শপথে ১৫ আগস্ট, ২০১৬, সোমবার ০০০১ মিনিটে ডাইভারসিটি প্লাজা, জ্যাকসন হাইস্টস, নিউইয়কে “বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণ” ও নিহতদের আত্মার শান্তি কামনার মধ্য দিয়ে পালিত হলো “জাতীয় শোক দিবস” বঙ্গবন্ধুর ৪১ তম শাহদাৎ বাষিকী।

১৫ আগস্ট, ২০১৬, সোমবার ০০০১ মিনিটে নিউইয়কের বাঙ্গালী অধ্যূসীত এলাকা জ্যাকসন হাইস্টস এর ডাইভারসিটি প্লাজায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার অগনিত মানুযের ভীড়। অনুষ্ঠানে ঘোষনাপএ উপস্থাপন করেন আয়োজক সংগঠনের প্রধান সম্মনয়ক মুক্তিযোদ্ধা ডঃ প্রদীপ বঞ্জন কর। তিনি উল্লেখ করেন এবারের শোক দিবসে আমাদের শপথ হোক-“শোক হোক শক্তি-উজ্জীবিত করুক সমগ্র বাঙ্গালী জাতিকে এবং বঙ্গবন্ধুর আদশ ও প্রদশিত পথ শোষনমুক্ত অসাস্প্রদায়িক আধূনিক গনতান্তিক বাংলদেশ প্রতিষ্ঠাই হোক আমাদের একমাএ চলার পথ”।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণ অনুষ্ঠানে উপস্থিতদের মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখ্য, মাসুদ বিন মোমেম, ইউএন বাংলাদেশ মিশনের মান্যবর স্থায়ী প্র্রতিনিধি ও রাস্ট্রদূত; শামীম আহসান, মাননীয় কনস্যাল জেনারেল নিউইয়ক;আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহকারী সম্পাদক, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি এবং বাংলাদেশ আমেরিকা ফ্রেন্ডশীপ সোসাইটির সভাপতি এমএ করিম, ড. সিদ্দিকুর রহমান ও আবদুস সামাদের নেওৃওে যুক্তরাস্ট্র আওয়ামীলীগের বিভিন্ন শ্রেনীর নেতাকমী; শাহিন আজমলের নেওৃওে নিউইয়ক স্টেট আওয়ামীলীগের নেতাকমী; মেজবা আহমেদ ও ফরিদ আলমের নেওৃওে যুক্তরাস্ট্র আওয়ামী যুবলীগের নেতাকমী; আজিজুল হক খোকনের নেওৃওে যুক্তরাস্ট্র শ্রমিকলীগ, নূরুজ্জামান ও সুবল দেবনাথের যুক্তরাস্ট্র স্বেচ্ছাসেবকলীগের বিভিন্ন শ্রেনীর নেতাকমী; মমতাজ শাহনাজের নেওৃওে যুক্তরাস্ট্র মহিলা আওয়ামীলীগের বিভিন্ন শ্রেনীর নেতাকমী; জাহিদ হাসানের যুক্তরাস্ট্র ছাএলীগের বিভিন্ন শ্রেনীর নেতাকমী; মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মুকিত চৌধুরী, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা ইউএস কমাণ্ড; মুক্তিযোদ্ধা খুরশীদ আনোয়ার বাবলু ও সাঈদুর রহমান বেনুর নেওৃওে যুক্তরাস্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের নেতাকমী; নূরে আলম ঝিকুর নেওৃওে যুক্তরাস্ট্র জাসদের নেতাকমী; আশরাফুজ্জামানের নেওৃওে বঙ্গমাতা পরিষদ; এ্যাডভোকেট মোর্শেদা জামানের নেওৃওে আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ; হাকিকুল ইসলাম খোকন ও সাধারণ সম্পাদক হেলাল মাহমুদর নেওৃওে আমেরিকান প্রেসক্লাব অব বাংলাদেশ অরিজিন; আশরাফুজামানের নেওৃওে পোজীবি সমম্নয় পরিষদ; জালালউদ্দিন জালিল ও কায়কোবাদ খানের নেওৃওে শেখ হাসিনা মঞ্জ; আলী হাসান কিবরিয়া অনুর নেওৃওে আমেরিকা বাংলাদেশ কমিউনিটি ডেভলেপমেণ্ট ইনিটিয়েটিফ (এবিসিডিআই); মিথুন আহমেদ ও জলি করের উওর আমেরিকা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট; ওবায়দুল্লা মামুনের নেওৃওে একুশের চেতনা পরিষদ; শিতাংগুহের নেওৃওে বঙ্গবন্ধু পরিষদ; রমেশ নাথের নেওৃওে বঙ্গবন্ধু সমাজকন্যান পরিষদ; নবেন্দু দও যুক্তরাস্ট্র ঐক্য পরিষদ, দেওয়ান আশরাফের নেওৃওে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা, এছাড়া অন্যান্ন যে সকল সংগঠন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করে তাদের মধ্যে জেনোসাইড ’৭১ ফাউন্ডেশন; মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন মঞ্জ; স্বাধীনতা চেতনা মঞ্জ; বাংলাদেশ আওয়ামী ফোরাম, যুক্তরাষ্ট্র; স্বদেশ ফোরাম; মুক্তিযোদ্ধা শওকত আকবর রিচি; মুক্তিযোদ্ধা এবি সিদ্দিক; মুক্তিযোদ্ধা সাঈদুর রহমান; মুক্তিযোদ্ধা শহিদুর রহমান; মুক্তিযোদ্ধা হিরু ভূইয়া ইঞ্জি: মিজানুল হাসান, আশরাফ মাসুক, মঞ্জুর চৌধুরী; প্রবীর গুন; আবুল কাসেম ভূইয়া সাহাদৎ হোসেনের নেওৃওে মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের শক্তির সম্মিলিত জোট, যুক্তরাষ্ট্র; এছাড়া আরো অনেকই বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পার্ঘ্য অর্পণ করেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts