September 24, 2018

নারায়ণগঞ্জে জঙ্গি নিহতের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের, ঢামেকে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন

রফিকুল ইসলাম রফিক
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
নারায়নগঞ্জ থেকে আবদুস সালামঃ নারায়ণগঞ্জে মাস্টার মাইন্ড তামিম চৌধুরী ও তার দুই সহযোগী নিহত হওয়ার ঘটনায় তিন জঙ্গির নাম উল্লেখ করে আরো কয়েক জন অজ্ঞাত ব্যাক্তিকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদিকে জঙ্গি আস্তানার ভাড়াটিয়ার তথ্য পুলিশের কাছে গোপন করার অভিযোগ এনে বাড়ির মালিক নুরুদ্দিন দেওয়ানের বিরুদ্ধে আরো একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জে অবস্থানরত বিদেশীদের উপর হামলার পরিকল্পনা নিয়ে জঙ্গীরা নারায়ণগঞ্জে অবস্থান করছিলো বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার। নারায়নগঞ্জ এর পুলিশ সুপার মঈনুল হক রোববার বেলা এগারোটায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিং এর সময় এ কথা বলেন। এসময় তিনি জানান, নারায়নগঞ্জের নিহত জঙ্গীরা পাইকপাড়ার ঐ বাড়িতে অবস্থান করছিলো ২ জুলাই থেকে। এদিকে শনিবার রাত থেকে এ বাড়িটি সার্বক্ষনিক পুলিশ প্রহরার ব্যবস্থা করা হয়েছে।বাড়ির পাশের রাস্তাটিতে যানবাহন চলাচল বন্ধ রাথা হয়েছে।

এদিকে গতকাল রোববার প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপি নিহত তিন জঙ্গীর ময়না তদন্ত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সম্পন্ন হয়। ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোহেল মাহমুদ এর নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল দুপুরে ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানান।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারুক হোসেন জানিয়েছেন রোববার সকালে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বাদি হয়ে নিহত তিন জঙ্গি তামিম চৌধুরী, তৌসিফ হোসেন এবং ফজলে রাব্বিকে আসামী করে অপর কয়েক জনকে অজ্ঞাত দেখিয়ে সদর থানায় মামলা দায়ের করে।

নারায়নগঞ্জে তিন জঙ্গী নিহত হওয়ার ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার মঈনুল হক বলেছেন, শনিবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটককৃত ১২জনের মধ্যে বাড়িওয়ালা নুরুউদ্দিন দেওয়ানকে গ্রেফতার দেখিয়ে বাকি ১১জনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তিনি জানান,নারায়নগঞ্জের নিহত জঙ্গীরা পাইকপাড়ার ঐ বাড়িতে অবস্থান করছিলো ২ জুলাই থেকে। তারা মুলতঃ শিল্পনগরী নারায়নগঞ্জের বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত বিদেশীদের উপর হামলা করার পরিকল্পনার টার্গেট নিয়ে এখানে অবস্থান করছিল। নিহতরা একটি ঔষধ কোম্পানিতে চাকুরী করার কথা বলে এ বাসাটি ভাড়া নিয়েছিলো। বাড়িতে যেকোন লোক এলে তাদের সম্পর্কে তথ্য দেয়া বাড়িওয়ালার কাজ। কিন্তু বাড়িওয়ালা তা না করে তথ্য গোপন করেছেন।

তিনি জানান, বাড়িওয়ালা তাদের কাছে জাতীয় পরিচয়পত্র চাইলে তারা একটি পরিচয়পত্রের ফটোকপি বাড়িওয়ালাকে দিয়েছিলেন। বাড়িওয়ালার কাছ থেকে এটি কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট নিয়ে গেছে যাচাই করার জন্য। তিনি জানান, যারা মারা গেছে তাদের পরিচয় এখনো আমরা নিশ্চিত না হলেও পুলিশের উর্ধতন বিভাগ তদন্ত করে বের করছে। এদের সাথে অন্য কেউ ছিলো কিনা কিংবা কেউ পালিয়ে গেছে কিনা সে সম্পর্কে জেলা পুলিশের কাছে কোন তথ্য নেই। এটি কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট বলতে পারবে। তিনি জানান, ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে একই এলাকার সোহেল নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। সে একজন শিবিরকর্মী বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান,নিহত তামিম চৌধুরীর সর্বশেষ পরির্কপনা ছিল নারায়নগঞ্জের লিংক রোডে অবস্থিত রুপায়ন সিটিতে হামলা করার। জেলা প্রশাসক আনিছুর রহমান মিঞা জানান, নারায়নগঞ্জের বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৬’শ বিদেশী নাগরিক কর্মরত আছে। এদের মধ্যে ৩২৪জন রুপায়ন সিটিতে ভাড়াটিয়া হিসেবে অবস্থান করছে। তিনি এখানকার নিরাপত্তা জোরদারের জন্য র‌্যাব এবং পুলিশকে পত্র দেয়া হয়েছে।

এদিকে শনিবার রাতে আটক একজন ভাড়াটিয়া রোববার জানান, তাদের পুলিশ নিহত জঙ্গীদের বাড়িতে অবস্থান ও ঘটনা সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। ভোরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে।একটি সুত্র জানায়, যে কক্ষটিতে দুই ভাড়াটিয়া বসবাস করতো সেখানে মাঝে মাঝে তামিম চৌধুরী অবস্থান করতো। তাদের কক্ষে কোন প্রকার আসবাব পত্র ছিল না। তারা সব সময় কক্ষের ফ্লোরে ঘুমাতো। অন্য কোন বাড়াটিয়ান সাথে তাদের কোন যোগাযোগ ছিলনা।

এদিকে আজ সকালেও উৎসুক জনসাধারন পাইকপাড়ার সেই বাড়ির সামনে ভীড় জমায়।তারা অনেকেই এ বাড়িতে দেশের আলোচিত জঙ্গী হামলার মাষ্টার মাইন্ড তামিম চৌধুরীর মতো শীর্ষ জঙ্গীর অবস্থান নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই তিন জঙ্গির ময়নাতদন্ত শুরু করে দুপুর ১টা ৫ মিনিটে শেষ করা হয়। ঢামেক মর্গে তাদের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। সোহেল মাহমুদ জানান, ময়নাতদন্তে নিহত জঙ্গিদের মাথায় বুলেটের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। নিহত জঙ্গি তামিম ছাড়া অপর দুই জঙ্গির শরীরে বোমা ব্লাস্টের চিহ্ন পাওয়া গেছে।তিন জঙ্গির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহের জন্য থাই, মাসল ও চুল সংগ্রহ করা হয়েছে। পাশাপাশি তারা শক্তিবর্ধক ওষুধ বা মাদক সেবন করেছিলেন কি না, তা জানার জন্য রক্ত ও ইউরিন সংগ্রহ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। সোহেল মাহমুদ বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিট্রন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে নিহতদের কাছ থেকে সংগৃহীত নমুনা এফবিআইয়ের কাছে পাঠানো হতে পারে। তাই আলাদাভাবেও নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে নিহত তিন জঙ্গির লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজের মর্গে নেয়া হয়। প্রাথমিক অবস্থায় নারায়ণগঞ্জে তাদের ময়নাতদন্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ছিল। কিন্তু পরে ঢাকায় তাদের ময়নাতদন্ত করার সিদ্ধান্ত হয়।

মালিক ও ভাড়াটিয়া তথ্য সংগ্রহে নিবন্ধন ফরম সরবরাহ করছে পুলিশ

সোনারগাঁওয়ে ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহে নিবন্ধন ফরম বিতরণ শুরু করেছে থানা পুলিশ। নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে তৈরীকৃত এ ফরম গতকাল রোববার বেলা ১১টা থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিতরণ শুরু করেন থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ মোঃ মঞ্জুর কাদের। সোনারগাঁও উপজেলার তথা নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রত্যেকটি নাগরিককে নিরাপত্তা দেয়ার জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে মালিক-ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম বিতরণ করা হচ্ছে।

ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে এ কাজে তিনি পুলিশকে তথ্য দিয়ে সহায়তা করার জন্য সর্বসাধারণকে আহ্বান জানিয়েছেন। উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভাকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করে এ ফরম বিতরন করা হচ্ছে। এ কাজের জন্য দায়িত্বে রয়েছেন প্রত্যকটি এলাকার জন্য একজন করে উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও তাকে কাজে সহযোগীতা করবে একজন সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই)। এছাড়াও কোন বাড়ির মালিক ইচ্ছে করলে থানায় ডিউটি অফিসারের কাছ থেকে এ ফরম সংগ্রহ ও জমা দিতে পারবেন। উপজেলার সকল বাড়ির মালিককে সচেতন করার জন্য প্রত্যেক এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে। এছাড়াও স্থানীয় ক্যাবল অপারেটরদের মাধ্যমে প্রত্যেকটি এলাকায় বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে সচেতন করা হবে সকলকে। ফরমের তথ্য সংগ্রহের তালিকার মধ্যে মালিক ও ভাড়াটিয়ার নাম ঠিকানা, ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্রের আইডি নং, পেশা, ধর্ম, শিক্ষাগত যোগতা ও কর্মস্থলের পূর্ণ ঠিকানা অন্তর্ভূক্তকরণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

উল্লেখ্য- গত ২৭ আগস্ট শনিবার নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়া এলাকার একটি ভবনে জঙ্গী আস্তানার সন্ধান পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। এ ঘটনার পর পরই মালিক ও ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহের কাজ দ্রুত শুরু করা হয়েছে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে।

মাসুদ রানা অপহরণ মামলায় সন্ত্রাসী মিথুন ৩ দিনের রিমান্ডে

সদর উপজেলার ফতুল্লা নয়ামাটি লামাপাড়া এলাকার মাছ বিক্রেতা মাসুদ রানা অপহরনের মামলায় অভিযুক্ত আসামী আবদুর রশিদ মিথুনকে রবিবার (২৮ আগষ্ট) আদালতে তোলা হয়। মাসুদ রানা অপহরনের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাসুদ রানা অপহরনের দায়ে অভিযুক্ত মিথুনের ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে তা ৩ দিনের জন্য মঞ্জুর করেন।

রবিবার সকাল ১১টায় অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল মেজিষ্ট্রেট অশোক কুমারের আদালতে লামাপাড়া এলাকার কুখ্যাত সন্ত্রাসী,মাদক সম্রাট আবদুর রশিদ মিথুনকে উঠানো হয়। অপহৃত মাছ বিক্রেতা মাসুদ রানা অপহরনের মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপপরিদর্শক গোলাম মোস্তফা-২ আদালতের নিকট ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আদালত সন্ত্রাসী মিথুনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ বিষয়ে অপহৃত মাছ বিক্রেতা মাসুদ রানার আইনজীবি অ্যাড.মিজানুর রহমান জানান,সন্ত্রাসী মিথুনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত ৩ দিনের জন্য মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য যে,গত বছরের ৯ আগষ্ট লামাপাড়া থেকে সন্ত্রাসী ও মাদক সম্রাট আবদুর রশিদ মিথুন ও তার সহযোগিরা মাছ বিক্রেতা মাসুদ রানাকে অপহরন করে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে রাখে আজও পর্যন্ত অপহৃত মাসুদ রানার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। পরবর্তী ঐ মাসের ১২ তারিখে মাসুদ রানার পরিবার ফতুল্লা মডেল থানায় একটি জিডি এবং ১৫ তারিখে মাদক সম্রাট মিথুনসহ একই এলাকার মাদক সম্রাট রফেদ আলী,মামুন,রাসেল,সেলিম,স্বপন,সবুজ,শেখ ফয়সাল আলীকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

আদালতে উপস্থিত অপহৃত মাসুদ রানার মা শাহিদা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে সাংবাদিকদের বলেন, এক বছর আগে সন্ত্রাসী ও মাদক সম্রাট মিথুন ও তার সহযোগিরা আমার বুকের ধনকে নিয়া গেছে পুলিশ ঠিকমত মামলাটি নিয়ে তদারকি করলে আমার সন্তানটিকে আমার বুকে ফিরে পাইবো।

উল্লেখ্য যে, ১লা আগষ্ট সন্ত্রাসী মিথুন ও তার সহযোগিসহ শিবু মার্কেট সংলগ্ন সুমাইয়া বিরিয়ানী হাউসের সামনে থেকে র‌্যাব-১১’র সদস্যরা অস্ত্র,মাদক ,মাদক বিক্রির টাকা ও মিথুনের ব্যবহৃত গাড়িসহ আটক করে।

পদ্মা ডিপোতে তেল পরিবহন বন্ধ ৯ ঘন্টা

সওজের ইজারা মাশুল অস্বাভাবিক বৃদ্দি ও ট্যাংকলরী চলাচলে পুলিশী হয়রানি বন্ধকরনসহ ১২ দফা দাবিতে গতকাল রোববার সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলের পদ্মা ডিপো থেকে সকাল ৬ টা থেকে বেলা ৩ টা পর্যন্ত জ্বালানী তেল পরিবহন বন্ধ ছিল ৯ ঘন্টা। দফায় দফায় ট্যাংকলরী মালিক ও শ্রমিকরা পদ্মা ডিপো এলাকায় ১২ দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়ন পদ্মা শাখার সভাপতি মোঃ জাহিদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুল মতিন মুন্সী, বিশেষ অতিথি যুগ্ন সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, পদ্মা ট্যাংকলরী মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সী,কার্যকরী সভাপতি মোঃ সাইজুদ্দিন মাদবর, সহ-সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন,সাইদুর রহমান প্রধান, হারুন অর রশিদ, ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মোঃ ফারুক হোসেন,আবুল হোসেন, জালাল আহমেদ, আলী হোসেন ও মনির হোসেন প্রমূখ। আলহাজ্ব আতিকুর রহমান নান্নু মুন্সী বলেন, সওজের ইজারা মাশুল ২৪ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা করা হয়েছে। তেল পরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি করারও দাবি তুলেন তিনি। রাস্তায় পুলিশ তেল বোঝাই ট্যাংকলরী থামিয়ে কাগজপত্র চেক করার নামে অযথা হয়রানি করে এবং টাকা হাতিয়ে নেয় বলে বক্তারা অভিযোগ করেন। অবিলম্বে ১২ দফা দাবি না মানলে আগামী রোববার থেকে ট্যাংকলরীতে জ্বালানী তেল পরিবহন বন্ধ ও পেট্রোল পাম্পও বন্ধ রাখার আল্টিমেটাম দেন মালিক ও শ্রমিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। পদ্মা ডিপো থেকে জ্বালানী পরিবহন বন্ধসহ স্থানীয় সকল পেট্রোল পাম্প গুলোও বন্ধ ছিল।

স্ত্রীকে আটকে রেখে তালাকানামায় স্বাক্ষর, অশ্লিল ভিডিও ধারনের অভিযোগ

যৌতুকের কারনে স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে আদালাতে স্বামী মিলন মিয়া (২৮) ও শশুর বাড়ির অন্যান্য স্বজনদের বিরুদ্ধে মামলা করে হাসিনা (২৬)। সবকিছু ভুলে গিয়ে সুন্দরমত ফের সংসার করার আশ্বাস দিয়ে স্বামী মিলন তাকে উকিলের চেম্বারে ডেকে নেয়। পরে সেখানে তাকে আটকে রেখে জোরপূর্বক তালাক নামাসহ বিভিন্ন কাগজে স্বাক্ষর নেয় তারা। এতে রাত গভীর হয়ে পড়লে মিলন তার এক নিকট আত্নীয়ের বাড়িতে নিয়ে তাকে আটকে রাতভর দৈহিক মিলন করে মিলন। ওই সময় সে কৌশলে এর ভিডিও চিত্র ধারন করে রাখে। পরে তাকে মামালা তুলে নিতে বলে মিলন। না হলে ইন্টারনেটে এসব ছেড়ে দিবে বলে হুমকি দেয় তাকে। নিজের ইজ্জতের কথা ভেবে পরদিন আদালতে সমঝোতা হয়েছে বলে স্বাক্ষ্য দেয় হাসিনা। এরপরই পরই সেই পুরোনো রুপে ফিরে যায় মিলন। রোববার বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জের এসও রোড এলাকায় জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের জেলা কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে গনমাধ্যমের কর্মীদের সামনে কান্নাজড়িত কন্ঠে এসব কথা বলেন নির্যাতিতা ও প্রতারনার শিকার গৃহবধু হাসিনা (২৬)।

এসময় তিনি বলেন, ২০১৫ সালে ৮ জুন ইসলামিক শরিয়া মোতাবেক নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা থানার আলামপুর গ্রামের মৃত জহির উদ্দিনের ছেলে মিলন মিয়ার (৩১) সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই ২ লাখ টাকা যৌতুক চেয়ে স্বামী মিলন মিয়াসহ শ্বশুড়বাড়ির লোকজন বিভিন্ন সময় শারিরিক নির্যাতন করে। এমনকি দেখা সাক্ষাতও করে না। পরে আমি খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পরি আমার স্বামী মিলন মিয়া পূর্বে একটি বিয়ে করেছিল এবং ওই সংসারে তার দুই সন্তানও রয়েছে। পরে আমি চলতি বছরের ২৭ জুলাই নারায়ণগঞ্জ বিজ্ঞ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্র্যাট আমলী আদালত ক অ লে একটি নারী নির্যাতনের মামলা দায়ের করি। আদালত মামলাটি ধার্য তারিখ ৮আগষ্ট নির্ধারণ করে। এবং ওই দিনই শুনানী শেষে আদালত বিষয়টি উভয় আইনজীবির মাধ্যমে সমাধানের জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

উভয় আইনজীবি ১৯ আগষ্ট বিকাল ৪টায় আদালত পাড়ায় অন্যান্য আরো আইনজীবির মাধ্যমে সিদ্ধান্ত হয় ২৩ আগষ্ট মঙ্গলবার বিবাদী (আমার স্বামী) মিলন ১ লাখ ৫০ হাজার টাকায় বিষয়টি মিমাংসা করতে রাজি হয়। তার প্রেক্ষিতে আমি তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাটি তুলে নেব। কিন্তু পরে বিবাদী মিলন তার আইনজীবির মাধ্যমে আমাকে (বাদীনিকে) ২২ আগষ্ট রাতে ডেকে নিয়ে যায়। এবং জোরপূর্বক আমার কাছ থেকে তালাক নামাসহ কিছু সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়। পরে গভীর রাতে আমাকে বিবাদী আমাকে ফতুল্লার ভুইগড় এলাকায় তার এক নিকট আত্মীয়ের বাড়িতে আটকে রাখে এবং শারীরীক সম্পর্ক করে কৌশলে তার ভিডিও চিত্র ধারণ করে।

পরবর্তীতে সেই ভিডিও চিত্র ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ২৩ আগষ্ট আদালতে মিথ্যা স্বাক্ষী দেয়ায়। কিন্তু ওই দিন আদালত মামলাটি নিষ্পত্তি না করে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করে। এর পরপরই বিবাদী মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিবাদী আমাকে বিভিন্ন সময়ে বিভন্ন রকম হুমকি ধামকি প্রদান করে আসছে। এব্যাপারে আমার ও আমার পরিবারের ভবিষ্যত নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারাণ ডায়েরি করি। যার নং-১৩০৯। আমি বিবাদী (আমার স্বামী) মিলনের হাত থেকে রক্ষার জন্য বিজ্ঞ আদালত ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সিদ্ধিরগঞ্জ ওসি সরাফাত উল্লাহ’র স্বর্নপদক লাভ

আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও মানব কল্যানে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ মাদার তেরেসা ও জাতীয় কবি নজরুল ইসলাম স্বর্নপদক-২০১৬ পেয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মু. সরাফাত উল্লাহ। শেরে বাংলা সামাজিক সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ সম্মিলিত সাংস্কৃতিক সোসাইটি নামের দুটি সংগঠনের পক্ষে তিনি এ সম্মাননা পান। পৃথক দুটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি এ পুরস্কার গ্রহন করেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সময়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও মানব কল্যানে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ মাদার তেরেসা গোল্ড মেডেলসহ ১০টি পদক লাভ করেন।

গত বুধবার কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরীতে শেরে বাংলা সামাজিক সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্বর্ন পদক গ্রহন করেন। অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু জয়বাংলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. সুজাউল করিমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নারায়ণচন্দ্র এমপি, ডাক ও টেলি যোগাযোগ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া এমপি প্রমূখ।

এদিকে একই দিনে বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক সোসাইটির উদ্যোগে আয়োজিত তোপখানা রোডের বাংলাদেশ শিশু কল্যান পরিষদ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি বাংলাদেশ সুপ্রিম কোটের আপিল বিভাগের বিচারপতি মোঃ জয়নূল আবেদীনের হাত থেকে তিনি স্বর্নপদক গ্রহন করেন। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক নবচেতনা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক লায়ন মোঃ শাখাওয়াত হোসেন, বঙ্গবন্ধু মেডিকের কলেজের প্রো-ভাইস চেন্সলর প্রফেসর ডা. মোঃ শহিদুল্লাহ শিকদার প্রমূখ।

এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সময়ে আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও মানব কল্যানে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ মাদার তেরেসা গোল্ড মেডেল, হিউম্যান রাইটস এ্যাওয়ার্ড-২০১৫, পরিবেশ সম্মাননা-২০১৬, বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান স্মৃতি সম্মাননা পুরস্কার-২০১৬ ও হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী সম্মাননা পদক-২০১৬ইংসহ ১০টি পদক লাভ করেন।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মু. সরাফাত উল্লাহ এ অর্জন সিদ্ধিরগঞ্জবাসী ভালবাসার ফসল। সিদ্ধিরগঞ্জ মাদক উদ্ধার, সন্ত্রাসী গ্রেফতারসহ নানা ভাবে আমাকে সহযোগিতা করায় আমি পদকগুলো লাভ করতে পেরেছি। তাই আমি সিদ্ধিরগঞ্জবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞ। তিনি আগামী দিনেও মানুষের কল্যানে কাজ করে চান। এ জন্য সকলের নিকট দোয়া চেয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মু. সরাফাত উল্লাহ।

তৃণমূল জুডো প্রশিক্ষণ সম্পন্ন

গতকাল বিকাল ৫টায় ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের তত্তাবধানে,বাংলাদেশ জুডো ফেডারেশনের আয়োজনে এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় ১০দিন ব্যাপী জুডো প্রশিক্ষন সম্পন্ন হয়েছে। ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি এজেডএম ইসমাইল বাবুল এর সভাপতিত্বে সমাপনীতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাহীন আরা বেগম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জুডো ফেডারেশেনের সাধারণ সম্পাদক এ.কে এম সেলিম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক খোরশেদ আলম নাসির,সদস্য মোস্তফা কায়ছার,ফিরোজ মাহমুদ সামা,কোচ মাহবুবুল হক প্রমুখ। প্রায় ২৫জন জুডোকারকে সনদপত্র প্রদান করেন প্রধান অতিথি।

হীরাঝিলে জঙ্গী নিমূল ভাড়াটিয়া তথ্য বিবরণী

সিদ্ধিরগঞ্জের হীরাঝিল এলাকায় সন্ত্রাস- জঙ্গী বিরুধী ও ভাড়াটিয়াদের তথ্য বিবরনী নিতে এলাকাবাসীর সাথে মতবিনিময় সভা করেছে স্থানীয় সমাজ সেবক ও আওয়ামী নেতৃবৃন্দরা। এসময় প্রত্যেক বাড়িওয়াকে তার স্ব স্ব ভাড়াটিয়াদের তথ্য নাম ঠিকানা ছবি সংগ্রহ করে স্থানীয় থানায় প্রেরণ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় যুবলীগ নেতা ও সমাজ সেবক এবং নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থী আলহাজ্ব ওমর ফারুক। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওমর ফারুক বলেন, জঙ্গীবাদের ঠাই হবেনা নাসিক এক নং ওয়ার্ডে। প্রত্যেক বাড়িওয়ালা তাদের ভাড়াটিয়াদের ছবি, ভোটার আইডি কার্ডসহ প্রয়োজণীয় কাগজ পত্র জমা নিয়ে স্থানীয় থানায় পাঠিয়ে দিবেন, কোন ভাবে যদি কাউকে সন্দেহ মনে হয়ে তাহলে সাথে সাথে আইনশৃংখলা বাহিনীকে অবগত করারও আহবান জানান ওমর ফারুক। কিছু ছদ্দোবেশী জঙ্গী বিভিন্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে এলাকায় সন্ত্রাস মাদকের আস্তানা গড়ে তুলতে পারে সেই দিকেও কঠিন ভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে। তিনি বলেন, আধুনিক নারায়ণগঞ্জের রুপকার একে এম শামীম ওসমানের নারায়ণগঞ্জে এসব কুখ্যাত জঙ্গীদের প্রতিহত করার জন্য আমরা সুশিল সমাজ বদ্ধ পরিকর। এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকার বাসিন্দা এলাহী বক্স, বাবুল গাজী, আমির হাসনাত। আরো উপস্থিত ছিলেন, শফিক, মাসুম, নজরুল, আবেদ, সুমন, রুবেল, আরিফ, জামাল, জুয়েল, রেজাউল, রাকিব, লিটনসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আবারো দল থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা কাউন্সিলর নীলা

আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের আমেজ প্রায় জমে উঠেছে। দল থেকে আবারো মনোনয়ন পাওয়ার প্রত্যাশা করছেন এনসিসি’র ৪,৫,৬ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জান্নাতুল ফেরদৌস নীলার। ইতি মধ্যে ভোটারদের মাঝেও নির্বাচন নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ভোটাররা বলছেন, যারাই আমাদের উন্নয়নের অংশ হবেন তাদেরকেই নির্বাচনে বিজয়ী করবো। তবে নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য একে এম শামীম ওসমানের শশুর বাড়ি এলাকা হওয়ায় এ ওয়ার্ডগুলোর মধ্যে নির্বাচনী আমেজ বেশ জুড়ে সুরেই বইছে। কাউন্সিলর নীলার মুখোমুখি হলে তিনি বলেন, আমার এলাকার উন্নয়নের রুপ চিত্রই বলে দেয় আমি কেমন কাজ করেছি আমার ওয়ার্ডে। প্রায় ২২ কোটি টাকার কাজ করা হয়েছে এ ওয়ার্ডগুলোতে যা কিনা অন্যান্য ওয়ার্ডে হয়নি। তবে একটি চক্র আমাকে দেশবাসীর কাছে হেয় প্রতিপন্ন করে ফায়দা হাসিল করতে চেয়েছিলো। পারেনি আল্লাহ আমার সহায় হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য আমাকে বলেছে অবশ্যই তুমি আগামী নির্বাচনে অংশ গ্রহন করবে। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানাগেছে, ৪,৫,৬ নং ওয়ার্ডে তরুন উদীয়মান নেত্রী, আদর্শের প্রতীক নীলার বিকল্প নেই। তার উন্নয়ণই এলাকার মানুষের কাছে এমন জনপ্রিয় করে তুলেছে। তবে একটি কুচক্রি মহলের কারনে কিছুটা সমস্যা হলেও আবারো আমাদের প্রাণের নেত্রী আমাদের উন্নয়নে কাজ করে গেছেন। তাই আগামী নির্বাচনেও এই নেত্রীকেই আমরা নির্বাচনে দেখতে চাই এবং বিজয়ের মালা পড়াতে চাই। বিষয়টি নিয়ে কাউন্সিলর নীলার সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের সাথে অকপটে বলেন, জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমাদের পূর্ণ আদর্শে গড়া আমাদের পরিবার, আমার বাবর কাছ থেকেই রাজনীতির হাতে খড়ি। দল আমাকে কি দেবে বা কিভাবে মূলায়ণ করবে সেটা দলের হাই কমান্ডই ভালো জানেন। তবে আমি বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বর্নের সোনার সোনার দেশ বাস্তবায়নে আধুনিক নারায়ণগঞ্জের রুপকার একে এম শামীম ওসামানের পাশে কাজ করতে চাই, আর এলাকাবাসীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে ডিজিটাল ওয়ার্ড হিসেবে আমার ওয়ার্ডগুলোকে সাজাতে চাই।

সিদ্ধিরগঞ্জে ফিল্মিস্টাইলে ছাত্রী অপহরণ
সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ফিল্মিস্টাইলে অপহরণ করেছে একই স্কুলের দশম শ্রেনীর ছাত্র। গত শক্রবার মাঝরাতে অভিযান চালিয়ে ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার এস আই নাসির। মিজমিজি পাইনাদী রেকমত আলী স্কুল রোড এলাকার জাকিরুল ইসলামের ছেলে অপহরণকারী তরিকুল ইসলাম ইমন(১৮)।
মেয়েটির মা রহিমার সাথে কথা বলে জানাগেছে, বার বার ভালবাসার অফার দিয়ে ব্যর্থ হয়ে চার পাঁচজন বন্ধুর সহযোগীতায় মটর সাইকেলে করে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে তুলে নিয়ে যায়। পরে ছেলেটির বাসায় নিয়ে তার বেডরুমের বাথরুমে আটকে রাখে। স্কুল থেকে বাসায় না ফেরার কারনে মেয়েটিকে খুজতে থাকে তার পরিবার। এক পর্যায়ে জানতে পেরে তরিকুলের বাড়িতে রাতে যান মেয়েটির পরিবার। তাদের আত্মচিৎকারে এলাকার মানুষ পুলিশকে খবর দেয়। একঘন্টা পুলিশ অভিযান চালিয়েছে ছেলেটির বেডরুমের বাথরুম থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। তরিকুলকে গ্রেফতার করে থানায় আনা হয়েছে। এ ব্যাপারে অপহরণের মামলা হয়েছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায়। অপহরণকারীকে কোন ভাবেই ছাড়দেয়া যাবেনা বলেও কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন পুলিশ প্রশাসন।

পুলিশ ব্যারিকেডে জঙ্গি আস্তানা, থমথমে পাইকপাড়া

যৌথবাহিনীর অভিযানে ‘অপররেশন হিট স্ট্রম ২৭’এ গুলশান হামলার মাষ্টারমাইন্ড তামিমসহ ৩ জঙ্গি নিহত হওয়ার পরের দিন রবিবার থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে পাইকপাড়া বড় কবরস্থান সংলগ্ন এলাকাটিতে। সেইসাথে রয়েছে জনমনে চাপা অতঙ্ক। শ্বাসরুদ্ধকর বন্দুক যুদ্ধের ২৪ ঘন্টা অতিবাহিত হয়ে গেলেও অধিবাসীদের মাঝে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ফিরে আসেনি। পুলিশ এলাকাটিতে ব্যারিকেড দিয়ে রেখেছে এবং কাউকে সেখানে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। তবে রয়েছে উৎসুক জনতার ভীর।

সরেজমিনে রবিবার (২৮ আগষ্ট) ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে দেখা গেছে, কবরস্থানের সামনে ব্যারিকেড দিয়ে রেখেছে পুলিশ। পরিচিত/অপরিচিত কাউকেই ভিতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। এখানকার নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশের পরিদর্শক আব্দুস সাত্তার টাইস নারায়ণগঞ্জকে জানান, এখানে ৩ জন এসআই, ৩ জন এএসআই ও ৪০ জন কনষ্টেবল দায়িত্ব পালন করছে। এর মধ্যে ১৫ জন ইন্ড্রাষ্ট্রিয়াল পুলিশের লোক রয়েছে। আজকের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সেই তিনতলা বাড়িটিতে কোন লোকজন নেই। তবে পাশের টিনশেডে ২০/২৫ টি পরিবার রয়েছে।

এদিকে কবরস্থান সংলগ্ন মাহজাবিন ভ্যারাইটিজ ষ্টোরের মালিক ইকবাল হোসেন টাইমস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, সারাদিন দোকান খোলার অনুমতি পাইনি। বিকেলে আসর নামাজের পর দোকান খোলার অনুমতি পেয়েছি। কিন্তু কোন কাষ্টমার নেই। মানুষ ভয়ে এখানে আসছে না। মানুষের মন থেকে শনিবারের আতঙ্ক আর ভয় এখনো কাটেনি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে আরও কয়েকদিন সময় লাগবে।

উল্লেখ্য, জঙ্গিদের অবস্থানের সংবাদ পেয়ে শনিবার ভোরে পাইকপাড়ার কবরস্থান এলাকার নরুউদ্দিন দেওয়ানের তিনতলা বাড়ি ঘিরে ফেলে অভিযান শুরু করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস‌্যরা। পরে র‌্যাবসহ অন‌্য বাহিনীগুলোও অভিযানে যোগ দেয়। এক ঘণ্টার অভিযান শেষে ওই আস্তানায় পুলিশের গুলিতে নব‌্য জেএমবির প্রধান ও গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড তামিম আহমেদ চৌধুরীসহ তিনজন নিহত হন।
নারায়ণগঞ্জে নিহত ৩ জঙ্গির ময়নাতদন্ত সম্পন্ন
তামিম শরীরে অপরদুই জঙ্গি
মাথায় গুলিবিদ্ধে মারা যায়
নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় পুলিশের অভিযানে নিহত তিন জঙ্গির লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. সোহেল মাহমুদ জানান, তিন জঙ্গিরই মাথায় গুলির আঘাত পাওয়া গেছে।
রবিবার (২৮ আগষ্ট) সকাল ১১টায় ওই তিন জঙ্গির ময়নাতদন্ত শুরু হয়। দুপুর ১ টায় ময়নাতদন্ত শেষে তদন্ত দলের প্রধান সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান। তদন্তদলের অন্য সদস্যরা হলেন, ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক প্রদীপ বিশ্বাস এবং কবীর চৌধুরী।
ডা: সোহেল মাহমুদ সাংবাদিদের বলেন, ‘দুই জনের শরীরে স্লিপ্লনটার ও গুলির চিহ্ন ছিল। গুলির কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে। মাথার সামনে দিয়ে গুলি প্রবেশ করে পেছন দিয়ে বেরিয়ে গেছে। তবে তামিমের শরীরে শুধু গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।’
তিনি আরও জানান, ‘জঙ্গিদের শরীর থেকে উরুর মাংস, চুল এবং রক্তের নমুনা মহাখালীর রাসায়নিক পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে।’
উল্লেখ্য, জঙ্গিদের অবস্থানের সংবাদ পেয়ে শনিবার ভোরে পাইকপাড়ার কবরস্থান এলাকার নরুউদ্দিন দেওয়ানের তিনতলা বাড়ি ঘিরে ফেলে অভিযান শুরু করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস‌্যরা। পরে র‌্যাবসহ অন‌্য বাহিনীগুলোও অভিযানে যোগ দেয়। এক ঘণ্টার অভিযান শেষে ওই আস্তানায় পুলিশের গুলিতে নব‌্য জেএমবির প্রধান ও গুলশান হামলার মাস্টারমাইন্ড তামিম আহমেদ চৌধুরীসহ তিনজন নিহত হন।
না’গঞ্জে সন্ত্রাস জঙ্গিদের স্থান হতে পারে না

নারায়ণগঞ্জে ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে সকল আন্দোলনের ডাক শুরু হয়। সেই নারায়ণগঞ্জে সন্ত্রাস, জঙ্গিদের স্থান হতে পারে না। শান্তির ধর্ম ইসলাম। ওলী আল্লাহর দেশে সন্ত্রাস জঙ্গিদের স্থান হতে পারে না। আমরা এই জঙ্গিবাদের বিষয়ে সোচ্চার হবো। এলাকাতে নতুন কোন লোক আসলে সন্দেহ হলে তার সর্ম্পকে প্রশাসনকে তদন্ত করার আহবান জানান হবে বলে মানববন্ধনে বক্তারা আরো বলেন,
রবিবার (২৮ আগষ্ট) দুপুরে আদালতপাড়ায় নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির আয়োজনে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী মানববন্ধনে বক্তারা এ কথা বলেন। নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. আনিছুর রহমান দিপু সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এড. হাসান ফেরদৌস জুয়েলের স ালনায় উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত শহিদ মো: বাদল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. মুহাম্মদ মোহসীন মিঞা, নবীন আইনজীবী এড. আলী আকবর, এড. আব্দুর রহিম সহ আরো অনেকে।
নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের ভবিষ্যদ্বানীই সত্য হয়েছে। তিনি আশংকা করেছিলেন বড় কোন অঘটন ঘটতে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জে। কিন্তু তার আগেই প্রশাসন সেই জঙ্গিদের দমন করে ফেলেছে।
গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি হলে না’গঞ্জে গণআন্দোলন

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির চক্রান্তের প্রতিবাদে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (২৮ আগষ্ট) বিকালে শহরের চাষাড়া শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে এই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব নূর উদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, খোদেজা খানম নাসরিন, দেলোয়ার হোসেন চুন্নু, আব্দুল কুদ্দুস, নাসির উদ্দিন মন্টু, মাহমুদ হোসেন, রমজানুল রশিদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
এ সময়ে বক্তারা বলেন, মাত্র ১০ মাস পূর্বে গ্যাসের মূল্য ৫০ ভাগ বৃদ্ধি করা হয়েছে। কষ্ট হলেও যা সাধারন গ্রাহকরা মেনে নিয়েছেন। পূনরায় গ্যাসের মূল্য শতভাগের ও অধিক বৃদ্ধির পাঁয়তারা করছে সরকার, যা সাধারণ জনগন মেনে নিবে না। যদি অযৌক্তিক ভাবে পুনরায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির করা হয় তাহলে নারায়ণগঞ্জের ভুক্তভোগী জনগনকে নিয়ে বৃহত্তর গণআন্দোলন গড়ে তোলার ঘোষনা দেন। তারা, সরকারকে সাধারণ মানুষের কথা বিবেচনা করে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি না করার আহবান জানান।
জঙ্গি সন্দেহে ফের পাইকপাড়া থেকে এক শিবির কর্মীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা।

শনিবার (২৭ আগষ্ট) রাত সাড়ে ১১টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহরের পাইকপাড়া বড় কবরস্থান সংলগ্ন টুটুল মিয়ার বাড়ীর ২য় তলা থেকে ক্যাবল ব্যবসায়ী ও বিশিষ্ট সমাজসেবক আব্দুল করিম বাবু স্থানীয়দের নিয়ে অভিযান চালিয়ে শিবির কর্মীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন। এসময় ঘরের একটি কক্ষ থেকে বিপুল পরিমানে ছাত্রশিবিরের সাংগঠনিক বই জব্দ করা হয়। তবে ঘরের মূল ভাড়াটিয়া হাবিব ও শাহাদাৎ নামে দুইজনকে পাওয়া যায়নি।
আটককৃত শিবির কর্মী কুমিল্লা জেলাধীন আবুল খায়েরের পুত্র ইব্রাহীম সোহেল। সে বন্দরস্থ মেরিন টেকনোলজির ৪র্থ বর্ষের ছাত্র।
আটককৃত সোহেল জানান, সপ্তাহখানেক পূর্বেএকজন দালালের মাধ্যমে সে এই বাসায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতে আসেন। শনিবার সকালে একই এলাকায় জঙ্গি নিহতের ঘটনায় ভীত হয়ে রাতে বাসায় ফিরে বাড়ীর মালিক টুটুল মিয়াকে ফোনে জানান। তখন বাড়ীওয়ালা তাকে আশ্বস্ত করে সকালে চলে যেতে বলেন। তার কিছুক্ষন পরেই স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশ গিয়ে তাকে আটক করেন।
এব্যাপারে নাসিক ১৭ নং ওয়ার্ডের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক আব্দুল করিম বাবু টাইমস নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘ঘটনাস্থলের বাড়ীওয়ালা টুটুলের দেয়া তথ্যমতে তার ভবনের ২য় তলার একটি ফ্ল্যাটে স্থানীয়দের তল্লাশী চালিয়ে সোহেলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। তার কাছ থেকে বিপুল পরিমানে জেহাদী বই উদ্ধার করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে’।
স্থানীয়রা জানান, উক্ত ভবনের কক্ষে টিউটর হাবিব ও শাহাদাৎ শুক্রবার বাড়ী থেকে বের হয়ে শনিবার পর্যন্ত না ফেরায় তাদের মনে সন্দেহ হয়। এরপর বিষয়টি আমাদের এলাকার অভিভাবক আব্দুল করিম বাবু ভাইকে জানানোর পর তিনি তাৎক্ষনিক এখানে এসে উক্ত ঘরে থাকা সোহেলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।
বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান টাইমস নারায়ণগঞ্জকে জানান, জঙ্গি সন্দেহে শিবিরকর্মী সোহেলকে আটক পুলিশে সোপর্দ করেছে পাইকপাড়া এলাকার বিশিষ্ট সমাজসেবক আব্দুল করিম বাবু। আটক সোহেলের ব্যাগ তল্লাশী করে বেশ কিছু ছাত্র শিবিরের বই পাওয়া গেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, এর আগে একইদিন শনিবার (২৭ আগষ্ট) সকাল ৯টা ২৫ মিনিট থেকে ১০ টা ২৫ মিনিট পর্যন্ত চলমান ‘হিট স্টর্ম-২৭’ এর অভিযানে পাইকপাড়া বড় কবরস্থান সংলগ্ন নুরুদ্দিন দেওয়ানের ৩ তলা ভবনের ৩য় তলায় গুলশান হলি আর্টিজান রেস্তোঁরায় হামলার মাস্টারমাইন্ড তামিম চৌধুরীসহ ৩ জঙ্গি নিহত হন। অপর দুইজন জঙ্গি হচ্ছেন একজন মানিক (৩৫)। আরেকজন ইকবাল (২৫)। এদের মধ্যে মানিক পাইকপাড়ার ওই বাসাটি ভাড়া নিয়েছিল।
পেট্রোল পাম্প ধর্মঘটে না’গঞ্জে দূর্ভোগ

বাংলাদেশ পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংকলরি মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা দেশব্যাপী ধর্মঘটের কারনে দুর্ভোগে পরেছে নারায়ণগঞ্জবাসী। ইজারা মাশুল বাড়ানার সিদ্ধান্ত বাতিল, কমিশন ও ট্যাংকলরির ভাড়া বাড়ানোসহ ১২ দফা দাবি বাস্তবায়নে সরকারকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত সময় দিয়েছিলো বাংলাদেশ পেট্রোল পাম্প ও ট্যাংকলরি মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। এর মধ্যে দাবি পূরণ না হওয়ায় ঢাকাসহ সারাদেশে কর্মবিরতি পালন করছে সংগঠনটি। এমনকি ট্যাংকলরির মাধ্যমে তেল উত্তোলন, পরিবহন ও বিপণনও বন্ধ রয়েছে।
রবিবার (২৮ আগষ্ট) ভোর থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত নগরীর পেট্রোল পাম্পগুলো জ্বালানি তেল বিক্রি বন্ধ করে দেয়ায় তেল চালিত যানবাহন চালকরা দুর্ভোগে পড়েন।
একদিকে তেল পাম্পে ধর্মঘট চলছে, অন্যদিকে ফিলিং স্টেশনগুলোতে গ্যাসের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে দুর্ভোগের যেন শেষ নেই গ্যাস ও তেল ক্রেতাদের। নগরীর অধিকাংশ ফিলিং স্টেশনে সকাল ৭টা থেকে ৪টা পর্যন্ত গ্যাস থাকে না। যে কারণে অধিকাংশ ফিলিং স্টেশনও বন্ধ দেখা গেছে।। তাদের মধ্যে অন্যতম নগরীর আসগর ফিলিং স্টেশন। ১০টার পরে এটিও বন্ধ দেখা গেছে।
শহরের মিশনপাড়ার বাসিন্দা ব্যবসায়ী সাইফুল নিরব। সাধারণত মোটরসাইকেলে যাতায়াত করেন তিনি। কিন্তু হঠাৎ পথের মধ্যেই সাইফুলের মোটরবাইকের তেল শেষ হয়ে যায়। অনেকটা পথ বাইক ঠেলে নিয়ে আসেন তিনি। সাইফুল বলেন, আমি জানতাম না আজ (২৮ আগস্ট) পাম্পগুলো বন্ধ থাকবে। জানলে আগেই তেলের ট্যাংকি ভরে রাখতাম।
আসগর ফিলিং স্টেশনের কর্মচারী তাপস বলেন, ১২ দফা দাবীতে সারাদেশের সকল পেট্রোল পাম্প বন্ধ রয়েছে। তাই আমরাও বন্ধ রেখেছি।
ভূঁইগড়ে জেলা ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টা

ফতুল্লার ভূঁইগড় কমিউনিটি সেন্টার এলাকায় এক ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানা একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।
জানাগেছে, ভূঁইগড় এলাকার সৈয়দ বিল্লাল হোসেনের ছেলে ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ মোস্তাক আহমেদ হাসিবের উপর শনিবার বিকেলে হামলা চালায় মৃত সুরুজ ভান্ডরীর ছেলে ও স্থানীয় সন্ত্রাসী সালাউদ্দিন ভান্ডারী ও তার ভাই মোসলেম উদ্দিন ভান্ডারী এবং জৈনিক আমীর। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ মোস্তাক আহমেদ হাসিবকে চিকিৎসার জন্য ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে আসে স্থানীয়রা।
আহত হাসিব জানায়, শনিবার ছাত্রলীগের আয়োজিত বন্দরে শোক সভায় যোগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হলে সন্ত্রাসীরা পূর্ব শত্রুতার জেরে আমার আমার উপর হামলা চালায়। আর এই তিন জনই পতিতা ব্যাবসায়ী। এদিকে, ঘটনার ৩০ ঘন্টায়ও এ রিপোর্ট লেখার আগ পর্যন্ত বিশেষ কারণে এখনো মামলা হয়নি।
জানাগেছে, সৈয়দ মোস্তাক আহমেদ হাসিব জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ সাফায়েত আল সানির নেতৃত্ব ছাত্রলীগের রাজনীতি করে আসছে। এবং জেলা ছাত্রলীগের সকল কর্মসূচীতে সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহন করে সে।
রূপগঞ্জ থানা থেকে আসামী ছাড়লো ওসি!

নানা বিতর্কিত কর্মকান্ডের পর জেলার রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসমাইল হোসেন ও দারোগা ফরিদ নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে দায়ের করা এজাহারভুক্ত আসামী ভুমিদস্যু মানিক মিয়াকে মোটা অংকের টাকায় থানা হাজত থেকে ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২৮ আগষ্ট) দুপুর সাড়ে ১২টায় বাদী নূর জাহান বেগমকে আদালতে পাঠিয়ে দিয়ে আসামী ছেড়ে দেয়ার ঘটনায় তোলপাড়ের সৃস্টি হয়েছে।
এদিকে মামলার ভিকটিম সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী আফসানা (ছদ্মনাম) রবিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসানের খাস কামড়ায় ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেছে। ভিকটিম আফসানা জানায়, আসামী সজল (১৮)সহ কয়েকজন স্কুলে যাবার পথে জোর করে তাকে তুলে নিয়ে যায়।
আদালত সূত্র থেকে জানা যায়, রূপগঞ্জ থানা এলাকার পিতলগঞ্জ আবদুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী আফসানাকে এ্কই এলাকার ভুমিদস্যু মানিক মিয়ার বখাটে ছেলে সজল মিয়া ও তার সহযোগিরা গত ৫ আগস্ট সকাল ৯টায় স্কুলে যাবার পথে অপহরণ করে। অপহরণের পর মেয়েকে ফিরে পেতে প্রবাসীর স্ত্রী নূরজাহান বেগম বারবার এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে মানিক মিয়া ও তার স্ত্রীর কাছে ধর্ণা দেয়। অনেক কাকুতী মিনতি করলেও মেয়েকে বখাটে সজলের কাছে বিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দেয় এবং নানাভাবে হুমকি ধমকি প্রদান করে। এ ঘটনায় থানায় গেলে ভিকটিম আফসানাকে মেরে ফেলা হবে বলেও হুমকি দেয় বখাটে সজলের বাবা ও মা। মেয়েকে অন্যত্র লুকিয়ে রেখে পিতলগঞ্জ এলাকার অনেকের কাছে বিয়ে দেয়ার প্রস্তাব অব্যাহত রাথে। ৭ম শ্রেণীতে পড়–য়া স্কুল ছাত্রীকে বিয়ে দিবে না বলে জানালেও কোন কর্ণপাত না করায় নূরজাহান বেগম বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতে বখাটে সজল ও তার বাবা ও মা সহযোগিতা করার অপরাধে মামলা দায়ের করেন। মামলাটি রূপগঞ্জ থানায় পাঠিয়ে এজাহারভুক্ত করার নির্দেশ দিলে রবিবার ভোরে পিতলগঞ্জের মানিক মিয়ার বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ভিকটিমকে উদ্ধার করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বখাটে সজল পালিয়ে গেলেও পুলিশকে বাঁধা প্রদান করে সজলের বাবা এজাহারভুক্ত আসামী মানিক মিয়া। পুলিশের কাজে বাঁধা প্রদান ও এজাহারভুক্ত আসামী মানিক মিয়াকে গ্রেফতার করে রূপগঞ্জ থানা হাজতে রেখে ভিকটিমকে বাদীর সথে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও আদালতে পাঠিয়ে আটককৃত মানিক মিয়ার সাথে আলোচনার পর অপর এজাহারভুক্ত আসামী মানিক মিয়ার স্ত্রী সাহিদা বেগম থানায় উপস্থিত হয়ে ৩ লাখ টাকা লেনদেন করে মানিক মিয়াকে থানা থেকে ছাড়িয়ে নেয় বলে অভিযোগ উঠেছে।
এমন ঘটনায় দারোগা ফরিদের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আসামী ধরা এবং ছাড়ার বিষয়ে ওসি ইসমাইল হোসেন খুব ভালো জানেন। তার সাথে কথা বলেন। বারবারই দারোগা ফরিদ ওসির সাথে কথা বলতে বলেন এই প্রতিবেদককে।
থানার একটি সূত্র জানায়, রবিবার ভোররাতে ভিকটিম উদ্ধার করতে মামলার বাদী নূর জাহান বেগমের কাছ থেকে ১৩ হাজার টাকাও তেল খরচ বাবদ হাতিয়ে নেয় দারোগা ফরিদ। এ সময় দারোগা ফরিদ থানায় দাঁড়িয়ে বলতে থাকে আমার বাড়ী ফরিদপুর। আমাকে কে কি বলবে।
নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে দায়ের করা এজাহারভুক্ত আসামীকে থানা থেকে ছেড়ে দেয়ার ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি আমি খতিয়ে দেখে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে ।
তৃণমূল দাবা প্রশিক্ষণ কর্মসূচি

আগামী ১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের তত্তাবধানে,বাংলাদেশ দাবা ফেডারেশনের আয়োজনে এবং জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় দিন ব্যাপী দাবা বাছাই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। অনুর্ধ-১৬ বছর বয়সী বালক ও বালিকা এ বাছাইতে অংশগ্রহণ করতে পারবে। বাছাই প্রতিযোগিতা থেকে ১জন বালক ও ১ জন বালিকা আগামী ৬ হতে ১১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত দাবা প্রশিক্ষণ ও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। আগ্রহী নন রেটেড দাবাড়–দের ১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ৯:৩০ মিনিটে ওসমানী স্টেডিয়ামে উপস্থিত থাকার জন্য বলা হয়েছে।

ঝুলে আছে জেলা বিএনপি অফিস মামলার রায়

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কার্যালয় নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সঙ্গে মামলায় আদালত রায় ঝুলে আছে। রোববার আদালত মামলাটির রায় দেয়ার নির্ধারিত তারিখে কোন আদেশ দেননি। তবে বিএনপির পক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন, আদালত পরবর্তীতে তারিখ ধার্য্য করেছেন আদেশের জন্য। এ আইনজীবী পরবর্তী তারিখ জানাতে পারেননি।
বিএনপির পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দীন সরকার বলেছেন, ‘আদালত রোববার আদেশ দেননি। পরবর্তীতে তারিখ ধার্য্য করেছেন। তবে ধার্য্য তারিখ জানি না।’ বিএনপির কার্যালয়টি এমনাবস্থায় থাকবে নাকি বহুতল ভবনে এ কার্যালয়টি আবারো নাসিকের মাধ্যমে ফিরে পাবে সেটার নির্ধারণ করবেন আদালত। গত ২৬ জুলাই নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে শুনানি হয়। ওই শুনানিতে জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার অর্ধশত আইনজীবীদের নিয়ে শুনানিতে অংশ নিয়েছিলেন। রোববার ২৮ আগস্ট ওই আদালতেই রায় দেয়ার ধার্য্য তারিখ ছিল।
জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি কার্যালয় নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সাথে আইনী লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপির নেতারা। তবে এ মামলায় সবচেয়ে মাথা ব্যাথ্যা তৈমূর আলম খন্দকারের। যদিও ওই মামলার বাদী অ্যাডভোকেট জাকির হোসেনও মামলার শুনানির সময় আদালতে উপস্থিত থাকে না বলে জানিয়েছেন বিএনপি নেতারা। এমনকি দলটির কার্যালয়ের ভবিষৎ নির্ধারনী শুনানির দিনে তৈমূর আলম খন্দকার অর্ধশত আইনজীবী নিয়ে দীর্ঘ কয়েক ঘন্টা শুনানিতে ছিলেন। তৈমূর পন্থীদের দাবি, যারা বড় বড় কথা বলেন তারা তো মামলার শুনানির সময় আদালতে উপস্থিত হন না। এমনকি যারা পার্টি অফিস দখলে নেয়ার লড়াই করেন তারাও তো আদালতে শুনানির সময় থাকেন না। আর মামলার বাদী অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন নিজেও আদালতে উপস্থিত হন না। তাই বিএনপির নেতারা দাবি করেছেন নিন্ম আদালতে বিএনপি মামলাটি হেরে গেলে জাকির হোসেন হয়তো উচ্চ আদালতে আপিলও করবেন না। জানাগেছে, গত ২৬ জুলাই নারায়ণগঞ্জ অতিরিক্ত জজ আদালতে বিএনপির মামলাটির শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। দীর্ঘ ২ঘন্টা শুনানি হয়।
বিএনপির আইনজীবীরা আদালতে দাবি করেছেন, ভবনটি নতুন করে করা হলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বিএনপিকে বুঝিয়ে দিতে হবে। আর নতুন ভবন করার পর কোন চার্জ বিএনপি দিবে না। বিএনপিকে উচ্ছেদ করার আগে সিটি কর্পোরেশন বিএনপির সাথে মিটিং করতে হবে। এছাড়াও বেশকয়েকটি দাবি আদালতে উত্থাপন করেছেন বিএনপির আইনজীবীরা। ওই শুনানিতে তৈমূর আলম সহ অর্ধশত বিএনপির আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন যেখানে বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের অনেক আইনজীবীরা শুনানিতে ছিলেন না। এমনকি জেলা বিএনপি ও নগর বিএনপির শীর্ষ নেতারাও উপস্থিত ছিলেন না আদালতে। ওই দিন শুনানি শেষে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন বিএনপি কার্যালয় উচ্ছেদের জন্য যে চিঠি দিয়েছে সেই চিঠিটাই অবৈধ। বেআইনিভাবে আমাদের উচ্ছেদের চিঠি দেয়া হয়েছে। আমরা এ বিষয়টি আদালতকে বলেছি। এছাড়াও আমরা আমাদের কাগজ পত্র সহ বক্তব্য আদালতে সুস্পষ্টভাবে আদালতে তুলে ধরেছি। অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত জেলা বিএনপির কার্যালয় ভেঙ্গে বহুতল ভবন নির্মাণ করা নিয়ে বিপাকে পড়েছে দলটির স্থানীয় নেতাকর্মীরা। নেতারা বলছেন, কার্যালয়টি ভেঙ্গে এখানে বহুতল ভবন নির্মাণের পর তাদের পুন:স্থাপনের সময়ের মাঝখানের সময়টুকুতে বিপাকে পড়তে হবে বিএনপিকে। কারণ এ সময়টাতে বেশী সক্রিয় হতে হবে আন্দোলন সংগ্রামে।

সেই বাড়ি ঘিরে কৌতুহল সবার

নারায়ণগঞ্জ শহরের পাইকপাড়া এলাকার যে বাড়িটিতে শনিবার ঘটেছে একটি কলংকজনক ঘটনা ওই বাড়িকে কেন্দ্র করে এখন সবার কৌতুহল সবার। লোকজন গিয়ে দেখছে বাড়িটি।
পাইকপাড়া শাহসুজা সড়কের ৪১০/১ নাম্বারে তিন তলার বাড়িতে শনিবার তিনজন জঙ্গি নিহতের ঘটনার পর থেকেই উৎসুক জনতা ভীড় করছে আশেপাশের লোকজন। যদিও ভবনের দুই পাশের সড়কে দেওয়া হয়েছে পুলিশের নিরাপত্তা বেষ্টনী কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচেছ না বেষ্টনি এড়িয়ে। বেষ্টনির বাইরে থাকা লোকজন আঙ্গুল উচিয়ে একে অন্যকে দেখাচ্ছে বাড়িটি।
শনিবার সকালে ৩ জঙ্গি নিহতের পর ওই এলাকাতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। বিকেলে তিন জঙ্গির লাশ নেওয়ার পর নিরাপত্তা কিছুটা শিথিল করা হলেও বাড়ির সামনের সড়কের উত্তর ও দক্ষিণ দিকে বসানো হয় বেষ্টনি।
রোববার সকাল থেকেই আশেপাশের লোকজনদের ভীড় করতে দেখা গেছে উত্তর দিকের বেষ্টনির বাইরে। সেখানে রয়েছে ১০-১২টি দোকান যার মধ্যে খাবার হোটেল, চা বিক্রির দোকানও। এসব দোকানে বসে লোকজনকে দেখা মিলেছে শনিবারের ঘটনা নিয়ে বিশ্লেষণ করতে। শনিবার যে ভোর ও সকালটি ছিল এসব দোকানদের জন্য আতংকের একদিনের ব্যবধানে সেখানে আতংক দূর হলেও এটা এলাকাবাসীর জন্য একটি কলংকের তিলক মনে করছেন স্থানীয়রা। লোকজন ওই বাড়ি দেখিয়ে একে অন্যকে বলছে, ‘ওইটা হলো জঙ্গিগো বাড়ি।’
রোববার দুপুরে শাহসুজা সড়কে দিয়ে পুলিশের পরিদর্শক আবদুস সাত্তারকে দেখা গেছে নিরাপত্তা প্রদানে কাজ করতে। তিনি জানান, তার নেতৃত্বে পুলিশের ১৫ সদস্যের টিম কাজ করছে। এছাড়া নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের এএসআই কামরুল ইসলামের নেতৃত্বে আরো ২৫জন কাজ করছে। তাছাড়া পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা কিছুক্ষণ পর পর ঘটনাস্থল টহল দিচ্ছেন।
জানা গেছে, যে বাড়িতে ঘটনা তার ঠিক বিপরীতে পশ্চিম দিকেই রয়েছে পাইকপাড়া কবরস্থান। বাড়ি সামনের সড়কটি দিয়ে কাশীপুর হয়ে মুক্তারপুর সেতু দিয়ে মুন্সিগঞ্জ যাওয়া যায়। বাড়ির নিচে টিনের ৮টি ঘর রয়েছে যেখানে ভাড়াটিয়া আছে। বাড়ির দক্ষিণ দিকে রয়েছে পুকুর। বাড়িটির আশেপাশে আর কোন বাড়ি নেই।
রোববার ওই টিনের ভাড়াটিয়া ছাড়া আর কাউকেই সেখানে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। আর গণমাধ্যম কর্মীদের বাড়ির কাছে ঘেষতে দেয়নি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
প্রসঙ্গত জঙ্গিদের অবস্থানের খবর পেয়ে শনিবার ভোরে পাইকপাড়ার কবরস্থান এলাকার নরুউদ্দিন দেওয়ানের তিনতলা বাড়ি ঘিরে ফেলে অভিযান শুরু করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস‌্যরা। পরে র‌্যাবসহ অন‌্য বাহিনীগুলোও অভিযানে যোগ দেয়। এক ঘণ্টার অভিযান শেষে ওই আস্তানায় পুলিশের গুলিতে ‘নব‌্য জেএমবি’র প্রধান গুলশান হামলার ‘হোতা’ তামিম আহমেদ চৌধুরীসহ তিনজন নিহত হন। প্রাথমিভাবে জানা গেছে, বাকি দুজন হলো, কাজী ফজলে রাব্বী ও তাওসিফ হোসেন।
আতঙ্ক নিয়ে ভাড়াটিয়াদের বসবাস

শহরের পাইকপাড়ায় দেওয়ান বাড়ির তিনতলা ভবনটি পুলিশ সিলগালা করে দেওয়া হলেও এর চারিপাশে রয়েছে অন্তত ২২টি টিনশেড ঘর। যেগুলোতে বসবাস করছেন খেটে খাওয়া কর্মজীবী মানুষেরা। শনিবার সকালে ঘন্টাব্যাপী বন্দুকযুদ্ধের সময়ে যেমন তারা আতঙ্কে কাটিয়েছেন তেমনি রোববারও তারা আতঙ্কের মধ্যেই বসবাস করছেন। শনিবার রাতে ওই বাড়ির টিনশেড ঘরগুলো থেকে যুবক বয়সীদের আটক করে নিয়ে গিয়েছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তার মধ্যে কয়েকজনকে রাতেই ছাড়া হলেও ২ জনকে ছাড়া হয়েছে রোববার দুপুরে। হোটেল কর্মচারী ইয়াসিন মোল্লা জানান, তার মামা মজিবর পক্ষাঘাতগ্রস্ত রোগী। তাকে শনিবার রাতে আটকের পর দুপুরে ছাড়া হয়েছে। তার স্ত্রী মোকসেদাকে সম্প্রতি ঢাকার একটি হাসপাতাল থেকে অপারেশন করে নিয়ে আসা হয়েছে। তাকে নিয়ে আমরা দুঃশ্চিন্তায় রয়েছি। কারণ পুলিশ বহিরাগত কাউকেই বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করতে দিচ্ছেনা। দুপুর ১টার দিকে ওই বাড়িতে নাতি জুবেলকে নিয়ে প্রবেশ করছিলেন বৃদ্ধা মনোয়ারা। তিনি জানান, শনিবার সকালে যখন প্রচন্ড গোলাগুলির শব্দ হচ্ছিল তখন ভয়ে তার স্টোক করার অবস্থা হয়েছিল। তার নাতি জুবেল (৪) অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। আতঙ্কে জুবেলের খালা বাড়ির পাশর্^বর্তী ডোবায় ঝাঁপ দিয়েছিল। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে।
রাজমিস্ত্রী মেহেদী হাসান জানান, তাকে শনিবার রাত ১০টার দিকে আটক করে ডিবি পুলিশের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকেসহ ৬ জনকে রাত আড়াইটার দিকে ছেড়ে দেয়া হলেও রাতে তাদেরকে বাড়িতে প্রবেশ করতে দেয়নি পুলিশ। এরপর তারা আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে রাত কাটিয়েছেন। রোববার দুপুর পর্যন্ত তিনি বাড়িতে ঢুকতে পারেননি।
ওই টিনশেড বাড়িতে বসবাসরত সাহেরা খাতুন জানান, তার ছেলে রিপনকে পুলিশ আটক করে নিলেও রোববার দুপুর পর্যন্ত সে বাসায় আসেনি। তাই তিনি রিপনকে খুঁজতে বেরিয়েছেন। একই কথা জানান হোসনে আরা। তার ছেলে গার্মেন্ট শ্রমিক ইমনও রোববার দুপুর পর্যন্ত বাসায় আসেননি। পরে কবরস্থান সংলগ্ন হোটেলে তাদের দেখা পেয়ে আনন্দিত হন দুই মা সাহেরা ও হোসনে আরা।
না’গঞ্জে নজরদারি বৃদ্ধি ব্লক রেইড চলছে

নারায়ণগঞ্জ শহরের পাইকপাড়ায় একটি ফ্ল্যাট বাসায় তিন জঙ্গি নিহতের পর আশেপাশের এলাকাতে নজরদারি বৃদ্ধি ও ব্লক রেইড চলছে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মঈনুল হক।
শনিবারের জঙ্গিবিরোধী অভিযান নিয়ে রবিবার নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসপি মঈনুল হক এসব কথা বলেন। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) ফারুক হোসেনও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। বেলা সাড়ে ১১টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।
পুলিশ সুপার এ ধরনের অনাকাংখিত ঘটনা এড়াতে বাড়িওয়ালাদের সহযোগিতা চান। বলেন, ‘ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ভাড়া দেওয়ার আগে যেন একটু খোঁজ খবর ও সচেতন হয়। এ ঘটনার পর আমরা সকল বাড়িওয়ালাদের কাছ থেকে সহযোগিতা চাচ্ছি তথ্য প্রদানের ক্ষেত্রে।’
তিনি বলেন, পাইকপাড়ার যে বাড়িতে ঘটনা ওই বাড়ির মালিক নুরুউদ্দিন দেওয়ানের বিরুদ্ধে তথ‌্য গোপনের অভিযোগে আমরা গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার জানান, তামিমরা গত ২ জুলাই ওই বাড়ির তৃতীয় তলার ফ্ল‌্যাট ভাড়া নিয়েছিলেন বলে ভবন মালিক নুরুউদ্দিনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তারা জানতে পেরেছেন। বাসা ভাড়া নেওয়ার সময় তারা বলেছিল, তারা আগে একমি ল্যাবরেটরিজে কাজ করত। এখন ওষুধের ব‌্যবসা করছে- এই পরিচয় দিয়ে তারা দুজন বাড়ি ভাড়া নেয়। তবে সেখানে যে তিনজন থাকত, তা বাড়ির মালিক জানতেন। বাসা ভাড়া নেওয়ার জন্য সম্ভবত তারা ভুয়া ও জাল পরিচয়পত্র ব্যবহার করেছিল। তারপরও তদন্ত করা হচ্ছে।
নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারুক হোসেন জানান, আটক ওই দশজনকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে নুরুউদ্দিনকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বাকি নয়জনকে রোববার তারা ছেড়ে দিয়েছেন।
এসপি মইনুল বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে জঙ্গিদের অবস্থানের মূল লক্ষ্য ছিল রাজধানীর আশেপাশের এলাকায় অবস্থানরত বিদেশিদের ওপর হামলা চালানো। এ টার্গেট নিয়েই তারা ঘনবসতিপূর্ণ নারায়ণগঞ্জ এলাকাকে বেছে নেয়।’
এদিকে শনিবার রাতেই পাইকপাড়ার ওই বাড়ির পাশের একটি ভবনে পুলিশের তল্লাশির সময় ইব্রাহিম খলিল সোহেল নামের এক শিবিরকর্মীকে উগ্র মতবাদের বইসহ আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ সুপার জানান। তিনি বলেন, “গত রাতে ব্লক রেইডের সময় একটি বাড়ি থেকে ইব্রাহীম খলিল সোহেলকে আটক করা হয়। সে শিবির করে। তার সঙ্গে থাকা আরও তিন শিবিরকর্মী পালিয়ে যায়। তামিমের জঙ্গি দলের সঙ্গে এই শিবির কর্মীদের কোনো যোগসূত্র আছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
প্রসঙ্গত জঙ্গিদের অবস্থানের খবর পেয়ে শনিবার ভোরে পাইকপাড়ার কবরস্থান এলাকার নরুউদ্দিন দেওয়ানের তিনতলা বাড়ি ঘিরে ফেলে অভিযান শুরু করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস‌্যরা। পরে র‌্যাবসহ অন‌্য বাহিনীগুলোও অভিযানে যোগ দেয়। এক ঘণ্টার অভিযান শেষে ওই আস্তানায় পুলিশের গুলিতে ‘নব‌্য জেএমবি’র প্রধান গুলশান হামলার ‘হোতা’ তামিম আহমেদ চৌধুরীসহ তিনজন নিহত হন। প্রাথমিভাবে জানা গেছে, বাকি দুজন হলো, কাজী ফজলে রাব্বী ও তাওসিফ হোসেন।
শংকা থাকলেও মেয়র প্রার্থী হতে চান ইসমাইল

চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসে নির্বাচন হবে কি হবে না এ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইল যিনি সদ্য বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টিতে যোগাদান করেছেন।
রোববার (২৮ আগস্ট) বেলা ১২টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের হানিফ খাঁন মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এ ঘোষণা দেন।
লিখিত বক্তব্যে সাইফুল হক বলেন, ‘জাতীয় কিংবা স্থানীয় পর্যায়ে বড় কোন সংকট দেখা না দিলে আগামী ডিসেম্বর মাসেই নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। শ্রমজীবী মেহনতী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় পরিক্ষিত রাজনৈতিক দল বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির পক্ষ থেকে সন্ত্রাস-মাদক ও লুটপাটমুক্ত সাধারণ মানুষের বাসযোগ্য একটি আধুনিক সুন্দর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠায় যে কোন অন্যায় অত্যাচারের বিরুদ্ধে দাড়িয়ে একটি অবাধ সুষ্ঠু ও গণতান্ত্রিক নির্বাচনী ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় লড়ইকে বেগবান করার লক্ষ্যে আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ গ্রহণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছি। সেই লক্ষ্যে অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ইসমাইলকে মেয়র পদপ্রার্থী হিসাবে ঘোষনা করছি।
তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে ক্ষমতাসীনদের নিজ দলীয় প্রার্থীকে বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় বিজয়ী করে নেওয়ার ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্যে ভোট ডাকাতি, ভোট কেন্দ্র দখল, নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ হুমকি-ধমকি এমন কি ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে পুনরাবৃত্তি হওয়ার সমূহ আশংকা তৈরী হয়েছে। এছাড়াও নির্বাচনে টাকার খেলা, সন্ত্রাস, পেশীশক্তি, প্রশাসনিক ম্যানিপুলেশন, সম্প্রদায়িকতা নতুন রূপে আবির্ভূত হওয়ার আশংকাকেও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না।’
লিখিত বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে সাইফুল হক বলেন, নারায়ণগঞ্জের এক ক্ষমতাসীন সাংসদ বিনাপ্রতিদ্বন্ধিতায় বিজয়ী করার ঘোষনা দিয়েছে যেটা পত্র পত্রিকায় এসছে। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জের বর্তমান মেয়র নগরবাসীর প্রত্যাশা অনুযায়ী উন্নয়ন করেনি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, ‘বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেন্ট শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট মাহবুববুর রহমান ইসমাইল, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টি নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, বাংলাদেশ কার্গো ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সিনিয়র সহ সভাপতি মাহমুদ হোসেন, শ্রমজীবী নারী মৈত্রী কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাশিদা বেগম, বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।
৫ দিন পর নৌ ধর্মঘট প্রত্যাহার

সর্বনিন্ম মজুরী ১০ হাজার টাকা নির্ধারণসহ ১৫ দফা দাবিতে নৌ শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘট ৫ দিন পরে প্রত্যাহার করা হয়েছে। শনিবার রাতে সরকার, মালিকপক্ষ ও শ্রমিকপক্ষের ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ায় প্রাণচা ল্য ফিরে এসেছে বাণিজ্যনগরী নারায়ণগঞ্জে। শীতলক্ষ্যা, বুড়িগঙ্গা ও মেঘনায় নোঙর করা জাহাজ থেকে খালাস করা হচ্ছে পণ্য সামগ্রী।
জানা গেছে, বাণিজ্যনগরী নারায়ণগঞ্জের উপর দিয়ে বয়ে গেছে শীতলক্ষ্যা, বুড়িগঙ্গা, মেঘনা নদী। আর এসকল নদীর তীরে গড়ে উঠেছে অসংখ্য শিল্পপ্রতিষ্ঠান। এদিকে টানা ৫ দিন নৌধর্মঘটের কারনে শীতলক্ষ্যা, মেঘনা ও বুড়িগঙ্গা নদীর পূর্ব ও পশ্চিম তীরে নোঙর করে ছিল পণ্যবাহী নৌযান। জাহাজগুলো স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের সামনে নোঙর করে রাখলেও লোড আনলোড হয়নি। নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুরের বরফকল জেটি, কাঁচপুর ল্যান্ডিং স্টেশন, ৫নং সারঘাট, মাছবাজার, ডালপট্টি লেবার হ্যান্ডলিং পয়েন্ট, পাইকারী ব্যবসাকেন্দ্র নিতাইগঞ্জের মাছুয়াবাজার, কাঠপট্টিসহ বিভিন্ন স্থানে লোড আনলোড বন্ধ ছিল। এতে করে লোড আনলোড শ্রমিকরা অলস সময় পার করছিলেন। তবে রোববার থেকে সেখানে ফিরে এসেছে কর্মচা ল্য।
বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ শিকদার জানান, জাতীয় শ্রমিকলীগ ও বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের একান্ত প্রচেষ্টায় ও অন্যান্য শ্রমিক সংগঠনের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের কারনে মালিকপক্ষ শ্রমিকদের দাবি মেনে নিতে সম্মত হয়েছে। রোববার থেকে সকল নৌযান শ্রমিকরা কর্মস্থলে যোগ দিয়েছে।
শহরের খানপুরের বরফকল জেটির লোড আনলোড শ্রমিকদের নেতা রাকিব সরদার জানান, বরফকল জেটিতে প্রতিদিন আনুমানিক এক থেকে দেড় হাজার টন পণ্য লোড আনলোড হয়ে থাকে। নৌযান শ্রমিকদের ধর্মঘটের কারনে লোড আনলোড বন্ধ ছিল। বর্তমানে সেখানে আবারো কর্মচা ল্য ফিরে এসেছে নিতাইগঞ্জের সম্মিলিত ব্যবসায়ী সমিতির নেতা ও গম ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জসিমউদ্দিন জানান, নৌ ধর্মঘটের কারণে গেল ৫ দিন নিতাইগঞ্জের পাইকারী ব্যবসা কেন্দ্রে লোড আনলোড বন্ধ থাকলেও রোববার থেকে পুরোদমে কাজ শুরু হয়েছে।
উল্লেখ্য পরিবার পরিজন নিয়ে খুবই কস্টে দিন কাটালেও যতদিন পর্যন্ত সর্বনি¤œ মজুরী দশ হাজার টাকা মেনে নেয়া না হবে ততদিন পর্যন্ত কর্মবিরতি চালিয়ে যাবেন এমনটিই দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছিলেন নৌ যান শ্রমিকেরা। নারায়ণগঞ্জের নদী বন্দরে নোঙর করা বিপুল সংখ্যক লাইটারেজ জাহাজের শ্রমিকেরা এমন প্রত্যয়ের কথাই জানিয়েছেন। গত ২২ আগস্ট থেকে সর্বনিন্ম মজুরী দশ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন দাবিতে নৌযান শ্রমিকরা ধর্মঘট চালিয়ে যাচ্ছেন। শীতলক্ষ্যার ৫ নং ঘাট এবং বন্দর এলাকায় নোঙর করা রয়েছে প্রায় তিনশত লাইটার জাহাজ। জাহাজগুলোর সুকানি, মাস্টার, লষ্করেরা অলস সময় কাটাচ্ছিলেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে সিদ্ধিরগঞ্জে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে ডিপিডিসি শ্রমিক কর্মচারীলীগ সিবিএ (রেজিঃ নং- ঢাকা-৪৫৭৭)। রোববার বিকালে সিদ্ধিরগঞ্জের বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কন্ট্রোল রুমে সিদ্ধিরগঞ্জ শাখার সভাপতি মজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ডিপিডিসি শ্রমিক কর্মচারীলীগের দপ্তর সম্পাদক আমিনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ডিপিডিসি শ্রমিক কর্মচারীলীগের সাধারণ সম্পদাক হাতেম আলী সরকার, প্রকৌশলী তৌফিজ। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন রেনু, সহ-সভাপতি মতিউর রহমান মোল্লা, প্রচার সম্পাদক তাজিম বাবু, আ লিক শ্রমিকলীগ সভাপতি আব্দুস সামাদ বেপারী। ডিপিডিসি শ্রমিক কর্মচারীলীগ (সিবিএ-৪৫৭৭) সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের সার্বিক তত্বাবধায়নে এতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহ-সভাপতি মনির হোসেন, হোসেন আহম্মেদ, সাখাওয়াত হোসেন, মীর আঃ রশিদ, মনসুর আলী, আব্দুল বারেক ও বাবুল মিয়া প্রমুখ।

জঙ্গীবাদ নির্মূলে লাল পতাকা গণমিছিল

“শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ” ও “আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গনবিচার আন্দোলন এর উদ্যোগে সোমবার দুপুরে রাজধানী ঢাকার মতিঝিল শাপলা চত্বরে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ শেষে লাল পতাকা গণমিছিল মতিঝিল শাপলা চত্বর থেকে প্রেসক্লাব গিয়ে শেষ হয়। সমাবেশ ও লাল পতাকা গণমিছিলে “শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ” ও “আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গনবিচার আন্দোলন” এর আহ্বায়ক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এম.পি ছাড়াও মিছিলে নেতৃত্বস্থানীয়দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত কাদির গামা, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী খান, জাতীয় শ্রমিকলীগের শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহম্মেদ পলাশ, আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনের সহ সদস্য সচিব রোকেয়া প্রাচী, কামরুল আলম সবুজ প্রমুখ।
লাল পতাকা নিয়ে মিছিল সহকারে জাতীয় শ্রমিকলীগের শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহম্মেদ পলাশের নেতৃত্বে যোগ দিয়েছেন জাতীয় শ্রমিকলীগের ফতুল্লা আ লিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ন কবির, ইউনাইটেড ফেডারেশন অব গার্মেন্ট ওয়ার্কার্স নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সেন্টু, বাংলাদেশ আন্তঃজেলা ট্রাক চালক ইউনিয়ন দক্ষিণ বঙ্গের লাইন সেক্রেটারী আবুল হোসেন, লোড আনলোড ইউনিয়ন ফতুল্লা থানা শাখার সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, আবদুস সাত্তার, ফিরোজ মিয়া, বশিরউদ্দিন, কবির হোসেন রাজু প্রমুখ

শহর ত্রয়োদশ সিপিবি’র সম্মেলন সম্পন্ন
গত ২৭ আগস্ট শনিবার বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি নারায়ণগঞ্জ শহর ত্রয়োদশ সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে বিকাল ৫টায় অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলে সভাপতিত্ব করেন কমরেড আব্দুল মান্নান ও কমরেড শোভা সাহা। জেলা কমিটির অতিথি ছিলেন কমরেড বিমল কান্তি দাস। কাউন্সিলে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন কমরেড মৈত্রী ঘোষ। কমিটির রিপোর্ট ও আয় ব্যয়ের হিসাব প্রদান করেন সাধারণ সম্পাদক সুজয় রায় চৌধুরী বিকু। একাদশ কংগ্রেস এর রাজনৈতিক প্রস্তাব এর উপর আলোচনা করেন কমরেড বিমল কান্তি দাস। শহর কমিটির রিপোর্ট এর উপর আলোচনা করেন এড. মন্টু ঘোষ, কমরেড হাফিজুল ইসলাম, কমরেড আঃ হাই শরীফ, কমরেড রবীন্দ্র দাস, কমরেড শাহানারা বেগম, কমরেড দুলাল সাহা কমরেড কৃষ্ণা ঘোষ, কমরেড এড. শরৎ চন্দ্র মন্ডল, কমরেড কমরেড মোঃ শাহজাহান, কমরেড আঃ সোবহান, কমরেড শিশির চক্রবর্তী, কমরেড সুমাইয়া আক্তার সেতু, কমরেড ফারজানা আক্তার, কমরেড সজীব শরীফ প্রমুখ। সভায় চলমান কাউন্সিলের মধ্য দিয়ে ১৩সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি নারায়ণগঞ্জ শহর কমিটি নির্বাচন করা হয়।
বন্দরে রাস্তাকে কেন্দ্র করে মহল্লাবাসীর সাথে সন্ত্রাসীদের সংঘর্ষ

বন্দরের নবীগঞ্জে কবরস্থানের পাশে রাস্তা নিয়ে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের সাথে মহল্লাবাসীর ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। পুলিশ সন্ত্রাসীদের ফেলে যাওয়া ৩টি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে। রোববার সকাল ১০ টায় এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যপারে থানায় অস্ত্র মামলা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নবীগঞ্জ কবরস্থান সংলগ্ন মহল্লায় নাজিম উদ্দিন তার বাড়ি নির্মাণ করে যাচ্ছে। সে মহল্লার রাস্তা জবর দখলের জন্য রামনগর ও উত্তরপাড়া এলাকা থেকে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের নিয়ে মহল্লাবাসীর উপর হামলা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসী মাসুদ একই মহল্লার আহাম্মদ আলীকে গুলি ও সন্ত্রাসী মামুন ধারালো ছুরি দিয়ে পেটে পার মারে। ভাগ্যগুণে গুলি ও ছুরির আঘাত থেকে আহাম্মদ আলী বেঁচে যায়। চাকু ফেরাতে গিয়ে খোকা (৪২) নামে একজন আহত হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কেন্দ্রীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের ভাতিজা বাবু ভাড়ায় এসে মহল্লাবাসীর উপর হামলা চালায়। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ এলে নাজিম উদ্দিনসহ সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ সন্ত্রাসীদের ফেলে যাওয়া ৩টি ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করে।

Related posts