November 18, 2018

না’গঞ্জে বিদ্যুৎ যায় না যেন আসে?


রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জ:  নারায়ণগঞ্জে টানা তিনদিনের মত শুক্রবারও ছিল তীব্র লোডশেডিং। সকাল থেকে রাত অবধি ছিল বিদ্যুতের চরম ভেলকিবাজী ও লোডশেডিং। ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের কারণে তীব্র ভোগান্তির শিকার হতে হয় মানুষদের। অনেকেই টিট করে বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে এখন বিদ্যুৎ যায় না আসে। আর কখন যে আসে সেটাও বোঝা যায় না।’

শহরের চাষাঢ়া এলাকার কবির হোসেন জানান, সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অন্তত ১০ বার বিদ্যুৎ গেছে। যখনই গেছে তখনই এক থেকে দুই ঘণ্টারও বেশী লোডশেডিং হয়। ফলে বিদ্যুতের মটর চালানো যায়নি। এতে করে ঘরের কাজ করা যায়নি। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে সবাই।

দেওভোগ এলাকার তাপস সাহা জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় বিদ্যুৎ গেছে যা এসেছে শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে। প্রচ- গরমের সঙ্গে এ লোডশেডিং যন্ত্রনাদায়ক।

তিনি বলেন, ‘কখন বিদ্যুৎ আসবে জানতে বিদ্যুৎ অফিসে একাধিকবার ফোন করলেও কেউ রিসিভ করেনি। ফলে জানা যাচ্ছে না কখন বিদ্যুৎ আসবে।’

শহরের খানপুর এলাকার রেহানউজ্জামান জানান, ‘কী কারণে বিদ্যুতের লোডশেডিং তা আমাদের জানা প্রয়োজন। যেহেতু সরকার ডিজিটালাইজড হচ্ছে সেহেতু বিদ্যুতের লোডশেডিংও আমাদের অন্তত মোবাইলে ম্যাসেজ তথা এসএমএস করে জানানো যেত।’

এদিকে গত দুইদিন ধরে প্রচ- তাপদাহ বেড়েই চলেছে। এর মধ্যে বিদ্যুতের এ ভানমুতি খেলায় অতিষ্ট পুরো নারায়ণগঞ্জবাসী।

ঢাকা পাওয়ার ড্রিস্টিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড (ডিপিডিসি) এর সুপারিনটেন্ডিং ইঞ্জিনিয়ার মোঃ একরামুল হক জানান, সিদ্ধিরগঞ্জে বিদ্যুৎকেন্দ্রের ৩৩ কেভি গ্রীডের একটি ব্রেকার পুড়ে গেছে। সেটি মেরামতের কাজ চলছে। যে কারণে গত বুধবার রাত থেকে লোডশেডিং এর মাত্রা বেড়ে গেছে। তবে ওই ব্রেকারটির মেরামতের কাজ শেষ পর্যায়ে। আশা করছি শুক্রবার রাতের মধ্যেই মেরামতের কাজ সম্পন্ন হবে। শনিবার থেকে আর বিদ্যুতের সমস্যা থাকবেনা।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/০৮ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts