September 23, 2018

নতুন কাঠামো অনুযায়ী পাওয়ার কথা থাকলেও সবাই পাননি!

ঢাকাঃ  সরকারি কর্মচারীরা তাঁদের ডিসেম্বর মাসের বেতন অষ্টম বেতন কাঠামো অনুযায়ী পাওয়ার কথা থাকলেও সবাই তা পাননি। জানুয়ারি মাসের প্রায় এক সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও অর্থবিভাগের হিসাব অনুযায়ী এখনো পর্যন্ত ৪০ ভাগ কর্মচারী বেতন ওঠাতে পারেননি।

মন্ত্রীর ভাষ্যমতে, এ মাসের মধ্যে শতভাগ কর্মচারী নতুন বেতন কাঠামোয় বেতন পাওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে ফেব্রুয়ারি মাসে যখন জানুয়ারির যে বেতন ওঠাবেন, তখন শতভাগ কর্মচারীই নতুন কাঠামো অনুযায়ী তা পাবেন।

নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী শতভাগ কর্মচারী বেতন ভাতা না পাওয়ার জন্য মহা হিসাব নিরীক্ষকের (এজি) অফিসের চাপ সামলাতে না পারা এবং নতুন পদ্ধতি অনুযায়ী বেতন-ভাতা নিরূপণে কারিগরি সমস্যাকে দায়ী করছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

এ বিষয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘টেকনিক্যাল কিছু কারণে এ মাসে শতভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী সরকারের ঘোষিত নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী বেতন-ভাতা নাও পেতে পারেন। তবে আমার ধারণা শতকরা নব্বইভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারী চলতি মাসেই বেতন-ভাতা পাবেন। আগামী মাসে অর্থাৎ জানুয়ারি মাসের বেতন শতভাগ নিশ্চিত হবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে সব মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদপ্তর, পরিদপ্তর ও বিভিন্ন কার্যালয় মিলে ১২ লাখের ওপর কর্মচারী রয়েছে। এদের সবার জন্যই নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী বেতন-ভাতা প্রদানের বিষয়ে সরকারের শতভাগ আয়োজন রয়েছে। তবে এজি অফিস এখন একযোগে সবার বেতন নিরূপণ করে চূড়ান্ত করতে হিমশিম খাচ্ছে।

এম এ মান্নান জানান, বেতন-ভাতা উত্তোলনের জন্য এখন অনলাইন পদ্ধতি প্রবর্তন করা হয়েছে। এ পদ্ধতি অনুযায়ী একজন কর্মকর্তা বা কর্মচারী এখন অর্থ মন্ত্রণালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে নিজের আইডি দিয়ে তাঁর জন্য নির্ধারিত পেজ খুলবেন। এখানে তিনি নিজেই নিজের বেতন নিরূপণ করে তা অনলাইনে এজি অফিসে পাঠাবেন। এজি অফিস তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অর্থ বিভাগে পাঠাবেন। এটা করতে হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বা কর্মচারীর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বরসহ কিছু তথ্য সংযোজন করতে হয়। অনেকেরই পরিচয়পত্র নেই, থাকলেও ভুলত্রুটি রয়েছে। এগুলো ঠিক করতে তাঁরা সময় নিচ্ছেন। ফলে তাঁরা তাঁদের বেতন নিরূপণ করতে পারছেন না। তবে আগামী মাসের মধ্যে সব ঠিকঠাক হয়ে যাবে।

এদিকে অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, নতুন বেতন কাঠামো নিয়ে কয়েকটি ক্যাডার ও রাষ্টায়ত্ত ব্যাংকগুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে অসন্তোষ রয়েছে। এদের বেশির ভাগই নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী নিজেদের বেতন নিরূপণ (অ্যাসেসমেন্ট) করে এজি অফিসে পাঠায়নি। ফলে এদের বেশির ভাগই নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী বেতন পাচ্ছেন না।

নতুন বেতন কাঠামো নিয়ে কয়েকটি ক্যাডারের কর্মকর্তাদের অসন্তোষের বিষয়ে জানতে চাইলে অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী বিষয়টির দিকে দৃষ্টি দিয়েছেন। বেতন বৈষম্য দূরীকরণ সংক্রান্ত কমিটির সঙ্গে তিনি বসেছেনও। খুব শিগগিরই এর সন্তোষজনক সমাধান হবে।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts