September 26, 2018

ধানের শীষ-নৌকার পার্থক্য গড়বেন নারী ভোটাররা

বগুড়া পৌরসভা নির্বাচনে লড়াই হবে দুই আইনজীবী প্রার্থীর নৌকা আর ধানের শীষে। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুটি আসনে জয় পাওয়ার পর এবার বগুড়া সদর পৌরসভার মেয়র পদে জয় পেতে মাঠে নেমেছে আওয়ামী লীগ। আর প্রচার-প্রচারণায় এগিয়েছে বিএনপি। প্রচার-প্রচারণা যেমনই হোক নির্বাচনের মাঠে প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা আপাতত ভোটারদের কাছে ভোট চাইছেন। ভোটাররা ফলাফল আর পার্থক্য গড়ে দিলেও এবার জেলায় বেশির ভাগ পৌরসভায় ফলাফল গড়ে দেবেন নারী ভোটাররা। জেলায় পুরুষ ভোটারের চেয়ে বেড়েছে নারী ভোটার।

জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ১২ নভেম্বর বগুড়ার জনসভায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচি প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রী প্রায় ৭৬৭ কোটি ৬৯ লাখ ২৭ হাজার টাকা ব্যয়ে ৩৪টি প্রকল্পের শুভসূচনা করেন। প্রধানমন্ত্রীর আগমনের পর থেকেই বগুড়ার রাজনীতিতে ভিন্ন হাওয়া বয়ে যাচ্ছে। দলে যেমন চাঙ্গাভাব রয়েছে ঠিক তেমনি আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র প্রার্থীকে জয়ী করতে মাঠে নেমেছেন নেতা-কর্মীরা। বিভিন্ন এলাকায় ভোটাররা বিএনপির প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জয়লাভ করে আসছিল। এবার সেখানে ভিন্ন বাতাস বইতে শুরু করেছে। সচেতন ভোটাররা বলছেন, আমার ভোট আমি দেব যাকে খুশি তাকে দেব। আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাড: রেজাউল করিম মন্টুর সঙ্গে তাল মিলিয়ে ছুটছেন বিএনপির প্রার্থীও। নির্বাচনকে সামনে রেখে বসে নেই বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাড: মাহবুবুর রহমান। ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ঘরে ঘরে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। দলীয় কর্মীরা বিভিন্ন এলাকায় নির্বাচনী ক্যাম্প করেছেন। ক্যাম্প থেকে দলীয় প্রার্থীদের পক্ষে ভোট প্রার্থনা করা হচ্ছে।

গত পৌর নির্বাচনে বগুড়া পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী মাহবুবুর রহমান ভোট পান ৯৬ হাজার ৩৩৪টি। আর আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল করিম মন্টু ভোট পান ৫৯ হাজার ৩৫৫টি। জানা গেছে, ৩০ ডিসেম্বর বগুড়া জেলার নয়টি পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো হলো— বগুড়া, শেরপুর, ধুনট, কাহালু, নন্দীগ্রাম, সান্তাহার, শিবগঞ্জ, সারিয়াকান্দি ও গাবতলী। এসব পৌরসভায় মোট ভোটার ৩ লাখ ৭০ হাজার ৯১১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৮৩ হাজার ১৫ জন ও মহিলা ভোটার ১ লাখ ৮৭ হাজার ৮৯৬ জন। সে হিসেবে পুরুষ ভোটারের চেয়ে মহিলা ভোটার বেশি ৪ হাজার ৮৮১ জন। পৌরসভাভিত্তিক ভোটার বগুড়ায় ২ লাখ ৪৮ হাজার ৫৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২২ হাজার ৪০৫ জন ও মহিলা ভোটার ১ লাখ ২৫ হাজার ৬৪৯ জন। এখানে মহিলা ভোটার বেশি ৩ হাজার ২৪৪ জন। ৩০ ডিসম্বের বগুড়া পৌরসভার ২১টি সাধারণ ওয়ার্ডের ১০১টি ভোটকেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। ১৮৭৬ সালের ২ জুলাই প্রতিষ্ঠিত বগুড়া পৌরসভা জনসংখ্যা ও আয়তনের দিক থেকে দেশের সর্ববৃহৎ প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। এ ছাড়া সান্তাহার ও শেরপুর প্রথম শ্রেণির পৌরসভা।

বগুড়া ছাড়া অপর ৮ পৌরসভার সাধারণ ওয়ার্ড সংখ্যা ৯টি করে। গাবতলী পৌরসভায় ১৫ হাজার ৪৬৬ জন ভোটারের মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ৭১৭ জন ও মহিলা ৭ হাজার ৭৪৯ জন, কাহালুতে ৯ হাজার ৮৫৮ জনের মধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ৯২৭ ও মহিলা ৪ হাজার ৯৩১ জন, নন্দীগ্রামে ১৩ হাজার ৮৪১ জনের মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ৬৫৮ জন ও মহিলা ৭ হাজার ১৮৩ জন, শেরপুরে ২০ হাজার ৬৪১ জনের মধ্যে পুরুষ ১০ হাজার ১০৩ ও মহিলা ১০ হাজার ৫৩৮, ধুনটে ৯ হাজার ৯১৬ জনের মধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ৯০৬ ও মহিলা ৫ হাজার ১০ জন, সারিয়াকান্দিতে ১৩ হাজার ৭৬৮ জনের মধ্যে পুরুষ ৬ হাজার ৮৫৪ জন ও মহিলা ৬ হাজার ৯১৪, শিবগঞ্জে ১৬ হাজার ১৯১ জনের মধ্যে পুরুষ ৮ হাজার ২৪ জন ও মহিলা ৮ হাজার ১৬৭, সান্তাহারে ২৩ হাজার ১৭৬ জনের মধ্যে পুরুষ ১১ হাজার ৪২১ জন ও মহিলা ১১ হাজার ৭৫৫ জন।

এদিকে সর্বশেষ হালনাগাদ তালিকাভুক্ত নতুন ভোটারদের খসড়া তালিকা আগামী জানুয়ারি মাসে প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন। এ কারণে পৌরসভা নির্বাচনে ভোট দিতে পারছে না নতুন ভোটাররা।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts