September 26, 2018

দেশে পলাশীর পদধ্বনী শোনা যাচ্ছে – গোলাম মোস্তফা

ছবিঃ আজ বৃহস্পতিবার সকালে নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে পলাশী দিবসের ২৫৯তম বার্ষিকী স্মরণে বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখছেন দলের মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া।

রিপন হোসেন
ঢাকা থেকেঃ
দেশে এখন পলাশীর পদধ্বনী শোনা যাচ্ছে বলে অভিমত প্রকাশ করে ২০ দলীয় জোট নেতা ও বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন, ১৭৫৭ সালের ২৩ জুন মুর্শিদাবাদের পলাশীর প্রান্তরে কোনো যুদ্ধ হয়নি, হয়েছিল যুদ্ধ যুদ্ধ খেলা। আর এই খেলার মাধ্যমেই পলাশীতে অস্তমিত হয়েছিল বাংলার স্বাধীনতার সূর্য্য। সেদিন শাসকগোষ্টি ও দেশবাসী শুধু যার যা দায়িত্ব তা পালন না করার কারণে এবং সিরাজ-উদ-দৌলার মন্ত্রিপরিষদ সদস্যদের সীমাহীন দুর্নীতি-লোভ ও দুর্বৃত্তায়নের কারণেই ইংরেজ বেনিয়াদের কাছে পরাজিত হয়েছিল জাতি। আজও শাসকগোষ্টি ও রাজনীতিবিদদের ব্যর্থতার কারণে দেশ সেই দিকেই ধাবিত হচ্ছে।

এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া আজ বৃহস্পতিবার সকালে নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে ঐতিহাসিক পলাশী দিবসের ২৫৯তম বার্ষিকী স্মরণে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ঢাকা মহানগর আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখছিলেন। ন্যাপ নগর আহ্বায়ক সৈয়দ শাহজাহান সাজু‘র সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন ন্যাপ যুগ্ম মহাসচিব স্বপন কুমার সাহা, সম্পাদক মোঃ কামাল ভুইয়া, নগর সদস্য সচিব মোঃ শহীদুননবী ডাবলু, যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ আনছার রহমান শিকদার, সদস্য মোঃ শামিম ভুইয়া, নারী নেত্রী বাসন্তি বরুয়া বাবলী, যুব নেতা আবদুল্লাহ আল-মাসুম, ছাত্রনেতা এইচ.এম. মেহেদী হাসান প্রমুখ।

এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেছেন, পলাশীর মতো আজও বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিয়ে চলছে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত। প্রতিবেশী রাষ্ট্র বন্ধুবেশে বাংলাদেশকে পরিণত করতে চাচ্ছে করদরাজ্যে। পলাশীর বিপর্যয় তখনই ঘটেছিল যখন অর্থনীতির উপর থেকে তৎকালীন সরকারের নিয়ন্ত্রণ অন্যের হাতে চলে গিয়েছিল। তিনি বলেছেন, ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি বাণিজ্যের নামে এদেশে প্রবেশ করে অবশেষে দেশের স্বাধীনতা হরণ করেছিল। কেউ যেন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে না পারে সে ব্যাপারে বর্তমান সরকারসহ সব দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক দল, ব্যক্তি ও গোষ্ঠীকে সজাগ থাকতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ শাহজাহান সাজু বলেছেন, সেদিন মীরজাফর নবাবের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেননি, কিন্তু তার ওপর প্রদত্ত দায়িত্বও পালন করেননি তিনি। নবাব সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করেছিল, তারা সবাই শাসক গোষ্ঠীর অংশ ছিল। আমরা সবাই বলি ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে হবে, অথচ কেউ আমরা ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেই না।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৩ জুন ২০১৬

Related posts