September 20, 2018

দুর্গাপুর-শ্যামগঞ্জ সড়কের যাত্রীগন চরম দূর্ভোগে

956

চারণ গোপাল চক্রবর্তী,নেত্রকোনাঃ   নেত্রকোনা জেলার সুসং দুর্গাপুর থেকে শ্যামগঞ্জ আঞ্চলিক যোগাযোগ সড়ক এর বেহাল অবস্থা।দুর্গাপুর থেকে জেলা শহর নেত্রকোনা,সদ্য বিভাগীয় শহর ময়মনসিংহ এবং রাজধানী ঢাকা’র সঙ্গে যোগাযোগের প্রধান সড়কের করুন অবস্থার প্রতিনিয়ত শিকার দুর্গাপুরবাসী।

নেত্রকোনা জেলা সড়ক ও জনপদের অধীনস্ত্ব এই রাস্তা প্রামানিক সূত্র মতে, সর্বশেষ ২০১১ সালে বর্তমান মহামান্য রাস্ট্রপতি,তৎকালীন স্পীকার মোঃআব্দুল হামিদ ও এই এলাকার তৎকালীন সাংসদ মোস্তাক আহমেদ রুহী একনেক  বরাদ্দের ৯০ কোটি টাকা ব্যায়ভারে শ্যামগঞ্জ থেকে দুর্গাপুর উপজেলা পরিষদ পর্যন্ত মোট ৩৬ কি,মি, রাস্তা, ছোট-বড় ১২ টি ব্রীজ সহ ধারাবাহিক উন্নয়ন প্রকল্প কাজের শুভ-উদ্ভোধন করেন,যা লক্ষ্যনীয় ভাবে দ্রুততার সঙ্গে রাস্তা নির্মানে এবং অবহেলিত দুর্গাপুরবাসীর দুঃখ শুকনাকুড়ী সেতু সহ কৃষ্ণেরচর সেতু,পলাশকান্দি সেতুর মাধ্যমে দুঃখ যন্ত্রনার অবসান ঘটায় ও দুর্গাপুরবাসী সস্তীর নিঃশ্বাস ফেলে।

পাহাড়ী কাঠ,কয়লা,বালি,নূড়িপাথর ও বাংলাদেশের একমাত্র খনিজ সম্পদ সাদা মাটি সহজলভ্যতার সুবাদে ব্যাবসায়ীদের মাধ্যমে এই রাস্তা ধরে প্রাকৃতিক সম্পদ ও সৌন্দর্য্য’র লীলাভূমি এবং নেত্রকোনা জেলার সর্ব্বোচ্চ সরকারী রাজস্ব আয় অঞ্চল দুর্গাপুরের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপিত হয় সমগ্র বাংলাদেশের।
বর্তমানে এই আঞ্চলিক সড়ক দিয়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিদিন গড়ে ৫০০/৬০০ ট্রাক, স্থানীয় যাত্রীসেবার নিমিত্তে ৪০/৫০ টি বাস, পর্যটকবাহী প্রাইভেটকার সহ ছোট-বড় অগনিত গাড়ি,সিএনজি ও ব্যাক্তিগত/ভাড়ায় চালিত মোটসাইকেল চলাচল করে।

দীর্ঘ সময়কাল বেহাল রাস্তা সাম্প্রতিক সরজমিণে গিয়ে দেখা গেছে অতিরিক্ত মাল বোঝাই ট্রাক-লড়ীর দৌড়াত্মে এই আঞ্চলীক সড়কের বিভিন্নস্থানে ছোট-বড় গর্ত দৃশ্যমান ও পীচ ঢালা কালো রাজপথ শুধু নাম স্বর্বস্য।মেঘালয়ের কূলঘেশা এলাকায় প্রায়শই বৃস্টিপাত ঘটে, তখন রাস্তার খানা-খন্দের দরুন চালিত যান বিকল হয়ে সৃস্ট হয় দীর্ঘ যানজট। প্রতিদিন এই সড়কদিয়ে রাজধানী ঢাকা,জেলা নেত্রকোনা ও বিভাগীয় শহর ময়মনসিংহের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে বিভিন্ন পেশার প্রায় ২/৩ হাজার লোক নিয়মিত যাতায়াত করে,যাদের অধিকাংশই নিজেদের আজকাল ভূক্তভোগী হিসাবে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও আলাপচারিতায় তুলে ধরছেন,সদ্য সমাপ্ত পৌর নির্বাচনের প্রচার কার্যে আসা সরকারদলীয় কেন্দ্রীয় ও জেলা নেত্রীবৃন্দ প্রকাশ্য পথসভায় এই রাস্তা নিয়ে আক্ষেপ করেছেন তারপরেও জনপ্রতিনিধিসহ স্থানীয় প্রশাসনের টনক নড়ছে না।

এই এলাকার একাধিক বাসিন্দা জানিয়েছেন যে,তারা এহেন পরিস্থিতি থেকে পরিত্রান চায় এবং প্রশাসনের সু-দৃস্টি কামনা করছেন।

এ ব্যাপারে নেত্রকোনা সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলি মোঃমাসুদ খানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান এই ব্যাপারে অবগত আছেন, তিনি উচ্চ পর্যায়ে আবেদন করেছেন,শীঘ্রই এই সড়কটির পরিচর্যার কাজ শুরু হবে বলে আশা ব্যাক্ত করেন এবং অতিরিক্ত বালি বহনকারী ট্রাক-লড়ি হতে নির্গত হওয়া পানি’কে তিনি রাস্তার এহেন পরিস্থিতির কারন বলে উল্লেখ করেন ।
৩/৪ লাখ বাসিন্দার বসবাস এবং প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য ও সম্পদের ভূমি তাঁর যোগাযোগের প্রধান সড়কটির উন্নয়নের নিমিত্তে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনায় চাতক পাখির ন্যায় নেত্র মেলে অপেক্ষমান।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts