November 13, 2018

দুঃখী মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন না হওয়া পর্যন্ত সংগ্রাম চলবে : প্রধানমন্ত্রী

fঢাকা::

প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত সংগঠনকে শক্তিশালী করার আহবান জানিয়ে দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, দু:খী মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের আগ পর্যন্ত এই সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা তাদের সংগ্রাম অব্যাহত রাখবে, যে পর্যন্ত না বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের মাধ্যমে দু:খী মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হচ্ছে’।

আজ শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত সংগঠনের বর্ধিত সভার প্রারম্ভিক বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল এ দেশের প্রতিটি মানুষ অন্ন পাবে, আশ্রয় পাবে, উন্নত জীবন পাবে এবং আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটি নেতা-কর্মীর দায়িত্ব বঙ্গবন্ধুর সে স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করা।

তিনি বলেন, এদেশের দু:খী মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন হওয়ার আগ পর্যন্ত এই সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে এবং জনগণকে সেই কাঙ্খিত জায়গায় পৌঁছানোর জন্য দেশকে সঠিক রাস্তায় পরচালিত করাই আওয়ামী লীগের লক্ষ্য। এটা বার বার প্রমাণিত যে, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই কেবল দেশের উন্নতি হয়।

পার্টির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সভায় উদ্বোধনী বক্তৃতা প্রদান করেন।
বৈঠকের শুরুতে সংগঠনের দফতর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাম শোক প্রস্তাব উত্থাপন করেন। প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।

এক ঘণ্টার অধিক সময়ের বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের শাসনামলে দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বিএনপির রাজনীতির নামে বিভিন্ন ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা করেন।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনকে লক্ষ্য রেখে জনসমর্থন আদায়ে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরার জন্য দলের নেতা-কর্মীদের প্রত্যেক ভোটারের কাছে পৌঁছতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ ও ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরেই দেশের উন্নয়ন অভিযাত্রা শুরু হয়েছে, তা আবার ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জয়ী হয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসার কারণেই দেশের এই উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখা সম্ভব হয়েছে। টেকসই উন্নয়নের প্রয়োজনে দলকে আবারও রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় নিয়ে আসতে দলের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের একযোগে কাজ করে যেতে হবে।

Related posts