September 26, 2018

দীঘিনালার গৃহবধূ মৃত্যু নিয়ে ফেইজবুকে তোলপাড়!

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: এ কেমন মনুষ্যত্ব ? এ কেমন হত্যা ? কি দোষ ছিল নিরীহ মেয়েটির ? প্রত্যেক সংসারে একটু একটু কথা কাটাকাটি হয় তাই বলে জীবন কেড়ে নিতে হবে! এ ধরণের আরো অগনিত স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড় শুরু সৃষ্টি হয়েছে খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় আত্মহত্যা বলে হত্যার ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার সূত্র ধরে।

সাধারণ মানুষ যখন ছবি দেখে বুজতে পারছে এটি হত্যাকান্ড তখন দীঘিনালা থানার মামলা নিতে নাটকীয়তা নিয়ে পুলিশের নিরপেক্ষতা নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিচ্ছে।

অবশেষে দীর্ঘ নাটকীয়তার অবসান ঘটিয়ে সোমরাতে মামলা গ্রহণ করে দীঘিনালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান যেমনি দায়িত্ব বোধের পরিচয় দিয়েছেন,তেমনি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে দোষিদের শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহন করলেই সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রশাসনের প্রতি শ্রদ্ধা আরো বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করেন সচেতন সমাজ।

ফেইজবুক স্ট্যার্টাস নিয়ে জেলা ব্যাপী আলোড়নের ঝড় তুলেছে তার অবসান ঘটবে যথাযথ প্রদক্ষেপের মধ্য দিয়ে।

ফেইজ বুক সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যে উল্লেখ করা হয়েছে, বর্তমান সমাজে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় বউ- শ্বাশুড়ীর জগড়া যার প্রভাব পড়ে স্বামী -স্ত্রীর সংসারে, এইক্ষেত্রে দোষ দিবো ঐ স্বামীদের কারন মায়ের সম্মান মাকে আর বউয়ের সম্মান বউয়ের দুইটি এক করা যাবে না। বুঝতে হবে বিচার বিশ্লেষণ করতে হবে তারপর ভাল-মন্দ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।

খাগড়াছড়ির কলাবাগানের সেই মুক্তার হাসি মুখ দেখবে না আর কেউ। আমরা চাই না আর কোন বোন-ভাগিনী এভাবে আকাল মৃত্যু পথে ধ্বংস হোক। প্রশাসনের নিকট এই হত্যার সুষ্ঠুভাবে তদন্ত করে দোষীকে শাস্তির দাবী জানান ফেইজবুক ব্যবহারকারীরা।

প্রসঙ্গত: পারিবারীক কলহ ও যৌতক না পাওয়ায় শ্বশুড়ালয়ের পাষন্ড স্বামী,দেবর,ভাসুর,শ্বাশুড়িসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে আঙ্গুল উঠছে হত্যাকান্ডের। এ নিয়ে নিহতের মা বাদী হয়ে দীঘিনালা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩ জনকে পুলিশ আটক করেছে বলে জানা গেছে। সোমবার দুপুরের এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। পরে তা আত্মহত্যা বলে অপপ্রচার চালিয়ে ঘটনার মুল রহস্য ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অভিযোগ উঠেছে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৫ এপ্রিল ২০১৬

Related posts