September 25, 2018

দামুড়হুদায় দুই বোনসহ নিখোঁজ ৪, এখনো পুলিশ সন্ধান মেলাতে পারেনি

শামসুজ্জোহা পলাশ,
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ
চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা হটাৎ পাড়া থেকে কিশোরী মাদ্রাসা ছাত্রী রেখা আক্তার (১৪) ও দোলন আক্তার (১৫) নামে মামাতো ফুফাত দুই বোন নিখোঁজ হয়েছে। নিখোঁজ দুই কিশোরী নাতনীর সন্ধান চেয়ে আবুল হোসেন (৫৫) দামুড়হুদা মডেল থানায় বুধবার সন্ধা ৭ টার দিকে একটি সাধারণ ডায়রী (জিডি) করেছেন।

এই নিয়ে ৪ দিনে মধ্যে দামুড়হুদায় ৩ ছাত্রী ও এক ছাত্র নিখোঁজ হলো। প্রতিটি ঘটনায় থানায় জিডি করা হলেও পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও ভূক্তভোগী কোন পরিবারকে আশার বানী শোনানো হয়নি।

নিখোঁজ দু’কিশোরী মধ্যে রেখা আক্তার দর্শনা হটাৎ পাড়ার আশরাফুল আলমের মেয়ে ও দর্শনা ফাজিল মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী এবং দোলন আক্তার একই গ্রামের ফরিদ ঢালির মেয়ে।

সাধারণ ডায়রী সূত্রে জানা যায়, দামুড়হুদার দর্শনা হটাৎ পাড়ার মৃত. এলাহী বক্সের ছেলে আবুল হোসেনের ছেলের মেয়ে রেখা আক্তার ও মেয়ের মেয়ে দোলন আক্তার। এরা দু’জনেই তাদের নানা-দাদা আবুল হোসেনের বাড়ি থেকে লেখা পড়া করত।

ডায়রীতে আবুল হোসেন উল্লেখ করেন, তার বাড়ী থেকে গত ১৭ জুলাই রাত সাড়ে ৮ টার দিকে দুই নাতনী বাড়ির সবার অজান্তে নিখোঁজ হয়ে যায়। তার পর থেকে নিকট আত্নীয় স্বজনসহ সম্ভাব্য সকল জায়গাই বহু খোঁজা খুঁজি করেও তাদের কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।

ডায়রীতে নাতনীদের বর্ণনা হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন মাদরাসা ছাত্রী রেখা আক্তারের গায়ের রং ফর্সা। ৪ ফুট ৫ ইি লম্বা। মাথায় বড় চুল আছে। মুখ মন্ডল লম্বা। পরনে সালোয়ার কামিজ আছে এবং দোলন আক্তারের বর্ণনা দের তার গায়ের রং শ্যামলা। ৪ ফুট ৫ ইি লম্বা। মাথায় বড় চুল আছে। মুখ মন্ডল গোলাকার। পরনে সালোয়ার কামিজ আছে।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু জিহাদ জানান, নিখোঁজ কিশোরীদের ডায়রী পেয়ে পুলিশ তাদের উদ্ধারে সকল কার্যক্রম শুরু করেছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ জুলাই এই দুই কিশোরী নিখোঁজ হওয়ার পর গত ২৯ জুলাই রাত ১০ টার দিকে দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদ চত্তরের বৃক্ষমেলা থেকে মাহাফুজুর রহমান সজিব (১৪) নামে এক স্কুল ছাত্র নিখোঁজ হয়।

এর পর দিন ৩০ জুলাই দামুড়হুদা আব্দুল ওয়াদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্রী কাদিপুর গ্রামের আশরাফুল হকের মেয়ে হাজেরা খাতুন সোহনা (১৬) নিজ বাড়ী থেকে কলেজে যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়।

Related posts