November 17, 2018

দখলের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ কামনা ইসরাইলি মানবাধিকার সংস্থার

ফিলিস্তিনিদের ভূমির উপর বসতি নির্মাণের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছে ইসরাইলের একটি মানবাধিকার গ্রুপ।
‘অধিকৃত অঞ্চলের জন্য হিউম্যান রাইটস ইন ইসরাইল ইনফরমেশন সেন্টার’ (বি’সেলেম) নামে মানবাধিকার গ্রুপটি জনবসতি নির্মাণের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করতে শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
এ আহ্বানের প্রতিক্রিয়ায় শনিবার বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ইসরাইলের বিরুদ্ধে ‘অপবাদের ধুয়া’ তোলার গ্রুপটির তীব্র সমালোচনা করেন।
নেতানিয়াহুর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় রবিবার বি’সেলেম বলেছে, ‘প্রধানমন্ত্রী ও তার অপবাদ অসদৃশ। আমরা বিশ্বাস করি ইসরাইলি জনগণ অধিগ্রহণ সম্পর্কে অর্থপূর্ণ আলোচনার যোগ্য।’
তারা আরো বলেন, ‘কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু’র কাছে ইসরাইলি জনগণের প্রশ্নের কোনো উত্তর নেই। তাই এর পরিবর্তে তিনি বি’সেলেমের সমালোচনা করছেন।’
এতে বলা হয়, ‘তার এ ধরনের সমালোচনা আমাদের কিংবা ইসরাইলের হাজার হাজার মানুষ যারা দখলের বিরোধিতা করছে; তাদেরকে নিবৃত্ত করতে পারবে না।’
শুক্রবার নিরাপত্তা পরিষদের একটি অনানুষ্ঠানিক অধিবেশনে মানবাধিকার সংস্থাটি যোগ দেয়। তাদের সঙ্গে আরো রয়েছে ‘শান্তির জন্য আমেরিকান বন্ধুরা’ নামে একটি সংগঠন; যেটি ইউএস অধিভুক্ত ইসরাইল বিরোধী একটি পর্যবেক্ষণ সংস্থা।

বি’সেলেমের নির্বাহী পরিচালক হাগাই এল-আদ
১৯৬৭ সালের যুদ্ধের ৫০তম বার্ষিকীর প্রাক্কালে বি’সেলেমের নির্বাহী পরিচালক হাগাই এল-আদ বৈঠকে বলেন, ‘ফিলিস্তিনিদের অধিকারের বিষয়টি অবশ্যই অনুধাবন করতে হবে। সেখানে চলমান দখল বন্ধ করতে হবে। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে এব্যাপারে অবশ্যই হস্তক্ষেপ করতে হবে এবং তা এখনই।’
গ্রুপটি ইসরাইলের বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা দাবি’ উত্থাপন করেছে দাবি করে শনিবার রাতে নেতানিয়াহু বলেন, ‘সংগঠনটিকে মানবাধিকারের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হবে।’
১৯৬৭ সালে মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধে গাজা উপদ্বীপসহ পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরাইল এবং পরে বসতি নির্মাণ শুরু করে।
প্রায় ২.৫ মিলিয়ন ফিলিস্তিনি ছাড়াও পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে বর্তমানে প্রায় ৬,০০,০০০ ইহুদি বাস করছেন।
ফিলিস্তিনিরা গাজাসহ এসব অধিকৃত অঞ্চলে তাদের ভবিষ্যত রাষ্ট্র নির্মাণের জন্য দাবি করে আসছে। রাষ্ট্রসত্তা হিসেবে ইসরাইলের এই বসতি নির্মাণকে তারা একটি বড় বাধা হিসেবে মনে করছেন। তাদের এ অবস্থানের প্রতি ব্যাপক আন্তর্জাতিক সমর্থনও রয়েছে।

এর আগে গত সপ্তাহে জেরুজালেমে পবিত্র স্থানের সঙ্গে ইহুদিদের সংযোগকে অস্বীকার করে জাতিসংঘের সাংস্কৃতিক সংস্থা ইউনেস্কো একটি রেজল্যুশন পাশ করে।
সূত্র: আলজাজিরা

Related posts