September 19, 2018

‘তেলের দাম কমছে সারাবিশ্বে আর আমাদের দেশে বাড়ছে ট্রেন ভাড়া ’

সারাবিশ্বে তেলের দাম কমছে আর এদিকে আমাদের এখানে ট্রেনের ভাড়া বাড়ছে বলে এমন মন্তব্য করেছেন সাইফুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার রাতে চ্যানেল আই এর মতিউর রহমান চৌধুরির উপস্থাপনায় আজকের সংবাপত্র অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সারা বিশ্বে যখন তেলের দাম কমছে তখন আমাদের দেশে তেলের দাম না কমিয়ে বরং ট্রেনের ভাড়া বৃদ্ধি করতে যাচ্ছে। সাধারণ মানুষের নিরাপদ ও শান্তিপ্রিয় যানবাহন হচ্ছে ট্রেন। ট্রেন সবার মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করলেও সেখানে কিন্তু একটুও বাড়েনি সেবার মান । সেবার মান বাড়া তো দূরের কথা দিন দিন সেবার মান পড়তির দিকেই যাচ্ছে। এ সমস্যা উত্তরণে এখুনি সরকারকে ট্রেনের এই অব্যবস্থার দিকে নজর দিতে হবে।

ট্রেনের ভাড়া ৭.৮ শতাংশ বৃদ্ধির প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর অনুমতি সাপেক্ষে আগামী মাস থেকে রেলের ভাড়া বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছেন রেলসচিব ফিরোজ সালাউদ্দিন। এক্ষেত্রে ৭ দশমিক ৮ ভাগ হারে বাড়তে পারে রেলের ভাড়া।
বৃহস্পতিবার দুপুরে রেলভবনে ওয়াইফাই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য দেন রেলসচিব। এর আগে রেলভবনে ওয়াইফাই সিস্টেমের উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে রেলসচিব বলেন, রেলকে লোকসানের হাত থেকে রক্ষা করতেই এই ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ হয়েছে। তার (প্রধানমন্ত্রী) পরামর্শেই এই ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে।
সচিব বলেন, এতে সর্বনিম্ন ভাড়া বাড়বে পাঁচ টাকা আর ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের ট্রেনে শোভন শ্রেণির ভাড়া ৪৫ টাকার মতো বাড়তে পারে। এখন থেকে প্রতি বছরই রেলের ভাড়া সমন্বয় করা হবে। তবে জ্বালানি তেলের দাম না বাড়লে কখনোই তা সাড়ে ৭ শতাংশের বেশি হবে না।

পরে রেলের ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। তিনি অনুমোদন দিলেই বিষয়টি আগামী মাস থেকে কার্যকর হবে।

তিনি আরো বলেন, ভাড়া বাড়লেও তা সহনশীল পর্যায়ে থাকবে। বিশেষ করে নিম্নবিত্ত যাত্রীদের কথা চিন্তা করে ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এখন প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।

এর আগে দুপুর দেড়টায় রেল ভবনে ওয়াইফাই সার্ভিসের উদ্বোধনের ঘোষণা দেন রেলমন্ত্রী। এ সময় রেলসচিবসহ রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় রেলমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের অন্যতম লক্ষ্য ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া। তথ্যপ্রযুক্তির ক্রমবর্ধমান ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন সরকারি ও সহযোগী প্রতিষ্ঠানে ব্যবস্থাপনা এবং সেবা প্রদানে ব্যাপক উৎকর্ষ সাধিত হচ্ছে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ইতোমধ্যে রেলওয়ের ৬২টি বড় স্টেশনে কম্পিউটারাইজড টিকেটিং ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে। কমলাপুর, ঢাকা বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী ও খুলনা রেল স্টেশনে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট অনলাইনে ক্রয় করতে পারছেন যাত্রীরা।

প্রসঙ্গত, ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে গত মঙ্গলবার রেল মন্ত্রণালয়কে ট্রেনের ভাড়া বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছিল সংসদীয় কমিটি।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/মেহেদি/ডেরি

Related posts