September 25, 2018

তুরস্কে সেনা অভ্যুথানে বিশ্ব নেতারা কি বললেন?

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্কঃ  তুরস্কে সেনা অভ্যূত্থানের ঘটনায় নিজ নিজ অবস্থান জানাতে শুরু করেছেন বিশ্ব নেতারা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তুরস্কের ‘গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারের’ পক্ষ নিয়েছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ। তুরস্কের অভ্যুত্থান মোকাবেলায় সাহায্যের প্রস্তাবও দিয়েছে দেশটি।

তুরস্কের সব রাজনৈতিক দলেরও ওই সরকারকেই সমর্থন দেয়া উচিৎ বলে মনে করে যুক্তরাষ্ট্র। তুরস্ক নিয়ে আলোচনার পর ওবামা-কেরি বলেন, সবগুলো পক্ষেরই সংযম দেখিয়ে যে কোনো ধরণের সংঘাত ও রক্তপাত থেকে দূরে থাকা প্রয়োজন। তুরস্কের পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন রাশিয়া সফররত জন কেরি।

তুরস্কের অভ্যুত্থান মোকাবেলায় সাহায্যের প্রস্তাবও দিয়েছে দেশটি। এছাড়াও দেশটিতে অবস্থানরত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে এবং সাবধান থাকতে বলেছে সরকার।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সার্গেই লাভরভও কেরির মতো সব ধরণের ‘রক্তপাত’ এড়িয়ে যাওয়ার ওপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, সংবিধান অনুসারেই তুরস্কে সৃষ্টি হওয়া এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। এ ঘটনায় ‘গভীর উদ্বেগ’ প্রকাশ করে ক্রেমলিন মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকোভ বলেন, রাশিয়ার মূল চিন্তা এখন তুরস্কে থাকা রুশ প্রতিষ্ঠান এবং নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

তুরস্কে যা-ই হোক না কেন, তা যেন আইনানুগ নিষ্পত্তি হয় এবং তুরস্ক আগের মতো স্থিতিশীল ও সুশৃঙ্খল অবস্থায় ফিরে আসতে পারে, এ কামনা করেন পেসকোভ।

জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুনের পক্ষ থেকে এক মুখপাত্র জানান, বান কি মুন তুরস্ক পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন এবং ঘটনা সম্পর্কে সুস্পষ্ট তথ্যের অপেক্ষায় রয়েছেন। দেশটিতে শান্তি প্রতিষ্ঠারও আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব।

ন্যাটো মহাসচিব জেনস স্টোলটেনবার্গ তুরস্ককে ‘মূল্যবান ন্যাটো সদস্য’ উল্লেখ করে ‘শান্ত, সংযত এবং দেশটির গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি সম্মানজনক পরিস্থিতি’র আহ্বান জানিয়েছেন।

যুক্তরাজ্যের নবনিযুক্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী বোরিস জনসন ‘তীব্র উৎকণ্ঠা’ প্রকাশ করে তুরস্কে অবস্থানরত সব ব্রিটিশ নাগরিককে নিরাপদ স্থানে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের মুখপাত্র বলেছেন, ‘তুরস্কের গণতান্ত্রিক শৃঙ্খলাকে অবশ্যই শ্রদ্ধা করা জরুরি।’

এছাড়াও ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ইরান কাতার তুরস্কে অভ্যূত্থান প্রচেষ্টার তীব্র নিন্দা ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বুলগেরিয়া-তুরস্ক সীমান্তে অতিরিক্ত নিরাপত্তার জন্য টহলবাহিনী মোতায়েন করেছে বুলগেরিয়া। প্রতিবেশী দেশে আপাতত ভ্রমণ না করতেই নাগরিকদের পরামর্শ দিয়েছে দেশটি।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ১৬/০৭/২০১৬

Related posts