September 21, 2018

তিস্তার বন্যার ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্হ পরিবার গুলোর মাঝে ত্রান বিতরন

মহিনুল ইসলাম সুজন,
নীলফামারী প্রতিনিধিঃ
তিস্তা নদীর বন্যায় ভাঙ্গনের কবলিত এলাকা পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্থ্য পরিবারগুলো মাঝে ত্রান বিতরন করা হয়েছে।

ত্রান বিতরনে উপস্হিত থেকে বিতরন করেছেন রবিবার বিকালে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক গিয়াস উদ্দিন আহম্মদ। এ সময় তার সাথে ছিলেন জেলা প্রশাসক জাকীর হোসেন, জেলা ত্রান কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম, ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম, পি আই ও নায়মা তাবাসুচ্ছুম শাহ,একটিবাড়ি একটি খামার প্রকল্পের কর্মকর্তা-রুমি ইসলাম, টেপাখড়িবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম শাহীন, খগাখড়িবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম লিথনসহ অনেকেই।

নৌকাযোগে ত্রান বিতরনকারীরা তিস্তা নদীর চরখাড়িবাড়ি পূর্বখড়িবাড়ি মৌজার ১১টি গ্রাম ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং নদী ভাঙ্গনে বন্যা কবলিত মানুষজনের খোঁজখবর নেন। পরিদর্শন শেষে তারা তিস্তা বাঁধে আশ্রিত ১ হাজার ৮৩৫ পরিবারের মাঝে এই ত্রান বিতরন করেন।

তিস্তা নদী ভাঙ্গনে বসতভিটা হারানো তিস্তার বাঁধে আশ্রিত ১ হাজার ৪৭৫ পরিবারেরর মাঝে ১৫ কেজি করে চাল ও নগদ ৫০০ করে টাকা, বন্যার পানিতে ঘরবাড়ি তলিয়ে থাকা ৩৬০ পরিবারকে ১০ কেজি করে চাল ও নগদ ৫০০ টাকা করে প্রদান করা হয়।

উপজেলা ত্রান শাখার তথ্য জানা হেছে, ত্রান মন্ত্রনালয়ের প্রেরিত তৃতীয় দফায় এই চাল ও নগদ অর্থ বিতরন করা হলো। এর আগে দুই দফায় প্যাকেজ ত্রান হিসাবে চাল ৫ কেজি, সোয়াবিন তেল এক লিটার, এক কেজি করে মুসুলডাল, চিনি, চিড়া ও মুড়ি, ১২টি করে মোমবাতি ও দিয়াশালাই এবং খয়রাতি হিসবে ২০ কেজি করে চাল ও নগদ ৫০০ টাকা করে বিতরন করা হয়েছিল।

Related posts