March 23, 2019

তাদের কোনো আয় নেই

69136দ্যা গ্লোবালনিউজ২৪ :: তাঁরা তিনজনই এবারের নির্বাচনে সংসদ সদস্য প্রার্থী। তবে তাদের নিজস্ব কোনো আয় নেই। অন্যের টাকায় নির্বাচন করতে চান তাঁরা।

সিলেট-১ আসনে (সিটি করপোরেশন ও সদর) বাসদ (মার্কসবাদী) মনোনীত প্রার্থী উজ্জ্বল রায়, সিলেট-২ আসনে (বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর) বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মদ আবরার ইলিয়াস (বিএনপি) ও গণফোরামের মনোনীত প্রার্থী মোকাব্বির খানের কোনো আয় নেই বলে উল্লেখ করেছেন হলফনামায়।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে সিলেটের ছয়টি সংসদীয় আসনে মোট মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন ৬৭ জন প্রার্থী। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বিভিন্ন ত্রুটির কারণে ১৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

মনোনয়ন বাছাইয়ে তাদের মধ্যে টিকে যাওয়া ৫২ জনের মধ্যে এই তিন প্রার্থীর কোনো আয় নেই।

পেশা সার্বক্ষণিক রাজনৈতিক কর্মী উল্লেখ করে ইসিতে দাখিলকৃত হলফনামায় উজ্জল রায় অস্থাবর সম্পদ হিসেবে দেখিয়েছেন, এফডিআর হিসেবে সোনালী ব্যাংকে রাখা রয়েছে তাঁর ২ লাখ টাকা। এছাড়া রয়েছে ১০ ভরি স্বর্ণ আর আনুমআনিক মূল্য তিনি উল্লেখ করেছেন ৫ লক্ষ্য টাকা, ঘরের আসবাবপত্র বাবদ তার রয়েছে (১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা), নিজের একটি মোটরসাইকেল রয়েছে যার মূল্য ১ লক্ষ টাকা। আর স্থাবর সম্পত্তি হিসেবে বাসদের এ প্রার্থী দেখিয়েছেন ৪০ হাজার টাকা।

এদিকে সিলেট-২ আসনে নিখোঁজ এম ইলিয়াস আলীর পুত্র বিএনপির প্রার্থী মোহাম্মদ আবরার ইলিয়াস পেশার জায়গায় লিখেছেন নির্ভরশীল। তার অস্থাবর সম্পত্তি হিসেবে তিনি নগদ ২০ হাজার টাকা, ব্যাংকে জমা বাবদ দেখিয়েছেন ১৬ হাজার এবং তার স্থাবর সম্পত্তি হিসেবে তিনি দেখিয়েছেন ৩ লক্ষ ৪২ হাজার টাকা।

অন্যদিকে পেশার জায়গায় বিদেশে ব্যবসা রয়েছে উল্লেখ করে নিজের হলফ নামায় গণফোরামের প্রার্থী মোকাব্বির খান নগদ অস্থাবর সম্পত্তি হিসেবে দেখিয়েছেন নগদ ৫০ হাজার টাকা ও ব্যাংকে জমা রাখা আছেন আরো ৫০ হাজার টাকা। এদিকে নিজ ঘরের আসবাব পত্র বাবদ তিনি দেখিয়েছেন ২ লক্ষ টাকা। আর তার স্থাবর সম্পদের পরিমাণ যৌথ মালিকানায় ৪ বিঘা কৃষি জমি ও একটি বাড়ী।

Related posts