September 22, 2018

তবুও বাংলাদেশই ফেভারিট

Bangladesh Cricket Team

আজ শুক্রবার মিরপুরে বিকাল পাঁচটায় শুরু হতে যাওয়া দুই ম্যাচের সিরিজেও তাই এগিয়ে বাংলাদেশই। তবে দলের সেরা কয়েকজন খেলোয়াড়ের অনুপস্থিতি আর এই ফরম্যাটে অতীত পরিসংখ্যান বলছে, ওয়ানডের মতো অনায়াস জয় না ও আসতে পারে এখানে।

টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটে বলে দলের সেরা খেলোয়াড় সাকিব। বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার ছুটিতে আছেন আমেরিকায়। সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও জানালেন, সাকিবের অনুপস্থিতি পূরণ করা কঠিন হবে।

সাকিবের সঙ্গে থাকছেন না টি-টোয়েন্টির বড় ভরসা ওপেনার সৌম্য সরকারও। চোটের কারণে বেশ কিছুদিন ধরেই দলের বাইরে দুই পেসার তাসকিন আহমেদ এবং রুবেল হোসেন। তাদের অভাব পূরণ করে সঠিক কম্বিনেশন খুঁজে বের করাকেই আজ বাংলাদেশের জন্য মূল চ্যালেঞ্জ হিসেবে মনে করছেন মাশরাফি।

তিনি বলেন, সাকিব সব সময়ই আমাদের হয়ে পারফর্ম করে। বহুদিন ধরেই এটা সে করে আসছে। তাকে রেখে একাদশ সাজানো সবসময়ই কঠিন। সৌম্যর কথা যদি ধরেন, দেখবেন সম্প্রতি সে যেভাবে খেলছে তাতে সে অনেকটা অটোমেটিক চয়েজ। রুবেল-তাসকিনরাও আছেন তাদের সেরা সময়ে। এমন সব খেলোয়াড়কে বাইরে রেখে আপনি কিভাবে দল সাজাবেন সেটাই আসলে গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া টি-টোয়েন্টিতে যে কোন সময়ই খেলার মোড় ঘুরে যেতে পারে। সব মিলে তাই চ্যালেঞ্জ হচ্ছে সঠিক কম্বিনেশনটা খুঁজে বের করা। সঙ্গে জয়টা তো আছেই।

তবে একই সঙ্গে মাশরাফি জানালেন, ওয়ানডে সিরিজের আত্মবিশ্বাস দলকে মানসিকভাবে শক্তিশালী করে তুলবে। তিনি বলেন, ‘এখানে আপনাকে সব সময়ই আক্রমণে থাকতে হয়, রক্ষণের সুযোগ কম। হঠাত্ করে একটা-দুইটা উইকেট পরে গেলে খেলা পাল্টে যেতে পারে। তাই পার্থক্য কমে আসে। কিন্তু এগুলো আসলে নেতিবাচক চিন্তা। ওয়ানডেতে আমরা তিনটা ম্যাচ জিতেছি। তাই আত্মবিশ্বাসী থাকবে সবাই। যদি এই আত্মবিশ্বাসটা মাঠে ব্যবহার করতে পারি তাহলে ফলাফল আমাদের পক্ষেই আসবে।’

ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম আসরে প্রায় নয় বছর পাড় করে ফেললেও এখনো পায়ের নিচে মাটি খুঁজে পায়নি বাংলাদেশ। ৪৪টি ম্যাচ খেলে জিততে পেরেছে মাত্র ১২টি।

তবে মাশরাফি আশাবাদী হতে পারেন জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে অতীতে মুখোমুখি হওয়ার পরিসংখ্যানে। তাদের বিরুদ্ধে ২০০৬ সালে জয়ের মাধ্যমেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ। এরপর তাদের মাটিতে ২০১৩ সালে দুই ম্যাচ সিরিজ বাংলাদেশ ড্র করে ১-১ এ।

আর ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করে পাওয়া আত্মবিশ্বাস সঙ্গী হচ্ছে টি-টোয়েন্টিতেও।

Related posts