November 15, 2018

ঢাকার ১৪ স্পটে ১৪ দলের মানববন্ধন

171
যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রসঙ্গে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের ‘উলঙ্গ’ হস্তক্ষেপ ও মুক্তিযুদ্ধকে ‘অবমাননা’ করে খালেদা জিয়াসহ বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের প্রতিবাদে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি সোমবার ঢাকার ১৪টি স্পটে মানববন্ধন পালন করবে ১৪ দল।

বিকেল ৪টা থেকে ৫টা পর্যন্ত ঢাকার গাবতলী, রাসেল স্কয়ার, বসুন্ধরা সিটি, হোটেল সোনারগাঁ, শাহবাগ, মৎস্যভবন, পল্টন জিরো পয়েন্ট, ইত্তেফাক মোড়, হাটখোলা, সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল ও যাত্রাবাড়ী এলাকায় ১৪ দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে এ কর্মসূচি পালিত হবে।

বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর ১৪ দলের এক বৈঠকে এমন ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেন, পাকিস্তান ও বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র করছে। তাই মানববন্ধনে দেশবাসীকে অংশ নিয়ে, বিশ্বকে এটি দেখিয়ে দিতে হবে যে; বাংলার মানুষ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এসব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে প্রস্তুত আছে।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সামনে আরও কর্মসূচি প্রদানের ইঙ্গিত দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম আরও বলেন, ‘নির্বাচনে বিজয়ী হতে হলে আমাদের এ ধরনের কর্মসূচি দিয়ে যেতেই হবে। আগামীতে আমরা আরও কর্মসূচি দিয়ে মাঠে থেকে আমাদের জোটের বিজয়ে কাজ করবো।’

পাকিস্তানের সঙ্গে সাম্প্রতিক ‘বৈরী’ সম্পর্কের বিষয়ে আওয়ামী লীগের এ সভাপতিমন্ডলীর সদস্য বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তখন একাত্তরের রণাঙ্গনের পরাজিত পাকিস্তান আমাদের দেশবিরোধী বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে। তারা গতকাল আমাদের রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে, এগুলো ধৃষ্টতাপূর্ণ।’

‘পাকিস্তান এ ধরনের কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখলে তাদের সাথে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক নতুন করে ভাবতে হবে’ বলে যোগ করেন তিনি। এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘আপনার দলকে আমরা ধ্বংস করতে চাই না। আপনি নিজেই নিজের দলকে ধ্বংস করে দিচ্ছেন। ভালোভাবে রাজনীতি করুন। এই পথ পরিহার করুন। আপনি যদি এভাবে দেশবিরোধী বিভিন্ন বক্তব্য ও কর্মকাণ্ড করতে থাকেন, তাহলে আপনার দল এমনিতেই ধ্বংসের প্রান্তে চলে যাবে।’

খালেদার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘এসব কর্মকাণ্ড বন্ধ করে ২০১৯ সালের নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হন। সে নির্বাচনেই আপনাদের সাথে আমাদের লড়াই হবে। সে লড়াইয়ে আপনাদের আমরা পরাজিত করবো।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, দেশে স্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। গণতান্ত্রিকভাবে, রাজনৈতিকভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ভোটের মাঠে শেখ হাসিনার কাছে পরাজিত হয়ে এখন সবাই মাঠে লড়াই করছে।

সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন মায়া বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত দেশে বসে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি করছে। তাই তাদের এদেশে থাকার অধিকার নেই। এসকল অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য সরকারকে আমরা অনুরোধ করছি।’

এর আগে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, গণতান্ত্রিক পার্টির সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, জাসদের ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক মীর হোসেন আখতার, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুকুল চৌধুরী প্রমুখ।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts