September 22, 2018

ডোমার পৌরসভার ভোট গ্রহন শেষ, চলছে গগনার কাজ

ফাইল ছবি।

নীলফামারী প্রতিনিধিঃ দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া আজ রবিবার অবাধ সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্নভাবে অনুষ্ঠিত হলো নীলফামারীর ডোমার পৌরসভার নির্বাচনের ভোট গ্রহন। ভোট গ্রহন শেষে এখন চলছে ভোট গগনা। সকাল আটটা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলে বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহন।

ভোট গ্রহন শুরুর পর ভোট কেন্দ্রের বুথের সামনে পুরুষ ভোটারদের চেয়ে নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটারদের উপস্থিতি সন্তোষজনক যা লক্ষণীয়। ৯টি ভোট কেন্দ্রে বুথের সংখ্যা বেশী থাকায় খুব দ্রুত ভাবে ভোটাররা তাদের ভোট প্রদান করতে পারে। নির্বাচনের রির্টানীং অফিসার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জিলহাস উদ্দিন বলেন এবার ৯টি কেন্দ্রে ৪৩টি বুথ রাখা হয়। ফলে ভোটাররা সহজে কম সময়ের মধ্যে তাদের ভোট প্রদান করতে সক্ষম হয়।

সকাল থেকেই বিভিন্ন ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক জাকীর হোসেন ও পুলিশ সুপার জাকির হোসেন খান। পুলিশ ,বিজিবি ও র‌্যাবের কঠোরতায় ভোট কেন্দ্রের ভেতরে কেউ কোন হাঙ্গামা করতে পারেনি। তবে ভোট কেন্দ্রের বাহিরে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটে।

এক নম্বর ওয়াডের ডোমার সরকারি ডিগ্রি কলেজ ভোট কেন্দ্রে সকাল তখন পনে ১১টা। ভোট কেন্দ্রের বাহিরে বেশ কিছু যুবক ভোটারদের বিভ্রান্তি করতে হট্টগোল করার অপচেস্টা চালায়। আর এতেই বাঁধে প্রতিবাদের ঝড়। সাধারন ভোটারদের ধাওয়া খেয়ে বেশ কিছু পালিয়ে গেলেও আটক হয় দুইজন। তাদের পুলিশে হাতে তুলে দেয়া হয়। আটক দুই যুবক হলো কাজীপাড়া মহল্লার আব্দুর গফ্ফারের ছেলে মাসুদ রানা (২৮) ও পশ্চিম চিকনমাটি গ্রামের আব্দুর গনির ছেলে গোলাম রব্বানী (৩৩)। অপর দিকে আট নম্বর ওয়াডের চিকনমাটি দুই নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রের অদুরে বেলা সোয়া তিনটার দিকে বেশ কিছু যুবক আতংক সৃস্টির জন্য ৪/৫টি ককটেল বিস্ফোরন ঘটিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় এলাকাবাসী ধাওয়া করে বসতপাড়া মহল্লার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে আব্দুস সালামকে (৩৫) আটক করে পুলিশে দেয়। তবে এসব বিচ্ছিন্ন ঘটনায় ভোট গ্রহনে কোন সমস্যা সৃস্টি করতে পারেনি বলে জানালেন ডোমার থানার ওসি ।

আট নম্বর ওয়াডের চিকনমাটি দুই নম্বর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটার তৈয়বর রহমান বললেন ভোটতো ভাল ভাবেই হলো। আমার ভোট আমি দেখে শুনে বুঝে দিয়েছি। তিনি বলেন বুথের সংখ্যা বেশী থাকায় সহজে ভোট প্রদান করা গেছে। দীর্ঘক্ষন অপেক্ষা করতে হয়নি।
এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার ডোমার সরকারি কলেজের প্রভাষক মিজানুর রহমান জানালেন কেন্দ্রের ভেতরে কোন সমস্যা হয়নি। সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্নভাবে ভোটগ্রহন সম্পন্ন করা করা হয় বিকাল ৪টায়।

ওই কেন্দ্রের বাহিরে এ নিয়ে গুজব ছড়িয়ে পড়ে পুলিশ চার রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়েছে। এ ব্যাপারে উক্ত প্রিজাইডিং অফিসার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর এটি চতুর্থ নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে ৪ জন মেয়র , তিনটি সংরক্ষিত আসনে ১০ জন নারী ও ৯টি ওয়াডে ২২ জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করেন। মেয়র পদে ৪ প্রার্থী হলেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন স¤পাদক ময়নুল হক(নৌকা) স্বতন্ত্র হিসাবে ডোমার পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি মনছুরুল ইসলাম দানু(নারিকেল গাছ), সাবেক প্রধান শিক আবু সুফিয়ান লেবু(মোবাইল ফোন) ও উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমীর কাজী আবু জাফর বাবলু (জগ)। এ পৌরসভায় ৫ হাজার ৮৮০ জন পুরুষ ও ৬ হাজার ৩৭ জন মহিলা ভোটারসহ মোট ১১ হাজার ৯১৭ জন ভোটার।

সুত্রমতে, পৌরসভার ৪নম্বর ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় সৈয়দ শফিক বিন মোর্শেদ তরুন নির্বাচিত হওয়ায় ওই ওয়াডে কাউন্সিলর পদে ভোট গ্রহন হয়নি।

এদিকে প্রতিদ্বন্দি চার মেয়র প্রার্থীরা তাদের তাৎক্ষনিক প্রক্রিয়ায় গনমাধ্যমকে বলেন সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্নভাবে ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ডোমার থানার ওসি আহমেদ রাজিউর রাহমান রাজু বলেন, অবাধ,সুষ্ঠু নিরপক্ষ দৃস্টিতে শান্তিপূর্নভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts