September 25, 2018

ডেনিশ ব্যবসায়ীদের বা’দেশে বিনোয়োগের আহবান রাষ্ট্রদূতের

২ এপ্রিল, ২০১৬, স্টাফ রিপোর্ট, কোপেনহাগেনঃ যথাযথ উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ডেনমার্কে বাংলাদেশের ৪৫তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। কোপেনহাগেনে নবপ্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ দূতাবাস পহেলা এপ্রিল সন্ধ্যায় স্থানীয় ঐতিহ্যবাহী ‘বাইনিনসকুলটরেন’ হলে দিবসটি উপলক্ষ্যে অভ্যর্থনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ঐ অনুষ্ঠানে ডেনমার্কের পররাষ্ট্রসহ অন্যান্য দপ্তরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, চল্লিশের অধিক রাষ্ট্রদূত, চার্জ দ্যা এফেয়ার্স, কূটনীতিক, সংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, শিক্ষাবিদ ও প্রবাসী বাংলাদেশীসহ বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার গুরুত্বপূর্ন ব্যক্তিবর্গসহ দুশতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

দুদেশের জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ আব্দুল মুহিত তাঁর শুভেচ্ছায় বত্তৃতায় স্বাধীন বাংলার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মত্যাগকারী সকল শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি তাঁর বক্তৃতায় ডেনমার্কে দুতাবাস খোলার উদ্দেশ্যর কথা উল্লেখ করে ডেনিশ ব্যবসায়ীদের প্রতি বাংলাদেশী তৈরী পোষাক, জাহাজ নির্মাণ, ঔষধশিল্প, সিরামিক, আইটিসহ বিভিন্নখাতে বানিজ্য প্রসারের আহবান জানান। তিনি ডেনিশ বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য জ্বালানীখাতে বিনোয়োগের আহবান জানান। তিনি মন্তব্য করেন যে, আ লিক বানিজ্যের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থানের অপার সম্ভাবনা বিবেচনায় বাংলাদেশে বিনিয়োগের মাধ্যমে ডেনিশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো লাভবান হতে পারে।

অনুষ্ঠানে এশিয়া-নরডিক গ্রুপের প্রধান নির্বাহী বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূতের হাতে বাংলাদেশে তৈরী এবং ডেনমার্কে বাজারজাতকৃত বাইসাইকেল, ‘বি-ফেয়ার’ উপহার হিসেবে তুলে দেন। পরে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ প্রবাসী বাংলাদেশী শিল্পীদের অংশগ্রহনে আয়োজিত একটি মনোজ্ঞ সাংস্বৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। সান্ধ্যভোজে দূতাবাসের আয়োজনে মুখোরোচক দেশী খাবার পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠনে উপস্থিত সকল অতিথিদের মাঝে বাংলাদেশে তৈরী পাটের ব্যাগে বাংলাদেশী চা উপহার দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কর্ণারে বাংলাদেশী হস্তশিল্প, মসলিন, জামদানী, সিরমিক, জুয়েলারীসহ বিভিন্ন পন্য প্রদর্শিত হয়।

উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে ২৬ মার্চ সকালে দূতাবাসে আনুষ্ঠানিক কর্মসূচীর উদ্বোধন পালন করা হয়।

Related posts