September 23, 2018

ডেকে এনে খুন, ঘটনার ৫ দিন পরও আসামী গ্রেফতার হয়নি

এম লুৎফর রহমান
নরসিংদী প্রতিনিধিঃ
নরসিংদী শহরের পশ্চিমকান্দা পাড়ার কাজল রানী দাসের ছেলে হৃদয় দাস (৩০)কে নরসিংদী থেকে ডেকে নিয়ে নারায়গঞ্জের রূপগঞ্জ থানার ইছাপুরা বাজারে খাবারের সাথে বিষ প্রয়োগ করে হত্যা করা হয়েছে বলে গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৬ আগস্ট সকালে। অথচ হত্যাকান্ডের ৫ দিন গত হবার পরও রূপগঞ্জ থানার পুলিশ এখনো পর্যন্ত কোনো আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

নিহত হৃদয়ের বাবা নন্দলাল দাস জানান, পূর্ব শত্র“তার জের হিসেবে তার ছেলে হৃদয়কে শ্বশুর বাড়ীর লোকজনের প্ররোচনায় হৃদয়ের ভায়রা ভাই রূপগঞ্জের ইছাপুরা গ্রামের ননী গোপাল দাসের ছেলে হরিদাসসহ অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তরলজাতিয় পদার্থের সাথে বিষ প্রয়োগ করে এবং উহা তাকে খাইয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে।

ঘটনার দিন তিনি অন্য লোকদের মাধ্যমে খবর পেয়ে সেখানে যান। সেখানে গিয়ে দেখেন ইছাপুরা বাজারে জজ মিয়ার কলার দোকানের সামনে তার ছেলের লাশ পড়ে আছে। পরে তিনি রুপগঞ্জ থানাকে এ ঘটনা জানালে থানা হতে পুলিশ এসে হৃদয়ের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়গঞ্জ সরকারী হাসপাতাল মর্গে পাঠান। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করা হয়েছে। (মামলা নং ৩৮)। তারিখ ১৮/৮/১৬।

হৃদয়ের বাবা নন্দলাল জানান, ৩/৪ বছর পূর্বে ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর থানার আইয়ূবপুর গ্রামের মৃত মন্টু চন্দ্র দাসের মেয়ে বেবী রানী দাসের সহিত তার ছেলের বিয়ে হয়। নিরব নামে এক বছর দুই মাস বয়সের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে হৃদয়ের। বিবাহের পর হতে হৃদয়ের সাথে তার স্ত্রী বেবীর প্রায়ই মনমালিন্য চলে আসছিল। এরই জের ধরে প্রায় ৬ মাস পূর্বে বেবী রানি দাস গায়ে কেরোসিন তেল ডালিয়া আগুন লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। এই কারণে আমার ছেলের শ্বশুর বাড়ীর লোকজন তার সাথে শত্র“তা পোষণ করে আসিতেছিল।

গত ১৫ আগস্ট রাতে আমার ছেলেকে তার ভায়রা হরিদাস ফোন করিয়া বলে যে তোর ছেলে নিরব আমার বাসায় আছে। সে তোকে দেখতে চাচ্ছে। তুই এসে তাকে দেখে যা। এই কথায় হৃদয় তার ছেলে নিরবকে দেখার জন্য গত ১৬ আগস্ট ভোর অনুমান ৮ ঘটিকার সময় নরসিংদী থেকে ইছাপুরা গ্রামে হরিদাসের বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। বেলা অনুমান দুই ঘটিকায় আমার ভায়রা ভাইয়ের ছেলে বাপ্পী আমাকে বাসায় আসিয়া সংবাদ দেয় যে আমার ছেলে হৃদয় ইছাপুরা বাজারে মারা গেছে। আমি আমার আত্মীয় স্বজনদের নিয়া ইছাপুরা বাজারে গিয়া উল্লেখিত স্থানে হৃদয়ের লাশ দেখিতে পায়।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts