November 19, 2018

ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ৪ লাখ টাকা ছিনতাই, মাইক্রোসহ গ্রেফতার ২

জাহিদুর রহমান
ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ডিবি পুলিশ পরিচয়ে ঝিনাইদহের এক পাট ব্যাবসায়ীর চার লাখ টাকা ছিনতাই করে পালানোর সময় একটি হাইয়েজ মাইক্রোবাসসহ মিঠু ও ওয়াজিবুল্লাহ নামে দুই ছিনতাইকারীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

ঝিনাইদহ শহরের আরাপপুর থেকে মঙ্গলবার বিকালে তাদের আটক করা হলেও পুলিশ লুন্ঠিত টাকা পায়নি বলে দাবী করেছে। সরেজমিনে জানা গেছে, ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কালীচরণপুর গ্রামের খলিলুর রহমান ( ৫২) ও সোহাগ ( ৩৬ ) নামে দুই পাট ব্যবসায়ী মাগুরা ইসলামী ব্যাংক থেকে চার লাখ টাকার ৯টি বান্ডিল নিয়ে ঝিনাইদহের গোপালপুরে ফিরছিলো।

পথিমধ্যে মাগুরার লাউদিয়া এলাকায় পৌছালে দাড়ানো সাদা মাইক্রোবাসে থাকা ৬/৭ জন নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে খলিল ও সোহাগকে গতিরোধ করে তার কাছে থাকা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে ঝিনাইদহের দিকে পালিয়ে আসে।

খবর পেয়ে মাগুরা পুলিশ হাইয়েজ মাইক্রোবাসটি ( যার নং ঢাকা মেট্রো-চ-১৬-০৭১২) গতিরোধ করার চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়ে ঝিনাইদহ পুলিশকে জানায়। মঙ্গলবার বিকালে ঝিনাইদহ শহরের আরাপপুরে পুলিশ গাড়িটি গতিরোধ করে মাদারীপুরের মিঠু ও ভোলার ওয়াজিবুল্লাহ নামে দুই ছিনতাইকারীকে আটক করতে সমর্থ হয়।

গড়িতে অস্ত্র, হ্যন্ডকাপ,ড্রাইভিং লাইসেন্স,২টি পেনড্রাইভ,৩টি মোবাইল ফোন,নগদ ১৩০০ টাকা ও ১টি ওয়াকিটকি নিয়ে আরো ৬/৭ জন ছিল। পুলিশ গাড়ি থামানোর পরে তারা আগেভাগে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ সহকারি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) গোপিনাথ কানজিলাল সাংবাদিকদের জানান, ছিনতাইকারী চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আশা করা যায় ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

তিনি আরো জানান, লুন্ঠিত টাকা উদ্ধার সম্ভব হয়নি। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বাকী ছিনতাইকারীরা লুন্ঠিত টাকা নিয়ে পথের মধ্যে নেমে পালিয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আরও খবর…………।

শৈলকুপায় সংখ্যালঘুর উপর সন্ত্রাসী হামলা, আহতরা হাসপাতালে

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ধলা (৩০) নামে এক সংখ্যালঘু সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের লক্ষিপুর গ্রামে। আহত ধলা লক্ষিপুর গ্রামের দিনেশ সাহার ছেলে।

এলাকাবাসী জানায়, সোমবার রাত ৯টার দিকে ধলা লক্ষিপুর বাজারে বসে ছিলো। এসময় অতর্কিতভাবে তামিনগর গ্রামের আমদ আলীর ছেলে সন্ত্রাসী উজ্জল লোকজন নিয়ে ধলার উপর হামলা চালিয়ে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম জানান, সংখ্যালঘু হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Related posts