September 23, 2018

ডিপোর্ট হচ্ছেন শত শত বাংলাদেশী!


হাকিকুল ইসলাম খোকন
বিশেষ সংবাদদাতাঃ
নিউইয়র্ক ও ঢাকাঃ কাগজপত্রবিহীন শত শত বাংলাদেশিকে দেশে ফেরত পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। ইতোমধ্যে ২২০ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে কূটনৈতিক পত্র পাঠিয়েছে ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস। ওই পত্রে ভাড়া করা বিমানে করে ছয় ধাপে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ‘অবৈধভাবে’ বসবাসকারী বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানোর বিষয়টি উল্লেখ করা হয়। মার্কিন দূতাবাসের এ নোট ভারবাল পেয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে।

ওই চিঠিতে অবৈধ বাংলাদেশিদের প্রত্যাবাসনে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রস্তাবগুলোর বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুচিন্তিত মতামত দিতে বলা হয়েছে। দুয়েক দিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাদের মতামত পাঠাতে যাচ্ছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাদের মতামতে বলেছে, নাগরিকত্বের বিষয়টি সুরাহা হওয়ার আগে প্রত্যাবাসন কার্যক্রম শুরু করা ঠিক হবে না। প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্র সরকার ২৭ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠায়। এসব বাংলাদেশির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে অনুপ্রবেশের অভিযোগ ছিল।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৬ই এপ্রিল ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস কূটনৈতিক পত্র নং-ডি১-১০৪৪৩-এর মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধভাবে অবস্থানকারী বাংলাদেশিদের স্বদেশে প্রত্যাবাসনের বিষয়টি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানায়। এরপর ১৭ই এপ্রিল বিষয়টি সম্পর্কে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানায় তারা। মার্কিন দূতাবাস প্রত্যাবাসনের বিষয়ে তাদের প্রস্তাবে ৪ থেকে ২৫শে মে ছয়টি ফ্লাইটে ২২০ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠানোর কথা বলা হয়। তবে বাংলাদেশের সবুজ সংকেত না পাওয়ায় ৪ ও ১১ই মে যুক্তরাষ্ট্র থেকে কোনো চার্টার্ড ফ্লাইট আসেনি।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১শে মার্চ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটির এসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি এলান বারসিন এবং ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্টের সহকারী পরিচালক মারলেন পিনেইরো বাংলাদেশ সফর করেন। ওই সফরের সময় তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমামের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সাক্ষাতে যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধভাবে অবস্থানকারী বাংলাদেশিদের প্রত্যাবাসনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয় বলে মার্কিন দূতাবাসের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

জানা গেছে, ২২০ জন ছাড়াও আরো অনেক বাংলাদেশি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন ডিটেনশন সেন্টারে রয়েছেন। তাদেরও পর্যায়ক্রমে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ডিপোর্ট করে বাংলাদেশে পাঠানো হবে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২১ মে ২০১৬

Related posts