September 21, 2018

ঠিকাদার জাকির গ্রেফতার: থানায় ১১টা থেকে মেয়র আইভি (ভিডিও)

রফিকুল ইসলাম রফিক: নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নির্মানণধীন বেগম ফজিলাতুন্নেসা পার্কের ঠিকাদার জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে ছাড়িয়ে নিতে নারায়ণগঞ্জ থানায় রাত ১১ টা থেকে অবস্থান করছেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভি। মেয়রের অভিযোগ পার্কের কাজ বন্ধ করতে এমপি শামীম ওসমানের প্রভাবে ঠিকাদার জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলছে রেলওয়ের মামলার প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এখানে কোন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নেই। ( নীচে ভিডিওযুক্ত, ফলোআপ সংবাদের লিঙ্ক নীচে )

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১০টার দিকে নগরির পুরাতন কোর্ট এলাকায় অবস্থিত রত্না ও আব্দুল মতিন এন্টারপ্রাইজের অস্থায়ী কার্য্যালয় থেকে ঠিকাদার জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জ সদর থানার ওসি আব্দুল মালেক জানান, রেলওয়ের এষ্টেট অফিসের কানুনগো ইকবাল মাহমুদ এর মামলার প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ মামলায় দুইজনকে আসামী করা হয়। প্রথম আসামী এ কে এম আবু সুফিয়ান, দ্বিতীয় আসামী করা হয়েছে জাকির হোসেনকে। মামলায় অভিযোগে বলা হয় গত ২৭ মার্চ আমরা খবর পাই যে তারা অবৈধভাবে রেলওয়ের ৯ দশমিক ৯ একর জমিতে পার্ক নির্মান করছে। অভিযোগ পেয়ে আমরা সেখানে গেলে তারাসহ অজ্ঞাত আরো ৭-৮ জন লাঠি, সোটা, দা, বল্লম নিয়ে আমাদের উপর হামলার চেষ্টা করে। তারা রেলওয়ের প্রায় চল্লিশ লাখ টাকা মুল্যের সম্পত্তি বিনষ্ট করে। এই স্থান থেকে রেলওয়ের স্লিপার, গাছপালাসহ প্রায় পাচ লাখ টাকা মুল্যের সম্পত্তি চুরি করে নিয়ে যায়। ডিজিটাল এস্টেট অফিসার শাহাদাৎ হোসাইন ও সহকারি বিভাগীয় এস্টেট অফিসার কাজী হাবিবুল্লাহসহ উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে তারা এ মামলা দায়ের করেন বলে মামলায় উল্লেখ করেন।

নগরীর বাবুরাইল-দেওভোগ এলাকায় প্রাথমিকভাবে প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা ব্যায়ে এ পার্ক নির্মাণ করা হয়েছে। প্রায় তিন মাস আগে পার্কের কাজ শুরুর পর থেকেই স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমান পার্ক নির্মাণের বিরোধিতা করছেন। বিষয়টি উল্লেখ করে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র ডাঃ সেলিনা হায়াত আইভী বুধবার রাত পৌনে একটায় নারায়ণগঞ্জ থানায় বলেন, প্রথম কথা হচ্ছে যদি অপরাধ কোন হয়ে থাকে সেটা আমি করেছি। আমি এ পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি। কোন মামরা হলে আমার বিরুদ্ধে হওয়া দরকার। এরপর মামলায় প্রথম আসামী করা হয়েছে আমার কর্মী ঠিকাদার সুফিয়ানকে। মামলা করতে হলে আমার পরে আসে ঠিকাদার। সুফিয়ান এ প্রকল্পের ঠিকাদার না। অথচ তাকে মামলার প্রথম আসামী করা হয়েছে। এ থেকেই বোঝা যায় বিষয়টি রাজনৈতিক। এমপি শামীম ওসমানের প্রভাবে রেলওয়ের এক কর্মকর্তা ও পুলিশ এ কাজ করেছে। রেলওয়ের সচিব আমাকে জানিয়েছেন তিনি এ মামলার ব্যাপারে জানেননা। রাত হওয়ায় আমি রেলমন্ত্রীকে টেলিফোনে পাচ্ছিনা। আমি এই ঠিকাদারকে থানা থেকে না নিয়ে যাবোনা। বারবার অন্যায় সহ্য করবো না। শামীম ওসমান যা কিছু তা করবে, বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে করা পার্কের কাজেও বাধা দেবে আমি তা মেনে নেবোনা।

মেয়রের পাশাপাশি শত শত জনতা নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় অবস্থান করছিলো। যতই সময় গড়াচ্ছে থানার পাশে লোকজনের সংখ্যা বাড়ছিলো। এদিকে এ সংবাদ সংগ্রহে গেলে প্রথমে পুলিশ তথ্য সংগ্রহে বাধা দেয়। পরে তারা সাংবাদিকদের ভিডিওচিত্র ধারন করে। এ নিয়ে পুলিশের সাথে সাংবাদিকদের বাকবিতন্ডা হয়।

ভিডিওঃ নারায়ণগঞ্জ থানায় রাত ১১ টা থেকে অবস্থান করছেন মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভি।    ( ফলোআপ সংবাদ )

রফিকুল ইসলাম রফিক, সিনিয়র রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ। 

ফলোআপ সংবাদ ও ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন http://bangla.theglobalnews24.com/?p=21325

Related posts