September 22, 2018

টর্নেডোর আঘাতে চুয়াডাঙ্গার ৪ গ্রাম লন্ডভন্ড!

চুয়াডাঙ্গা থেকেঃ  টর্নেডোর আঘাতে এবং ব্যাপক শিলাবৃষ্টির কারণে চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের ৪ গ্রাম একেবারে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। শনিবার রাত ৮ টার সময় জীবননগর উপজেলার হাসাদহ, বৈদ্যনাথপুর, পুরন্দপুর ও বকুন্ডিয়া গ্রামে শক্তিশালী টর্নেডো প্রচন্ড বেগে আঘাত হানে এবং একই সাথে শিলাবৃষ্টি হয়। আধা ঘন্ট্যাব্যাপী এ টর্নেডোতে ৪ গ্রামের পাঁচ শতাধিক কাঁচা ঘরবাড়ি ভেঙ্গে একেবারে মাটির সাথে মিশে গেছে।

প্রায় সহস্রাধিক আধা-পাঁকা ঘরবাড়ির টিনের ছাউনি উড়ে গেছে এবং বাড়িঘরগুলো বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মসজিদের টিনের চালা উড়ে গেছে। বড় বড় গাছ উপড়ে গেছে। রাস্তার পাশের গাছের ডালপালা ভেঙ্গে ও বাঁশঝাড় উপড়ে রাস্তার উপর পড়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

এছাড়া শিলাবৃষ্টিতে পাট, মুগ, কলা, লিচু, বরবটি, আমসহ উঠতি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বৈদ্যুতিক খুটি ভেঙ্গে যাওয়ায় এবং সঞ্চালন লাইন এর তার ছিড়ে যাওয়ায় বিদ্যুৎ সরবরাহ একেবারে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ঘরের চালা ভেঙ্গে ও দেওয়াল চাপা পড়ে হাসাদাহের ফিরোজ আলী, নূর ইসলাম গোপাল, আব্দুল মোমিন, মাধপপুরের ফজিলাতুন্নেছা সহ অন্ততঃ ৩০ জন আহত হয়েছেন।

উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, সবমিলিয়ে আনুমানিক ক্ষয়ক্ষতির পরিমান ৫ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

এদিকে টর্নেডোর আঘাতে বাস্তুহারা অসহায় পরিবারের সদস্যরা খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবনযাপন করছেন এবং তাঁরা দ্রুত সরকারি সাহায্য কামনা করেছেন।

রোববার সকালে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু মো. আ. লতিফ অমল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নূরুল হাফিজ, কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ্ সহ সরকারি কর্মকর্তাগণ ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামগুলো পরিদর্শন করেছেন।

টর্নেডোর আঘাতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হাসাদাহ গ্রামের জসিম উদ্দীন জালাল জানান, শনিবার রাত ৮ টার দিকে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি ও তার সাথে দমকা হওয়াসহ ঝড় শুরু হয়। ঠিক সাড়ে ৮ টার দিকে আচমকাভাবে প্রচন্ড বেগে টর্নেডো আঘাত হানে। সাথে সাথে বিদ্যুত সরবরাহও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এ সময় গ্রামবাসীরা আতংকিত হয়ে দিকবিদিক ছুটাছুটি করতে থাকে। ঝড়ের তা-বে ক্ষেতের পাটের মাথা ও বরবটির মাচা ভেঙ্গে মাটির সাথে মিশে গেছে। এ টর্নেডোতে তাঁর ২ বিঘা ক্ষেতের কলা গাছ ভেঙ্গে গেছে বলে জানিয়েছেন।

উপজেলা বিদ্যুৎ অফিসের জুনিয়র প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন জানান, ক্ষতিগ্রস্থ বিদ্যুৎ লাইন মেরামত করে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বভাবিক করতে ২ দিন সময় লাগবে।

টর্নেডোর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ির মালিক ও কৃষকদের সরকারিভাবে সাহায্য সহযোগিতা করা হবে বলে আশ্বস্ত করলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নূরুল হাফিজ।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/৮ মে ২০১৬

Related posts