November 20, 2018

জয়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রঃ যুক্তরাষ্ট্র থেকে মামুন-মিল্টনকে বহিষ্কার দাবি

যুক্তরাষ্ট্র থেকে,হাকিকুল ইসলাম খোকনঃ  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক অবৈতনিক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা মোহাম্মদ উল্লাহ মামুন এবং মিজানুর রহমান ভূইয়া ওরফে মিল্টন ভূইয়াকে অবিলম্বে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে বহিষ্কারের দাবি জানালো নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগ। একইসাথে, সজীব ওয়াজেদ জয়সহ বঙ্গবন্ধু পরিবারের বিরুদ্ধে যে কোন ষড়যন্ত্র শক্তহাতে প্রতিহত করতে প্রবাসে আওয়ামী পরিবারের লোকজন অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকায় অবতীর্ন হতে বদ্ধপরিকর বলেও উল্লেখ করা হয়।

২৫ এপ্রিল সোমবার রাতে জ্যাকসন হাইটসে ইত্যাদি পার্টি সেন্টারে নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্বে সংগঠনের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী বলেন, ‘শফিক রেহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার সুনির্দিষ্ট অভিযোগে। তাকে সাংবাদিক হিসেবে গ্রেফতারের প্রশ্নই উঠে না। শফিক রেহমানকে বয়োজ্যেষ্ঠ সাংবাদিক হিসেবে যারা অভিহিত করছেন তারা মূলত: বিএনপি-জামাত-শিবিরের পারপাসই সার্ভ করছেন।’ জাকারিয়া বলেন, ‘ষড়যন্ত্রকারিদের দ্রুত বিচার করতে হবে। ষড়যন্ত্রের সাথে আরো যারা জড়িত তাদেরকেও চিহ্নিত করা জরুরী হয়ে পড়েছে।’ ‘একুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচারের মত জয়ের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারিদের বিচার যেন বিলম্বিত না হয়’-প্রত্যাশা জাকারিয়ার।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সংগঠনের সভাপতি কমান্ডার নূরনবী বলেন, ‘এই নিউইয়র্কে একাত্তরের ঘাতকদের অর্থে গড়ে উঠা মিডিয়া সিন্ডিকেট প্রতিনিয়ত বাংলাদেশের বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচারণায় লিপ্ত রয়েছে। শফিক রেহমানেরা নিউইয়র্কে এলে এদের আতিথেয়তা পেয়েছেন। এরা বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা, বিশেষ করে একাত্তরের ঘাতকদের বিচারকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে এমন কোন প্রক্রিয়া নেই যা তারা করতে পিছপা হয়েছেন। সজীব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণের পর হত্যার ষড়যন্ত্রেও এই সিন্ডিকেটের সম্পৃক্ততা থাকতে পারে।’
প্রবাসে আওয়ামী পরিবারের সকলকে মহল বিশেষের অপতৎপরতার ব্যাপারে সজাগ থাকার আহবান জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নূরল আমিন বাবু। নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরো ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান এবং আব্দুল হাসিব মামুন, নির্বাহী সদস্য সরাফ সরকার এবং আমিনুল ইসলাম কলিন্স, যুক্তরাষ্ট্র শ্রমিক লীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাসুদ হোসেন সিরাজি, প্রচার সম্পাদক শাহীন ইবনে দিলওয়ার, সাংগঠনিক সম্পাদক শিবলী সাদিক প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আওয়ালীগ নেতারা বলেন,

প্রিয় সাংবাদিক বন্ধুগন, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আপনাদেরকে সালাম ও রক্তিম শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। আজকের এই সংবাদ সম্মেলকে  সফল ও সার্থক করার জন্য আপনাদের সহযোগিতা কামনা করছি।

প্রিয় সাংবাদিক  বন্ধুগন,
আপনার নিশ্চই অবগত আছেন, দির্ঘ দিন যাবৎ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র , মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর পুত্র,  ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার ও মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি উপদেষ্টা জনাব সজিব ওয়াজেদ জয়ের বিরুদ্ধে দেশী ও বিদেশী ষড়যন্ত্রের কথা ।  ইতিমধ্যে সে ষড়যন্ত্রকারীদের একজন যুক্তরাষ্ট্র জাসাস নেতা ও কুখ্যাত রাজাকার মাহমুদ উল্লাহ মামুনের পুত্র রিজভী আহমেদ সিজার এফবিআই এজেন্টকে ঘুষ দিয়ে জনাব সজীব ওয়াজেদ জয়ের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের চেষ্টায় মার্কিন আদালত কর্তৃক দোষী সাব্যস্থ হয়ে তিন বৎসরের সাঝা ভোগ করছেন। ষড়যন্ত্রকারী দিতীয় ব্যক্তি সাংবাদিক শফিক রেহমান এফবিআই এজেন্ট রবার্ট লস্টিক এর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করে বড় অংকের ঘুষের বিনিময়ে জনাব সজীব ওয়াজেদ জয়ের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে তার প্রান নাশের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। যার পরি প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা শফিক রেহমানকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসে। পরবর্তিতে জিজ্ঞাসাবাদে শফিক রেহমান তার সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেন। তার বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে জনাব সজিব ওয়াজেদ জয় সম্পের্কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র উদ্ধার করা হয় যা গত কাল শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়া রেহমান সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেন।

ষড়যন্ত্র কারীদের মধ্যে আরেকজন আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। অন্যজন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিল্টনও তার সম্পৃক্ততার কথা নীজেই প্রকাশ করেছেন। যাতে এই ষড়যন্ত্রের সাথে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিরও সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া যায়।

আমরা আজকের এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সাংবাদিক নামধারী এই দু’জন ষড়যন্ত্রকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি ও মিল্টন  ভূইয়াকে ইন্টার পোলের মাধ্যমে দেশে ফিরিয়ে নিয়ে আইনের আওতায় আনার জন্য জোর দাবী জানাচ্ছি। আমরা সতর্কতার সহিত একটি বিষয়ে পর্যবেক্ষন করছি দেশে এবং এই প্রবাসে কিছু কিছু সংগঠন ও বুদ্ধিজীবী এই দুইজন সাংবাদিক নামধারী ষড়যন্ত্র কারী ও অপরাধীর পক্ষে বিভিন্ন বিবৃতি প্রদান করছেন। যা প্রক্ষান্তরে  অপরাধী ও ষড়যন্ত্রকারীদেরকে সহায়তার সামিল। তাই আজকের এই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আপনাদের সকলের কাছে আমাদের সর্নিবন্ধ অনুরোধ বাংলাদেশ থেকে হত্যা ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি চিরতরে বন্ধ করার সার্থে এইসব ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে সোচ্ছার হওয়ার জন্য সকলের প্রতি উদাত্ত্ব আহ্বান জানাচ্ছি।

পরিশেষে আমরা নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের শত শত নেতা কর্মী দ্ব্যার্থহীন ভাষায় ঘোষনা করতে চাই জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু পরিবারের বিরুদ্ধে যে কোন ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় সর্বদা প্রস্তুত থাকব।

আপনাদের সকলের সুন্দর সুসাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু  কামনা করছি।
জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৫ এপ্রিল ২০১৬

Related posts