November 21, 2018

জেবিবিএ’র নির্বাচন; মনোনয়নপত্র গ্রহণ ২০-২১ নভেম্বর

জেবিবিএ’র আসন্ন নিবার্চনের মনোনয়নপত্র গ্রহণ ২০-২১ নভেম্বর

হাকিকুল ইসলাম খোকন,বিশেষ সংবাদদাতাঃ  নিউইয়র্কঃ  যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের সর্ববৃহৎ সংগঠন জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশী বিজনেস অ্যাসোসিয়েশন (জেবিবিএ) নিউইয়র্ক-এর দ্বি-বার্ষিক (২০১৬-২০১৭) নির্বাচন জমে উঠছে। আগামী ২০ ডিসেম্বর এই নির্বাচনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল মোতাবেক সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতিমধ্যেই তাদের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। জেবিবিএ’র আহ্বায়ক কমিটি/নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা মোতাবেক এই নির্বাচন প্যানেল ভিত্তিক না বলা হলেও দৃশ্যত: দু’টি প্যানেলেই নির্বাচন হতে যাচ্ছে। এখন চলছে দুই প্যানেলের প্রার্থী চুড়ান্তকরণ প্রক্রিয়া। চলছে দুই প্যানেলের কর্মকর্তাদের বৈঠক। এদিকে প্যানেল ভিত্তিক নির্বাচনের সিদ্ধান্তে জেবিবিএ’র সদস্য বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে। উল্লেখ্য, জেবিবিএ’র আসন্ন নিবার্চনের মনোনয়নপত্র গ্রহণ ২০-২১ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ২৪ নভেম্বর, চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ ২৭ নভেম্বর এবং নির্বাচন ২০ ডিসেম্বর, রোববার।

জেবিবিএ’র আহ্বায়ক কমিটি/নির্বাচন কমিশন ঘোষিত নির্বাচনী তফসিল মোতাবেক ১৩-১৪ নভেম্বর যথাক্রমে শুক্র-শনিবার ছিলো মনোনয়নপত্র বিতরণ। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী সম্ভাব্য দুই প্যানেল ‘জিকু-তারেক’ ও ‘দিদার-কামরুল’-এর  পক্ষ থেকেই জেবিবিএ’র ১৫ সদস্যের কার্যকরী পরিষদের জন্য একাধিক মনোনয়নপত্র ক্রয় করা হয়েছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, এই প্যানেল দু’টির মধ্যে ‘জিকু-তারেক’ প্যানেল থেকে বিভক্ত জেবিবিএ’র একাংশের সাবেক সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ জিকু সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক তারেক খান সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন। অপরদিকে ‘দিদার-কামরুল’ প্যানেল থেকে সভাপতি পদে আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক পদে কামরুল ইসলাম প্রার্থী হচ্ছেন। সাধারণ সম্পাদক পদে বাহবুবুর রহমান টুকু  একক প্রার্থী হচ্ছেন।

জানা গেছে, ‘জিকু-তারেক’ প্যানেলের শীর্ষ কর্মকর্তাদের মধ্যে সহ সভাপতি পদে শাহ নেওয়াজ ও মোললা মাসুদ এবং কোষাধ্যক্ষ পদে জাকির মিয়া প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সম্ভাবনা রয়েছে। অপরদিকে ‘দিদার-কামরুল’ প্যানেল থেকে সহ সভাপতি পদের তালিকায় রয়েছেন শাহ নেওয়াজ ও মনজুর চৌধুরী এবং কোষাধ্যক্ষ পদে লড়বেন সেলিম হারুন। এছাড়াও এই প্যানেল থেকে সাজ্জাদ হোসাইন সাংগঠনিক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বলে জানা গেছে।
নির্বাচন বিষয়ে জাকারিয়া মাসুদ জিকু বলেন, নির্বাচনী তফসিলের নিয়ম-কানুন মেনেই আমরা ঐক্যবদ্ধভাবেই নির্বাচন করতে চাই। তিনি বলেন, জেবিবিএ’র সকল পদেই আমরা প্রার্থী দেবো। এতে সর্বস্তরের ব্যবসায়ীদের প্রতিফলন থাকবে।

আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম বলেন, আমরা সবার সাথে পরামর্শ করেই প্রতিনিধিত্বশীল প্রার্থী মনোনয়ন দেবো। আমরা সকল পর্যায়ের ব্যবসায়ীদের নিয়ে জেবিবিএ-কে আরো শক্তিশালী করতে চাই।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেবিবিএ’র একাধিক সদস্য বাপসনিঊজ প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে বলেন, জেবিবিএ’র নির্বাচন প্যানেল ভিত্তিক নাকি এককভাবেই হবে তানিয়ে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনেকের মধ্যেই ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। অন্যান্য নির্বাচনের মতো জেবিবিএ’র নির্বাচন প্যানেল ভিত্তিক হলেই ভালো হতো। তাদের মতে যদি নির্বাচনে এক মতের, এক প্যানেলের প্রার্থীরা জয়ী হন বা সংখ্যাগষ্ঠি পদে জয়লাভ করেন তাহলে সংগঠন পরিচালনা সহজতর হয়। তারা জেবিবিএ’র বৃহত্তর স্বার্থে নির্বাচন কমিশনের সকল নিয়মাবলী প্রার্থীরা মেনে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে আহ্বায়ক কমিটি/নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করবেন এমন প্রত্যাশাও ব্যক্ত করেন।

আরো উলেলখ্য, ৫ সদস্য বিশিষ্ট্য জেবিবিএ’র আহ্বায়ক কমিটির সদস্যরা হচ্ছেন- সাঈদ রহমান মান্নান, এম এম রহমান, কাজী পারভেজ, মাহবুব চৌধুরী এবং কাজী মন্টু।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts