November 15, 2018

জেপি প্রার্থীর মার্কেটে নৌকার হামলা-ভাংচুর-গুলি!

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহঃ  ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার গাড়াগঞ্জ বাজারে আওয়ামীলীগের প্রার্থী সাবদার হোসেন মোল্লার সমর্থকরা জেপি প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবুলের মার্কেটে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছে। ইউপি নির্বাচনে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রে করে রোববার সন্ধায় আওয়ামীলীগের কর্মীরা এই হামলা চালায়। আত্মরক্ষার্থে জেপি প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবুল তার লাইসেন্স করা পিস্তল দিয়ে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষন করে।

এ সময় উভয় দলের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। শৈলকুপা থানার ওসি মহিবুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উমেদপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান সাবদার হোসেন মোল্লার সমর্থকরা গাড়াগঞ্জ বাজারে মিছিল বের করে। এ সময় জেপি ও আওয়ামীলীগের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়।

এক পর্যায়ে আওয়ামীলীগের কর্মীরা জোটবদ্ধ হয়ে জাতীয় পার্টির (আনোয়ার হোসেন মঞ্জু) নেতা ও উমেদপুর ইউনিয়নে জেপির চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবুলের মার্কেটে হামলা চালায়। তারা মার্কেটের দুইটি সারের দোকান ও সোনালী ব্যাংক ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে ভাংচুর চালায়। এ সময় জেপি নেতা বাবুল ও তার সমর্থকরা মার্কেটের মধ্যে অবরুদ্ধ হয়ে পড়লে বাবুল তার লাইসেন্সকৃত পিস্তল দিয়ে দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

জাতীয় পার্টির (আনোয়ার হোসেন মঞ্জু) নেতা ও উমেদপুর ইউনিয়নে জেপির চেয়ারম্যান প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবুল অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান পদে আজ রোববার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তার মার্কেটে আওয়ামীলীগের প্রার্থী সাবদার হোসেন মোল্লা উপস্থিত থেকে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছেন। তিনি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলেও জানান।

এদিকে অভিযোগ খন্ডন করে সবদার হোসেন মোল্লার ছেলে শৈলকুপা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শামিম হোসেন মোল্লা জানান, তাদের সমর্থকরা নৌকার পক্ষে গাড়াগঞ্জ বাজারে মিছিল বের করলে জেপির কর্মী সমর্থকরা তাদের উপর হামলা চালায়। এতে তাদের বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/৮ মে ২০১৬

Related posts