November 15, 2018

জেনে নিন কী আছে একটি সিগারেটের মধ্যে?

128বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বেড়ে চলেছে ধূমপায়ীর সংখ্যা। স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্যানুসারে, দেশের প্রায় ৪৫ শতাংশ পুরুষ ও দুই শতাংশ নারী ধূমপান করেন এবং ৩ শতাংশ ছেলে ও ১ শতাংশ মেয়ে ধূমপানে আসক্ত। এছাড়া ধূমপানের কারণে প্রতিবছর বাংলাদেশে ৫৭ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়।

এ হার যুক্তরাষ্ট্রেও কম নয়। প্রতিবছর ধূমপানের কারণে সেখানে মারা ৪ লাখ ৮০ হাজার মানুষ। অনেকেই ধূমপানের ক্ষতি সম্পর্কে না জেনে এতে আসক্ত হয়ে পড়ে। তারা ভাবতে পারে না যে তাদের এই অভ্যাস হৃদরোগ, স্ট্রোক, ডায়াবেটিস, ফুসফুসের রোগসহ দেহে বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার তৈরি করতে পারে।

তবে ধূমপান করলে কেন হয় এতসব রোগ? কী থাকে একটি সিগারেটের মধ্যে? স্বাস্থ্য বিষয়ক মার্কিন গণমাধ্যম মেডিকেল ডেইলি জানিয়েছে, এর বিস্তারিত উত্তর দেয়া কঠিন। একটি সিগারেটের মধ্যে ৬০০ রকমের ক্ষতিকর উপাদান থাকতে পারে। এর ধোয়া থেকে প্রায় ৭ হাজার ধরনের ক্ষতিকর রাসায়নিক উৎপন্ন হয়।

এ বিষয়ে মাউন্ট সিনাই স্কুল অব মেডিসিনের স্বাস্থ্য বিজ্ঞানী ড. লুজ ক্লডিও মেডিকেল ডেইলিকে বলেন, ‘সিগারেটের মধ্যে এমন শত শত উপাদান থাকে যা তামাক গাছের মধ্যে থাকে না। এগুলো যখন পুড়তে থাকে তখন আরো নতুন নতুন রাসায়নিক দ্রব্য উৎপন্ন হয়। এরা স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ক্ষতি সৃষ্টি করে।’

তামাকজাত দ্রব্য এবং এর ধোঁয়া থেকে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান কারসিনোজেন এবং হৃদযন্ত্রের জন্য ক্ষতিকর বস্তু তৈরি হয়। এতে থাকে আর্সেনিকও। থাকে মনোঅক্সাইডের মতো ক্ষতিকর উপাদান, যা সাধারণত গাড়ির পোড়া জ্বালানির মধ্যে থাকে। একটি সিগারেটের মধ্যে থাকে প্রচুর পরিমাণে নিকোটিন। আর নিকোটিন ব্যবহৃত হয় কীটনাশক তৈরিতে।

সিগারেটের মধ্যে থাকে ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদান ফর্মালডিহাইড। এছাড়া থাকে ক্যাডমিয়াম, যা ব্যবহৃত হয় ব্যাটারি তৈরিতে। থাকে ক্ষতিকর হেক্সামাইন। এটি কাবাবের জ্বালানি হিসেবে ব্যবহুত হয়। সিগারেটের মধ্যে কমপক্ষে এমন ৭০টি উপাদান পাওয়া যায়, যা ক্যান্সারের জন্য দায়ী। মেডিকেল ডেইলি জানায়, এ সবগুলো উপাদানই মানুষের মৃত্যু ঘটাতে পারে।

আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটির তথ্যানুসারে, যুক্তরাষ্ট্রে ক্যান্সারঘটিত মৃত্যুর মধ্যে ৩০ শতাংশই ঘটে ধূমপানের কারণে। এছাড়া ফুসফুসের ক্যান্সারজনিত মৃত্যুর মধ্যে ৮৭ শতাংশ পুরুষ এবং ৭০ শতাংশ নারী ধূমপানের কারণে মারা যায়।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন/ডেরি

Related posts