November 17, 2018

জামায়াত বিএনপির হৃৎপিণ্ডে পরিণত হয়েছে – নিলু

ঢাকাঃ বিএনপি জোট ত্যাগকারী ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নিলু বলেছেন, ‘জামায়াতে ইসলামী বিএনপির হৃৎপিণ্ডে পরিণত হয়েছে। তাই বেগম খালেদা জিয়া কোনোক্রমেই এ দলটির সঙ্গ ত্যাগ করতে পারবেন না। যারা বিএনপিকে জামায়াত ত্যাগ করার দাবি তুলছেন তারা রাজনৈতিকভাবে অপরিপক্ব।’

বুধবার (৩ আগস্ট) বিকেলে গণমাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন নিলু।

বিবৃতিতে এনপিপি চেয়ারম্যান বলেন, বিএনপি জোট যখন রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় ছিল তখনো অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, কর্নেল (অব.) ড. অলি আহমদ বীরবিক্রম এমনকি বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়ারাও জামায়াত বিরোধী অবস্থান নিয়ে বিএনপি থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য হন। কিন্তু বেগম খালেদা জিয়া জামায়াতের সঙ্গ ত্যাগ করেননি।

এ প্রসঙ্গে নিলু আরো বলেন, ‘গত কিছুদিন ধরে রাজনৈতিক মহলে বিএনপি জোট থেকে জামায়াতে ইসলামীকে বাদ দেয়ার দাবি-অনুরোধ পরিলক্ষিত হচ্ছে। কিন্তু আমরা চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলতে চাই, বেগম খালেদা জিয়ার বিএনপি কোনক্রমেই জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গ ত্যাগ করতে পারবে না। জামায়াতে ইসলামী আজ প্রকৃতঅর্থে বিএনপির হৃৎপিণ্ডে পরিণত হয়েছে। এই বাস্তবতাই এখন রাজনৈতিক অঙ্গনে বিরাজ করছে। যারা এই ধরনের দাবি তোলেন তারা রাজনৈতিকভাবে অপরিপক্ব।’

বিএনপির সঙ্গে জাতীয় ঐক্যের পথে জামায়াতে ইসলামীকে সব সময় বড় বাধা হিসেবে উল্লেখ করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। সে প্রসঙ্গে গতকাল মঙ্গলবার (২ আগস্ট) জাতীয় প্রেস ক্লাবে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের এক মতবিনিময় সভায় জামায়াতকে ইঙ্গিত করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, ‘জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার ক্ষেত্রে একটি রাজনৈতিক দল বড় প্রতিবন্ধকতা বলে মনে হয়। কিন্তু যেকোনো মুহূর্তে ক্ষমতাসীন দল ওই দলটিকে নিষিদ্ধ করতে পারে।’

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে দেশের বিরোধী দল, রাজনৈতিকভাবে না হলেও দেশের বিরোধী দল বেগম খালেদা জিয়ার দল বিএনপি। তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, ২০ দলের মধ্যে অন্ততপক্ষে এই দলটিকে আর ওইভাবে রাখার কোনো প্রয়োজন নেই। তিনি বুঝতে পেরেছেন, ওই দলটিকে রাখলে যে লায়াবিলিটি আসে সেটা তিনি বহন করতে চান না। সুতরাং এই দিক থেকে দেখলে প্রতিবন্ধকতা (জাতীয় ঐক্যের ক্ষেত্রে) নেই।’

এদিকে, বুধবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে জামায়াতকে নিয়ে ড. এমাজউদ্দীন আহমদের ওই বক্তব্যের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এটা তার ব্যক্তিগত মতামত।’

এ প্রসঙ্গে গতকাল (২ আগস্ট) রাতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বাংলামেইলকে বলেন, ‘ড. এমাজউদ্দীন সাহেব বিএনপির একজন শুভাকাঙ্ক্ষি। তিনি দলের কেউ নন। ওই কথাটা তিনি বলেছেন। সুতরাং তাকেই জিজ্ঞাসা করুন। এ ব্যাপারে তিনিই বলতে পারবেন।’

Related posts