December 11, 2018

জামাতাও বটে!

রফিকুল ইসলাম রফিক,নারায়ণগঞ্জঃ  নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে শাশুড়ির ভিক্ষে করে জমানো ২ লাখ টাকা ও স্বর্ণালংকার আত্মসাতের জন্য স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে পাষন্ড স্বামী। মূমূর্ষ অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত ২৫ এপ্রিল সোমবার রাতে উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের চনপাড়া বস্তির ১নং ওয়ার্ডে এই ঘটনা ঘটে।

শাশুড়ি ফজিলত নেছা জানান, গত ৪ বছর পূর্বে ১নং ওয়ার্ডের গোলাম হোসেনের বাড়ির ভাড়াটিয়া ও ইব্রাহিম হাওলাদের ছেলে হজরত আলীর সাথে তার একমাত্র সন্তান মুনসিদাকে বিয়ে দেন। সে সময় যৌতুক বাবদ নগদ ৫০ হাজার টাকা ও এক ভরি স্বর্ণালংকারও দেয়া হয়। বিয়ের কিছুদিন পর ফজিলত নেছার স্বামী ছানাউল্লাহ মোল্লা মারা যায়।

এরপর তিনি রাজধানীতে হেটে হেটে ছাই বিক্রি করে এবং বিভিন্ন সময় ভিক্ষে করে নিজের পেট চালানোর পাশাপাশি ২ লাখ টাকা ও আট আনা ওজনের এক জোড়া কানের দুল সঞ্চয় করেন। তার  ভাঙ্গা জরাজীর্ণ ঘরে উক্ত টাকা ও স্বর্ণালংকার চুরি হয়ে যাবার ভয়ে গত কয়েকদিন পূর্বে তার মেয়ের বাড়িতে গিয়ে রেখে আসেন। এরপর উক্ত মালামালের উপর লোলুপ দৃষ্টি পরে হজরত আলীর। সে বিভিন্ন সময় টাকা এবং স্বর্ণালংকার স্ত্রীর কাছে চেয়ে না পেয়ে গত সোমবার রাতে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে স্ত্রী মুনসিদাকে হত্যার চেষ্টা করে।

এ সময় তার ডাক-চিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসলে স্বামী হজরত আলী উক্ত টাকা ও স্বর্ণের জিনিস নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে লোকজন তাকে মূমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন জানান, এই ঘটনায় ফজিলত নেছা বাদি হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডট কম/রিপন ডেরি/২৫ এপ্রিল ২০১৬

Related posts