September 20, 2018

জানেন কি টি-ট্রি রেঞ্জ কোনটা কখন ব্যবহার করবেন?

লাইফ স্টাইল ডেস্কঃ একটু ফ্রেশ লুক, দাগ বিহীন চেহারা সবার কাম্য। অনেক চেষ্টা করার পর বেশিভাগ মানুষের কাংখিত কোমল চেহারার লুকটি আসে না। ব্রেক আউট, ব্রন, চেহারার ব্লেশিস, বেশির ভাগ মানুষের একটি সাধারন সমস্যায় পরিনত হয়েছে। এর পিছনে অনেক গুলো কারন রয়েছে। কিছু আমাদের অভ্যাস গত কিছু প্রাকৃতিক কারন গত যেমনঃ পরিবেশ দুষণ, পৃথিবির সার্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি আর খাবারের বা ঘুমের অনিয়ম ইত্যাদি। বডি শপের টি-ট্রি রেঞ্জটি এই ধরনের সমস্যার জন্য অনেক বেশি কার্যকর, কারন প্রাকৃতিক নির্যাশে তৈরি হয়ে থাকে। টি-ট্রি রেঞ্জর ক্লিনজার, টোনার, তেল, পোর মিনিমাইজার ইত্যাদি ব্যবহার কয়ার ধাপ গুলো একটু জেনে নেই।

1. Cleanser

স্কিন কেয়ার রুটিনের শুরুতেই টি-ট্রি ফোমিং ক্লিনসার দিয়ে মুখ ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে। যা ত্বক থেকে অতিরিক্ত তেল এবং জীবানু সরিয়ে নিবে। ক্লিন্সার দিয়ে মুখ ধুয়ে নেয়ার পর অবশ্যই ক্লিন্সিং ব্রাশ দিয়ে মুখ ভাল করে পলিশ করে নিতে হবে। এ ক্ষেত্রে ব্রাশটি ইলেক্ট্রনিক্স হলে ভাল হয়। তবে যে কোন ক্লিন্সার ব্যবহার করার সময় একটা ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে ক্লিন্সারটি যেন ত্বককে অতিরিক্ত শুষ্ক করে না দেয়, যা ত্বকে ইরিটেশনের সৃষ্টি করতে পারে। টি ট্রি ফোমিং ক্লিন্সারটি সকল ধরনের ত্বকের জন্য তৈরি এবং এর ব্যবহারের ত্বকের কোন ক্ষতি হবে না।

2. Toner

ক্লিন্সিং প্রকৃয়াটি শেষ ধাপ হল টোনারের ব্যবহার। সাধারনত ক্লিনজার ব্যবহার করার পরও অনেক সময় ময়লা ধুলিকনার অংশাবশেষ থেকেই যায় যা পরিষ্কার করার জন্য টোনার ব্যবহার করা হয়। টি ট্রি টোনারটি রয়েছে তৈলাক্ততা শুষে নেয়ার পাউডার যা শুধু আপনার ত্বকের ধুলিকণা এবং জীবানূ মুক্ত করবে না, মসৃণ ভাব নিয় আসবে ত্বকের উপর।

> টোনার ব্যবহার করার আগে অবশ্যই খুব ভাল করে ঝাকিয়ে নিতে হবে যেন ভিতরের উপাদান গুলো পুর্ণ উপযোগ পাওয়া যায়।

> টোনারটি ভাল করে ঝাকিয়ে নেয়ার পর টিসু বা তুলোর উপর টোনারটি অল্প পরিমানে ঢেলে নিয়ে তা দিয়ে চেহারার ভালভাবে আলতো করে ঘসে নিয়ে পরিশিষ্ঠ ময়লা তুলে নিতে পারেন।

3. Tea Tree:

ক্লিনজার এবং টোনার দিয়ে পুরো ত্বককে ধুলো বালি মুক্ত করে ভাল ভাবে পরিষ্কার করে নেয়ার পর টি- ট্রি তেলটি ব্যবহার করা হয়। যখন আপনার মুখ ভাল ভাবে পরিষ্কার করে ফেলবেন এরপর টি-ট্রি তেলে দু-তিন ফোটা তুলোর (কটন বাড ব্যবহার করেতে পারেন) উপর ঢেলে নিয়ে ব্রণ বা ব্রেক আউট হওয়া জাগাটাতে আলতো করে লাগিয়ে রাখবেন। এভাবে প্রদিনের ব্যবহারে আপানার ব্রণ বা ব্রেক আউট জনীত সমস্যা দূর হবে।

4. Pore Minimizer:

সর্বশেষে আপনি পোর মিনিমাইজারটি ব্যবহার করতে পারেন। এটা ব্যবহার করবেন প্রাইমারের মত করে মেক-আপ নেয়ার পূর্বে। ৫ থেকে ১০ মিনিটেই খরচের মাধ্যমেই আপনি পেয়ে যাচ্ছেন ফ্রেশ এবং হেলদি লুক।

Related posts