November 21, 2018

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সফলতার শীর্ষে বাংলাদেশ

অমিত রায়
ঢাকা থেকেঃ
আজ (শনিবার) সকালে ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটিতে “আর্ন্তাজাতিক শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশর অবদান” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিদেশী অনুদানমুক্ত স্থানীয় সংগঠন ফোরাম সিএলএনবি কর্তৃক উক্ত আলোচনা সভায় সভাপত্বি করেন হারুনূর রশিদ।

আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেন, ১৯৮৮ সন থেকে শুরু হওয়া শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের শান্তি  সেনারা দায়িত্ব পালন কালে তাদের সততা, দক্ষতা, নিরপেক্ষতা, দুঃস্থদের সহযোগিতা, যুদ্ধরত উপদলগুলোর মধ্যে শান্তি স্থাপন, যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্থদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১৩০ জন শান্তিসেনা আত্মত্যাগ করেন। যার বিনিময়ে বাংলাদেশ এখন সর্বোচ্চ শান্তিসেনা প্রেরণকারী দেশ হিসেবে স্মীকৃত হয়েছে। বর্তমানে শান্তিরক্ষা মিশনে কর্মরত বাংলাদেশর ৯৪৩২ জন শান্তিসেনার মধ্যে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্য ১১১১ জন, অবশিষ্ট বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য।

১৯৮৮ সন থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশ ৪০ দেশের ৫৪টি মিশনে ১৪৪৭৩৯ জন শান্তিসেনা প্রেরণ করেছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর সদস্য সংখ্যা ১৬১৯৪ জন, অবশিষ্ট বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য। বাংলাদেশ সুনাম, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও ভবিষ্যৎ আন্তঃদেশীয় ব্যবসা, কর্মসংস্থানের বিশাল সুযোগ রয়েছে। জাতিসংঘ শান্তিক্ষা মিশন এখন বাংলাদেশের ৩য় বৃহৎ আয়ের খাত। বক্তাগণ শান্তিসেনাদের সফলতা ও আত্মত্যাগকারী শহীদ শান্তিসেনাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন।

অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন কর্নেল (অব:) দিদারুল আলম বীরপ্রতীক। আলোচন সভায় বক্তব্য রাখেন, হারুনার রশিদ ভুইয়া, শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ-স্কপ, মোকাদ্দেম হোসেন সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ সংযুক্ত শ্রমিক ফেডারেশন,  নার্গিস জাহান বানু পরিচালক প্রশিকা ও সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট, বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট’র সিনিয়র আইনজীবী আফজাল হোসেন, নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, সাবেক ব্যাংকার নওয়াব আলী ভূইয়া, স্বাধীনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ হোসেন, শ্রমিক নেতা বজলুর রহমান বাবলু, সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সামছুল আলম, সাবেক ছাত্রনেতা হাসান মঞ্জুর, মানবাধিকার কর্মী মোঃ হানিফ, গার্মেন্টস শ্রমিক নেত্রী কামরুন্নার, মানবাধিকার কর্মী মাহববু নেওয়াজ চৌধুরী প্রমুখ।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি ২৮ মে ২০১৬

Related posts