February 16, 2019

জাতিকে ৭১’এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাগ্রত থাকতে হবে

রাকেশ রহমানঃ বিজয়ের মাসে সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। আমি একজন প্রবাসী তরুণ লেখক। আমি দেশ নিয়ে চিন্তা করি তা আমি আমার লেখার মাধ্যমে প্রকাশ করার চেষ্টা করি, লিখি রাজনীতির অন্তরালে রাজনীতি নিয়ে, লিখি ভবিষ্যৎ সম্ভাবনাময় দিক গুলো নিয়ে। আমার পরিচিতি রয়েছে বাংলাদেশের রাজনীতির শীর্ষ নেতৃবৃন্দ সহ বহিঃবিশ্বেও। আমি ইতালিয়ান প্রধান মন্ত্রী মাতেও রেন্সি-এর ভালো কাজে মুগ্ধ হয়ে তাকে নিয়ে লিখেছিলাম এবং তার রাজনৈতিক দল থেকে শুভেচ্ছাও পেয়েছি। আমি দেশের স্বার্থে জাতির উন্নয়নের জন্য লিখে যাই।

দেশটা আমাদের সবার তাই এই দেশের ভালো মন্দ চিন্তা করার ও কিছু করার দায়িত্ব আমাদের সবার।
দেশটার জন্ম হয়েছে ৪৪ বছর ( প্রায় ) । কিন্তু এখনও কি আমরা একে অপরের হিংসা, ভেদাভেদ, দণ্ডতা থেকে বের হয়ে আসতে পেরেছি ? আমরা কি হতে পারবো না মালয়েশিয়া অথবা সিঙ্গাপুরের মত একটি দেশ ?
আমাদের বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রতিহিংসা কি বন্ধ করা যাবে না ? আমরা কি ৭১’ এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাগ্রত হতে পারবো না ? আরেকবার অসাধু ব্যবসায়ী রাজনীতিবিদদের পিছনে ফেলে দেশ প্রেমিক, আদর্শবান রাজনীতিবিদদের সামনে নিয়ে এসে দেশটাকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে কি আমরা পারবো না ? যে দেশে থাকবে না ভাইয়ের প্রতি ভাইয়ের দণ্ড, থাকবে না রাজনৈতিক প্রতিহিংসা।

আমরা পারবো, আমাদের পারতেই হবে,কারন আমাদের প্রবীণ প্রজন্মরা যুদ্ধো করে দেশ স্বাধীন করেছে,আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, তাই আমাদের জানতে হবে ৭১’ এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা কি ছিল?

এক কথায় বলতে গেলে চেতনাটি হচ্ছে নিজের জীবন থেকে অন্যের জীবনকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া । অর্থাৎ নিজে না খেয়ে অন্যকে খাওয়ানো , নিজের শান্তিতে নয় বরং  অন্যের শান্তিতে তৃপ্তি পাওয়া ।

যেমন- ৭১’এর মুক্তিযুদ্ধে মানুষ নিজে না খেয়ে মুক্তিযোদ্ধা ও শরণার্থীদের খাইয়েছিল, নিজে না ঘুমিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ও শরণার্থীদের ঘুমানোর জন্য জায়গা দিয়েছিলো, নিজেদের জীবন দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের জীবন রক্ষা করেছিল আর এই হল মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।
সবাইকে আপন করে নিয়ে মাকে অর্থাৎ দেশকে আর সন্তানকে অর্থাৎ জাতিকে রক্ষা করতে ৭১’এর মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাতিকে জাগ্রত করতে হবে ।
আজ বাংলাদেশে দুর্নীতি মিশে গিয়েছে রন্ধে রন্ধে। যেমন – একজন রিক্সা চালক তার যতটুকু সামর্থ্য রয়েছে সে ততটুকুই দুর্নীতি করছে, অপরিচিত বা বহিঃগত শহর থেকে আগত যাত্রীদের ভুল পথে ঘুরিয়ে ভাড়া নিচ্ছে দ্বিগুন । আর প্রশাসন তারা তো অনেক উর্দ্ধে। এরকম ঘর থেকে শুরু করে স্কুল, কলেজ, অফিস, আদালত, বাজার-ঘাট সর্বত্র দুর্নীতিতে ছেয়ে গেছে,  যেন দুর্নীতি আজ হয়ে গিয়েছে খুবই সাধারণ একটি ব্যাপার। কিন্তু সব কিছুর উর্দ্ধে দেশ প্রেম ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এই জাতির ভিতরে পুনরায় আসা সম্ভব না।
তারপরও এর প্রতিরোধ আমাদেরকেই করতে হবে যে যার স্থান থেকে।

আর এই প্রতিরোধের জন্য আরেক বার আমাদের জাগিয়ে তুলতে হবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।

রাকেশ রহমান ( প্রবাসী লেখক,প্রেসিডিয়াম সদস্য ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি  )

মুক্তমতের লেখা লেখকের নিজস্ব মত, এতে আমাদের প্রকাশনার নীতির কোন প্রতিফলন ঘটে না।

Related posts