September 21, 2018

জাঁকালো উদ্বোধনের অপেক্ষায় রিও অলিম্পিক

ঢাকা: ২০৬টি দেশ। ১১ হাজারের উপরে অ্যাথলেট। ২৮টি ক্রীড়া ইভেন্টে ৩০৬টি পদকের লড়াই। ৫ থেকে ২১ আগষ্ট, ১৬ দিনের বিশ্ব ক্রীড়াযজ্ঞ। পদকের লড়াইয়ে মেতে উঠবেন অ্যাথলেটরা, গোটা বিশ্বের চোখ থাকবে ব্রাজিলের রিও শহরের দিকে। চার বছর পর আবারো ‘গ্রেটেস্ট শো অন দি আর্থ’ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক গেমস কড়া নাড়ছে দুয়ারে। জাঁকালো উদ্বোধনের অপেক্ষায় রিও অলিম্পিক।

আর মাত্র একদিনের অপেক্ষায়। সময়ের পার্থক্যের কারণে বাংলাদেশে এর ব্যপ্তি প্রায় দেড়দিনেরও বেশী। ব্রাজিলে শুক্রবার রাত ৮টায় পর্দা উঠবে অলিম্পিক গেমসের। তবে বাংলাদেশ সময় তা গড়াবে শনিবার ভোর ৫টায়। সরাসরি সম্প্রচার করবে স্টার্স স্পোর্টস ১, ২, ৩।

ঐতিহাসিক মারাকানা স্টেডিয়ামে পর্দা উঠবে রিও অলিম্পিক গেমসের। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান কেমন হবে, তা নিয়ে চলছে আগাম আলোচনা। ব্রাজিল অবশ্য আগেই ঘোষণা দিয়েছে, ২০১২ লন্ডন অলিম্পিককে ছাড়িয়ে যাবে তারা।

দেশীয় সংস্কৃতির পাশাপাশি নয়নাভিরাম সব পরিবেশনা থাকছে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে। ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী সাম্বা নৃত্যর সঙ্গে থাকছে বিশেষ চমক। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখতে মারাকানায় হাজির থাকবেন প্রায় ৭৮ হাজার দর্শক। টিভিতে বিশ্বের প্রায় তিন বিলিয়ন মানুষ দেখবে অলিম্পিক গেমসের নয়নাভিরাম উদ্বোধন।

‍শুরুতেই থাকবে পতাকা নিয়ে অ্যাথলেটদের মার্চপাস্ট। এরপর পর্যায়ক্রমে নানা শো। সব শেষে থাকবে বর্ণীল আতশবাজি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন সিটি অব গড বিখ্যাত চলচিত্রের পরিচালক ফার্নান্দো মেয়ারলেস। তার সঙ্গে থাকবেন আন্দ্রুচা ওয়াশিংটন ও  ড্যানিয়েলা থমাস।

মজার ইভেন্টে গান করবেন সাম্বা সিঙ্গার এলজা সোয়ারেস। যার আরও একটা পরিচয় আছে। যিনি ব্রাজিলের সাবেক কিংবদন্তী ফুটবলার গারিঞ্চার স্ত্রী। তার সঙ্গে থাকবে ১২ বছর বয়সী এমসি সোফিয়া। যে কিনা কথা বলবেন বর্ণবাদের বিরুদ্ধে। এরপর একে একে মঞ্চ মাতাবেন ক্যারল কনকা, লুডমিলা, গিলবার্তো গিল, কায়েটানো ভ্যালোসো। সুরের মায়াজালে দর্শকদের মোহিত করতে থাকছেন ব্রাজিলের বিখ্যাত সব সঙ্গীতশিল্পী।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, উদ্বোধনী আয়োজনে ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী বৈচিত্রপূর্ণ সাংস্কৃতিক পরিবেশনাই অধিক গুরুত্ব পাবে। সহস্রাধিক অ্যাথলেট জাতীয় পতাকা হাতে প্যারেড করবেন। লাইট এন্ড সাউন্ড শো এর মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হবে ব্রাজিলে পর্তুগীজ উপনিবেশের ইতিহাস।

উদ্বোধনী মঞ্চ আলো করবেন ব্রাজিলের সুন্দরী এবং সুপার মডেলরা। কিংবদন্তি ব্রাজিলিয়ান মডেল বান্ডচ্যান ক্যাটওয়াকের মাধ্যমে মঞ্চ আলোকিত করবেন। ক্যাটওয়াকের বড় একটি অংশজুড়ে থাকবেন মেইনস্ট্রিম ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির সমস্ত ধারণা বদলে দেওয়া ট্রান্সজেন্ডার মডেল লি-টি। অলিম্পিকের ইতিহাসে এই প্রথমবারের মত কোনও ট্রান্সজেন্ডার মডেল মঞ্চ মাতাবেন।

কে মশাল প্রজ্বালন করবেন? তা নিয়ে একটা ধোঁয়াশা থাকছেই। পেলের নাম শোনা গেলেও ব্রাজিলের এই কিংবদন্তি বিষয়টি অর্পণ করেছেন স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের কাছে।

উদ্বোধনের আগে অলিম্পিক বিরোধী বিক্ষোভ হয়েছে রিওতে। পুলিশ কঠোর হস্তে দমন করেছে তা। নানা সমস্যা থাকলেও সফল আয়োজনে প্রত্যয়ী ব্রাজিলিয় সরকার। তবে ১৫ হাজার অ্যাথলেট থেকে কমে দাঁড়িয়েছে ১১ হাজারে। যা অনেকটা শংকারই। রাশিয়ার ট্রাক এন্ড ফিল্ডের অ্যাথলেটরা খেলতে পারছে না, যা রিও অলিম্পিকে বাড়তি বিরহের আবহই সৃষ্টি করবে।

সবকিছু পেছনে ফেলে শেষ পর্যন্ত কেমন হবে ‍উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, তাই যেন দেখার বিষয়। আর সফল আয়োজনের পাশ-ফেল বিবেচনা হবে ২১ আগষ্ট সমাপনী অনুষ্ঠানের পর।

Related posts