April 21, 2019

জরিমানায় দুঃখ নাই, অভিযান থামলে খবর আছে’

26
ঢাকাঃ  প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে ইস্কাটনে নিজের মটর পার্সের দোকানে যাচ্ছিলেন চল্লিশোর্ধ রফিক আহমেদ। বাংলামটরের ওভারব্রিজের নিচ দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় দুই পুলিশ তাকে ধরে নিয়ে হাজির করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে। নিয়ম ভাঙার অভিযোগে জরিমানা দিতে হলো নগদ দুইশ টাকা।

নিজের নিরাপত্তার তাগিদে জরিমানা গুনলেও ক্ষোভ নেই, তবে এমন অভিযান হঠাৎ করে বন্ধ না করার দাবি রফিকের।

জানতে চাইলে তিনি বলেন, “পুলিশ ক্যান ধরলো বুঝলাম না। পরে দেখলাম রাস্তা পার হওয়ার জন্য জরিমানা হয়েছে। জরিমানা দিলাম তাতে দুঃখ নাই। কিন্তু অভিযান থামলে খবর আছে। কারণ বন্ধ করলে আজকে কেন জরিমানা নিল।”

অনেকদিন বন্ধ থাকার পর আবার রাজধানীতে যত্রতত্র পথচারীদের রাস্তা পারাপারের বিরুদ্ধে রাজধানীতে অভিযান শুরু করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগ।

এতে শুধু রফিক আহমেদ নয়, এমন অনেকে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে নিচ দিয়ে রাস্তা পার হয়ে জরিমানা গুণে পার পেয়েছেন। অনেকে আবার আদালতের কাছে ভবিষ্যতে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহারের প্রতিশ্রুতি দিয়েও রেহাই পেয়েছেন।

এমনই একজন মো. মঞ্জুর আলম। বাংলামটরের পশ্চিম দিক থেকে রাস্তা পার হয়ে পূর্বপাশে আসতে না আসতেই দুই পুলিশ তাকে ধরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে নিয়ে আসেন। পরে আদালত তাকে একশ টাকা নগদ জরিমানা করে।

মঞ্জুর আলম বলেন, “ঝিনাইদাহ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার জন্য ঢাকায় এসেছি। এখানে এমন নিয়ম আছে জানতাম না। একশ টাকা জরিমানা দিলাম, সামনে এমন হবে না। তবে এটা থেমে গেলে কষ্ট পাবো।”

এর আগে গত নভেম্বরে যত্রতত্র রাস্তা পারাপারের বিরুদ্ধে রাজধানীজুড়ে অভিযান শুরু করেছিল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ট্রাফিক বিভাগ। ওইসময় কোনো পথচারী আইন অমান্য করেন এবং অভিযানে তা ধরা পড়ে তবে তার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে বাংলামোটর সিগন্যালে যত্রতত্র রাস্তা পারাপারের বিরুদ্ধে এবং ফুটওভারব্রিজ ব্যবহারে উদ্বুব্ধ করতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। রমনা জোনের (ট্রাফিক) সহকারী কমিশনার আবদুল্লাহিল কাফীর তত্ত্বাবধানে অভিযান পরিচালিত হয়।

আর ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল কুদ্দুস ও মশিউর রহমান।

আইন অমান্য করলে পথচারীর অপরাধের ধরণ অনুযায়ী সর্বোচ্চ দুইশ’ টাকা পর্যন্ত আর্থিক জরিমানা করা হয়।

অভিযানের বিষয়ে রমনা জোনের (ট্রাফিক) সহকারী কমিশনার আবদুল্লাহিল কাফী বলেন, “আমরা পথচারীদের ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহারে সচেতন করার লক্ষ্যে কাজ করছি। এর আগে একবার অভিযানে বেশ সাড়া পাওয়া গেলেও এখন আবার আইন না মানার প্রবণতা বেড়ে গেছে। আর একটু কঠোর না হলে আমরা আইন মানতে চাই না। যে কারণে ভ্রাম্যমাণ আদালত অনেককে জরিমানা আদায় করা হচ্ছে।” অভিযান চলবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল কুদ্দুস বেলা ১টার দিকে বলেন, “এখন পর্যন্ত শতাধিক লোককে বিভিন্ন অংকের সর্বোচ্চ দুইশত টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছে। আমরা চাই সবাই ফুটওভার ব্রিজ পার হোক, নিরাপদে চলাচল করুক। আর কিছু অংকের জরিমানা করা হচ্ছে। আমরা চাই সবাই সচেতন হোক।”ঢাকা টাইমস

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts