September 24, 2018

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বরিশালে লিফলেট বিতরণ

ঢাকাঃ জঙ্গিবাদবিরোধী নানা কর্মসূচি পালনের পর এবার লিফলেট বিতরণে মাঠে নামছে বরিশাল পুলিশ প্রশাসন। বুধবার (৩ আগস্ট) থেকেই বরিশালের সর্বত্র এই জঙ্গিবাদবিরোধী লিফলেট বিলি করা হচ্ছে। বিশেষ করে লিফলেটগুলো বিতরণ করা হবে নগরী ও জেলা-উপজেলার বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে।

গত কয়েকদিন ধরেই নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোসহ সকল সরকারি-বেসরকারি দপ্তরগুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জঙ্গি আর সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে আসছে। জঙ্গিবাদবিরোধী এসব কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করে পাশে দাঁড়িয়েছে গোটা বরিশালবাসী। এর ফলে প্রতিবাদ কর্মসূচির স্থানগুলো মুখরিত হয়ে ওঠে হাজার হাজার প্রতিবাদী মানুষের পদচারণায়। কর্মসূচি থেকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জনগণের জিহাদ ঘোষণা করার বিষয়টি প্রকাশ পায়।

এসব কর্মসূচির ধারাবাহিকতা বজায় রেখে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূলে বরিশাল জেলা প্রশাসন আরো উদ্যোগ নিচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে লিফলেট বিতরণ। মঙ্গলবার (২ আগস্ট) বরিশাল জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূলে প্রশাসন জিরো টলারেন্স দেখানোর কঠোর অবস্থানে থাকার বিষয়টিও পরিস্কার করেছে।

বরিশাল জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত সকল কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। সেখানে সুশীল সমাজ ও আওয়ামী লীগ ঘরনার বেশ কয়েকজন আইনজীবী অংশ নেন।

বরিশাল জেলা প্রশাসক জানান, তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে জঙ্গিবাদবিরোধী বিপুল পরিমাণ লিফলেট বরিশাল প্রশাসনে এসেছে। বুধবার থেকে বরিশালের সর্বত্র এসব লিফলেট বিলি করা হবে। বিশেষ করে সব স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের মাঝে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন (বিএমপি) ও জেলা পুলিশ ছাড়াও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও আনসার সদস্যরা এসব লিফলেট বিতরণ করবে। জেলা প্রশাসক বলেছেন, ‘জঙ্গিবাদ রোধে বরিশালে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সর্বাত্মক ভূমিকা রাখছে।’

বরিশাল পুলিশ কর্মকর্তাদের ভাষ্য, গুলশান ও শোলাকিয়ায় হামলার পরপরই নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে দেয়া হয় বরিশাল শহর। কিন্তু নদী বেষ্টিত এ জেলায় হামলা চালানো সহজ বলে ধারনা করে পুলিশ হেডকোয়ার্টার থেকে আগাম সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে।

পুলিশের এক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশ করার শর্তে জানান, নদীপথে নিরাপত্তা জোরদার করতে এই মুহূর্তে আরো জনবল দরকার। যে কারণে জনবল চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। সূত্রমতে, ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে আগামী ১২ আগস্টের মধ্যে বিমেপিতে আরো ৪০০ পুলিশ সদস্য যুক্ত হতে যাচ্ছে। এরপরে পর্যায়ক্রমে আরো ২০০ পুলিশ সদস্য যুক্ত হবে।

সূত্রমতে, কয়েকদিন আগে বরিশাল শহরের প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত মাদারীপুরে শিক্ষক রতন চক্রবর্তীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় সন্ত্রাসীরা। ওই ঘটনার পর থেকে বরিশালে বড় ধরনের হামলার আশঙ্কা রয়েছে বলে তথ্য পাওয়া যায়। এরপর থেকে সেখানে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।

বিএমপির কমিশনার একেএম রুহুল আমিন জানান, উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় আগাম প্রস্তুতি রয়েছে। তবে জনবল তুলনামূলক কম হওয়ায় বিশেষ এলাকায় আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী মোতায়েন রয়েছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা সুরক্ষিত রাখতে পুলিশ সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে। পাশাপাশি র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও টহল অব্যাহত রেখেছে।

Related posts