September 25, 2018

চাঁদপুর স্ত্রী নির্যাতনের দায়ে স্বামীর ১৪ বছর কারাদন্ড

law
এ কে আজাদ, চাঁদপুর : চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে যৌতুকের দাবীতে স্ত্রী সেলিনা বেগমের (৩০) গায়ে গরম পানি ডেলে দিয়ে গুরুতর জখম করার অপরাধে স্বামী মো. আজাদ হোসেন (৩৫) কে ১৪ বছর সশ্রম কারাদন্ড, ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার (১৩ আগষ্ট) দুপুরে চাঁদপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল এর বিচারক (জেলা জজ) আবদুল মান্নান এই রায় দেন।
নির্যাতনের শিকার সেলিনা বেগম পাশ^বর্তী ল²ীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার সাউথেরখিল গ্রামের শামছুল হক ভুঁইয়ার কন্যা। কারাদন্ড প্রাপ্ত আজাদ হোসেন ফরিদগঞ্জ উপজেলার গুপ্টি গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের ছেলে।
মামলার বিবরণ থেকে জানাযায়, ২০০৯ সালের ২৭ মে রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে গুপ্টি গ্রামে আজাদের বসতঘরে যৌতুকের দাবী নিয়ে সেলিনা ও তার স্বামীর সাথে বাক বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে আজাদ ঘরে থাকা গরম পানি তার স্ত্রী সেলিনার গায়ে ডেলে দেয়। এতে করে তার স্ত্রীর বিভিন্ন অংশ জলসে যায়। সেলিনার আত্মচিৎকারে বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরবর্তীতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করান।
এই ঘটনায় ২৮ মে সেলিনার বড় বোন সপ্না বেগম বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে আজাদ হোসেনকে আসামী করে মামলা করেন। মামলা নং-২০। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তৎকালীন সময়ের ফরিদগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মুশফিকুর রহমান ঘটনাটির তদন্ত শেষে একই সালের ২৬ আগষ্ট আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।
নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হাবিবুল ইসলাম তালুকদার জানান, দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর মামলাটি চলমান অবস্থায় আদালত ৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহন করেন। ঘটনার পর থেকেই আসামী পলাতক ছিলেন। সাক্ষ্য ও নথিপত্র পর্যালোচনা শেষে আসামীর অনপুস্থিতিতে উল্লেখিত সাজা প্রদান করেন। সরকার পক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) ছিলেন অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন ভুঁইয়া।

Related posts