November 14, 2018

চাঁদপুর-কচুয়া-গৌরিপুর সড়ক এক মরণ ফাঁদ!


এ কে আজাদ,চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধিঃ  চাঁদপুর,লক্ষ্মীপুরসহ,পূর্বা লের জনগণ সহজে ঢাকায় যাতায়াতে কচুয়া-গৌরিপুর সড়কটি ব্যবহার করে আসছে। কিন্তু বর্তমানে এ সড়কের পিজ ঢালাই উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে।

বিধ্বস্ত সড়ক দিয়ে যাত্রীবাহী বাসসহ যানবাহনগুলো ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। এ কারনে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়া এ সড়ক দিয়ে এখন সাধারণ মানুষ যাতায়াতসহ আশেপাশের  শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরাও সময়মতো স্কুলে উপস্থিত হতে পারছে না।
এক কথায় এলাকাবাসীসহ বৃহত্তর লক্ষ্মীপুর ও চাঁদপুরের জনগণ সীমাহীন দুর্ভোগের মধ্যে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

অথচ কর্তৃপক্ষ সড়কটি নির্মাণে তেমন কোন ভূমিকা রাখছে না। বর্তমানে চাঁদপুর অংশের সামান্য মেরামতের কাজ চললেও বেশিরভাগ কাজ আগামী বছর শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক ও জনপথ কর্তৃপক্ষ। এই আশঙ্কায় সড়কটি আগামী ১ বছরে আরো ভয়াবহ আকার ধারণ করে চলাচলের  সম্পূর্ণ অযোগ্য হয়ে পড়বে।

আর আসন্ন বৃষ্টির মৌসুমে সড়কের অবস্থা কোন পর্যায়ে গিয়ে দাঁড়াবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এ সড়কে চলাচলকারী যানবাহনের কয়েকজন ড্রাইভার জানান, সড়কটি বর্তমানে খুবই বেহাল দশা। জীবনের ঝুঁকিতে যাত্রী নিয়ে যানবাহন চলাচল করতে হচ্ছে। বেশিরভাগ সময়ই যানবাহনের যন্ত্রাংশ ভেঙ্গে যায় এবং যাত্রী নিয়ে গাড়িসহ রাস্তায় সময় কাটাতে হচ্ছে।

এতে যাত্রীদেরও দুর্ভোগ বেড়ে যায়। যার কারনে এ সড়কে যাত্রীর সংখ্যা কমে যাচ্ছে। তারা সড়কটি দ্রুত মেরামতের দাবী জানিয়েছেন।

এদিকে এলাকাবাসীও সড়কটিতে চলাচলে দুর্ভোগের কথা জানিয়ে দ্রুত সংস্কারের দাবী করেছেন। সড়ক ও জনপদ বিভাগের হাজীগঞ্জ, চাঁদপুরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন  জানান, চাঁদপুর-গৌরিপুর সড়কের চাঁদপুর অংশের ৩২কিলোমিটারের মধ্যে ১৪ কিলোমিটার রাস্তা ১১কোটি ৩৭লাখ টাকার ব্যয়ে সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে।

যা আগামী জুনে শেষ হবে। বাকী ১৬ কিলোমিটার রাস্তা ও ৪টি ব্রীজ কালভার্ট নির্মাণের ৬৫কোটি টাকার ডিপিবি অনুমোদন হয়েছে। আগামী বছর এ কাজ শুরু হবে। এদিকে, ভূক্তভোগীরা দ্রুত সড়কটির সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন।

দ্যা গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/১৮ এপ্রিল ২০১৬/রিপন ডেরি

Related posts