November 21, 2018

চাঁদপুরে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

Karadondoএ কে আজাদ, চাঁদপুর : চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার উভারামপুর গ্রামে স্ত্রী রাবেয়া বেগমকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার অপরাধে স্বামী মো. আলমগীর হোসেন (৪৩) কে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও এক হাজার টাকা জরিমানা করেছে আদালত।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) দুপুর ২টায় চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ সালেহ উদ্দিন আহমেদ এ রায় দেন।

নিহত রাবেয়া ফরিদগঞ্জ উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়নের উভারামপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের মেয়ে এবং আলমগীর পাশ^বর্তী উপজেলা হাজীগঞ্জের সিদলা গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে। নিহত রাবেয়ার ১ পুত্র ও ১ কন্যা সন্তান রয়েছে।

মামলার বিবরণ থেকে জানাযায়, ২০১২ সালের মার্চ মাসের ১০ তারিখ বিকাল আনুমানিক সাড়ে ৩টার দিকে আলমগীর তার শ^শুর বাড়ীতে স্ত্রীকে নিজ বাড়িতে নিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে স্ত্রীর সাথে বাক বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে সে শ^শুরের ঘরে থাকা ধারালো দা দিয়ে স্ত্রী গাড়ে কুপ দিলে মাথা আর শরীর অনেকটা আলাদা হয়ে যায় এবং কিছুক্ষণের মধ্যে মৃত্যুবরণ করেন। এই ঘটনার পর উপস্থিত বাড়ীর লোকজন আলমগীরকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

ওইদিন রাতেই রাবেয়ার পিতা ইসমাইল হোসেন আলমগীরকে আসামী করে ফরিদগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। আলমগীরকে পরদিন পুলিশ আদালতে প্রেরণ করলে ১৬৪ ধারায় মেজিস্ট্রেট এর কাছে তার অপরাধ স্বাীকার করেন। ফরিদগঞ্জ থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তৎকালীন সময়ের উপ-পরিদর্শক (এসআই) অলক বড়–য়া মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১২ সালের ১২ এপ্রিল আদালতে সার্জসীট দাখিল করেন।

সরকার পক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর আমান উল্যাহ বলেন, দীর্ঘ ছয় বছর মামলাটি চলমান থাকা অবস্থায় ১২জনের স্বাক্ষ্য গ্রহন করেন আদালত। আসামী আলমগীর হোসেনের অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় তার উপস্থিতিতে তাকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং এক হাজার টাকা জরিমানা করেন।

সরকার পক্ষের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) ছিলেন মোক্তার হোসেন অভি এবং আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো. শাহজাহান মিয়া ও ফরিদ মিয়া রিপন।

Related posts