November 15, 2018

চাঁদপুরে মাদকের অন্ধকার জগত থেকে আলোর পথে ফিরে এলো ৩০ মাদক বিক্রেতা

2এ কে আজাদ,চাঁদপুর : পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার পিপিএম বলেছেন, মাদকের সাথে যারা জড়িত তাদের অন্ধকার জগত থেকে আলোর পথে ফিরিয়ে আনা আমাদের সমাজের সকলের দায়িত্ব। এ ক্ষেত্রে আজকের এই আয়োজনটি একটি শ্রেষ্ঠ অনুষ্ঠান বলে আমি মনে করছি। কারন মাদকের অন্ধকার জগত থেকে আজ ৩০ ব্যক্তি আলোর পথে ফিরে আসার অঙ্গীকার করেছে। আমি তাদের স্বাগত জানাচ্ছি। আমাদের এখন দায়িত্ব হলো তাদেরকে আলোর পথে রাখার বিষয়ে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা। মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ, বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে প্রতিটি ঘরে ঘরে সকল সদস্যদের কাজ করতে হবে। এসব বিষয়ে সামাজিক প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের মাকে আমরা যেমনিভাবে ভালোবাসি, ঠিক তেমনিভাবে দেশমাতৃকাকে ভালোবাসতে হবে। দেশমাতৃকাকে উন্নত বিশে^র সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে নিতে সমাজের সর্বশ্রেণীর মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। আমাদের কোনো মেয়েরা যাতে বাল্য-বিয়ের শিকার না হয় সেদিকে সকলের খেয়াল রাখতে হবে। আমাদের ছেলেরা যাতে মাদকের ছোবলে ধ্বংস না হয়, সন্ত্রাসী কাজে না জড়ায়, সেদিকে স্ব-স্ব পরিবারসহ আমাদের খেয়াল রাখতে হবে। এ বিষয়ে আমাদের সকলকে সজাগ ও সর্তক থাকতে হবে। মঙ্গলবার চাঁদপুর শহরের পুরান বাজার মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মাদক, জঙ্গীবাদ ও বাল্য বিয়ে নির্মূলে-গণ-সচেতনতামূলক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথাগুলো বলেছেন। ‘স্বেচ্চায় আলোর জগতে ফিরে এসো, নতুন জীবনের শুভ সূচনায়’- এই শ্লোগানে সমাবেশের শুরুতেই স্থানীয় ৩০জন মাদক বিক্রেতাকে আলোর জগতে ফিরে আসার অঙ্গিকার করায় পুলিশ সুপার তাদের স্বাগত জানিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেন এবং শপথ বাক্য পাঠ করান। চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির আয়োজেন ও পুরানবাজারস্থ কমিউনিটি পুলিশিং এর উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহমেদ ও চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব জাহাঙ্গির আখন্দ সেলিম।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পৌর মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ বলেন, বর্তমান পৃথিবী দুটি সন্ত্রাসের কাছে হুমকির সম্মুক্ষিন রযেছে। এর মধ্যে একটি ক্ষুধা দারিদ্রতা আর অন্যটি মাদক। মাদকের ছোবলে আমাদের তরুন প্রজন্ম-যুবসমাজ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। এই যুবসমাজকে রক্ষা করতে হলে আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। আজকের এই আয়োজন সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। যে ৩০ জন ব্যক্তি মাদক বিক্রি না করার শপথ করেছে আমি তাদের স্বাগত জানাচ্ছি। তিনি আরো বলেন, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমাদের সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা যে স্বাধীন রাষ্ট্র পেয়েছি সে বাংলাদেশে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের ঠাঁই হতে পারে না। মুষ্টিময় কিছু সন্ত্রাস-মাদক বিক্রেতার কাছে আমরা সমাজকে ধ্বংস হতে দিবো না। সমাজের সকল মানুষকে সাথে নিয়ে সকল অপকর্মকে আমরা প্রতিহত করবো।
চেম্বার সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র ছিদ্দিকুর রহমান ঢালী, চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওয়ালি উল্যাহ অলি, চেম্বার সহ-সভাপতি তমাল কুমার ঘোষ, পরিচালক সালাউদ্দিন মো. বাবর, চাঁদপুর পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মামুনুর রহমান দোলন, মহিলা কাউন্সিলর ফরিদা ইলিয়াস, চাঁদপুর পৌর কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি শেখ মনির হোসেন বাবুল, সদর থানা কমিউনটি পুলিশিং এর সভাপতি মোহান্নদ আলী জিন্নাহ, পুরানবাজার মধুসূদন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গনেষ চন্দ্র দাস, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসিবুল ইসলাম মুন্না। এর আগে বিকেল ৪টায় বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। পরে রাত ৮টায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে কুষ্টিয়ার লালন শিল্পীবৃন্দ।
মাদক বিক্রি না করার অঙ্গিকার করা ৩০ ব্যক্তিরা হলেন, অলি খান, আব্দুল খালেক, ইফনুছ মিজি, মাহমুদ মিজি, জসিম গাজি, আলমগীর সিকদার,
কামাল বেপারী, বিল্লাল হোসেন খান, মনসুর খান, কালু মাঝি, মো. ছেতু গাজী, লিটন সরকার, মনসুর মিজি, রতন মাঝি, রুবেল ঢালী, সোহেল মাঝি, আমির হাওলাদার, কালু, টুটুল গাজী, বিল্লাল হোসেন, সবুজ খান, উজ্জল মুন্সি, জসিম উদ্দিন প্রমুখ।

Related posts