November 25, 2017

চাঁদপুরে পাহারাদারকে খুন করে ৪ মটর সাইকেল নিয়েগেছে দূর্বৃত্তরা

8এ কে আজাদ, চাঁদপুর : চাঁদপুর শহরের ট্রাক রোডে ৯তলা ভবন, সেবা আয়শা গার্ডেন এর পাহারাদার দেলোয়ার প্রধানিয়া (৫০)কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন করে ৪ মটর বাইক নিয়েগেছে দূর্বৃত্তরা।

রোববার (১৫ অক্টোবর) গভীর রাতে ওই ভবনের নীচ তলায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত দেলোয়ার মতলব পৌরসভার মুন্সীরহাট দক্ষিণ দীঘলদী গ্রামের বেপারী বাড়ীর মৃত নুরু প্রধানিয়ার ছেলে। গত ১ বছর পূর্বে সে এ ভবনের পাহারাদার হিসেবে কাজ শুরু করেন। সোমবার (১৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই ব্যাক্তির মরদেহ উদ্ধার করেন।

আয়শা গার্ডেন ভবনের ৮ম তলার একটি প্ল্যাটের মালিক সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন, তিনি সকাল ৮টায় বাসা থেকে বের হওয়ার জন্য নীচ তলায় আসলে মুল ফটকে পাহারাদারকে না দেখে পাশেই তার কক্ষে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় দেলোয়ারকে পড়ে থাকতে দেখেন। দূর্বৃত্তরা তাকে কোন ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলাকেটে হত্যা করে মটর বাইকগুলো নিয়ে যায় বলে তিনি ধারণা করেন। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ওই ভবনে কোন সিসি টিভি ক্যামেরা নেই। মূল ফটকের পাশেই উন্মুক্ত জায়গা রয়েছে। দূর্বৃত্তরা হয়তো ওই স্থান দিয়ে ভবনের ভিতরে প্রবেশ করেছে।

33

চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুজ্জামান জানান, সকাল ৯টায় আমরা ঘটনাস্থলে এসে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করি। মূল ফটকের তালা ও ছাবি আলামত হিসেবে জব্ধ করা হয়েছে। বাজাজ ও সুজকি কোম্পানীর ৪ মটর বাইক নিয়েগেছে দূর্বৃত্তরা। ওই ভবনের নীচ তলায় আরো ৩ মটর বাইক, একটি মাইক্রোবাস ও দু’টি প্রাভেট কার রয়েছে। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন চাঁদপুর পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার। তিনি জানান, বিষয়টি তদন্ত ছাড়া আপতত কোন কিছুই বলা যাচ্ছে না। আমাদের গোয়েন্দা পুলিশ সহ অনেকেই কাজ করছেন।

যে ৪টি বাইক দূর্বৃত্তরা নিয়েগেছে সেই বাইকের মধ্যে দুটি বাইকের মালিক ওই ভবনের বাসিন্দাদের অপর দুটি বইকের মালিক অত্র এলাকার দু’জনের। স্থানীয়রা জানান, এলাকার অনেকেরই গাড়ী রাখার জায়গা নাই তাই তারা এই ভবনের নিচে গেরেজেই গাড়ী রাখেন। নিয়ে যাওয়া বাইকের মধ্যে ২টি পালসার ও ২টি সুজুকি কম্পানীর গাড়ী।

নিহত দেলোয়ার হোসেন প্রধানীয়ার ২মেয়ে ১ছেলে ও স্ত্রী রয়েছেন। খবর পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।
নিহতের স্ত্রী জোৎনা বেগম জানান, তার স্বামী দির্ঘ ১৪ বছর সৌদি আরবে ছিলেন কোন দিন অসত পথে পয়সা রোজগার করার চিন্তাও করেন না। তাই আজ আমাদের কপালে এই ঘটনা জুটলো।

Related posts