September 20, 2018

যে কারণে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে প্রধানমন্ত্রী

586
চট্টগ্রাম থেকেঃ  শনিবার সকাল ১১টা ৪৫ মিনিটে হেলিকপ্টার যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরাসরি চট্টগ্রাম সেনানিবাসে পৌঁছেছেন।

একদিনের সফরে এসে প্রধানমন্ত্রী বেলা ১২টা ১৫ মিনিটে চট্টগ্রাম সেনানিবাসের ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টাল সেন্টারের (ইবিআরসি) নবম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সেনাবাহিনীর এই অনুষ্ঠান ছাড়াও তিনি চট্টগ্রামের বেশ কিছু উন্নয়ন প্রকল্পের ও চট্টগ্রাম চেম্বারের দুটি অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন।

তিনি চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।

জানা গেছে, সেনাবাহিনীর অনুষ্ঠান শেষে বেলা ৩টার দিকে প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের কুয়াইশ এলাকায় নবনির্মিত দেশের বৃহত্তম ও সর্বোচ্চ উচ্চতার বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল এবং বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

একই স্থান থেকে প্রধানমন্ত্রী, চট্টগ্রামের কদমতলী ফ্লাইওভার, বায়েজিদ-সীতাকুণ্ড বাইপাস রোডের নির্মাণ কাজ ও রিং রোডের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করবেন।

বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকায় নবনির্মিত ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের উদ্বোধন এবং চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ-এর শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করবেন।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ) চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম জানান, শনিবার চট্টগ্রাম সফরে প্রধানমন্ত্রী সিডিএ’র ৫ হাজার কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এসব প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে ৩ হাজার কোটি টাকার টাইগারপাস থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ভিত্তিস্থাপন, ১ হাজার ৭০০ কোটি টাকার পতেঙ্গা থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত চিটাগাং সিটি আউটার রিং রোড প্রকল্প ও ১৭২ কোটি টাকার বায়েজিদ থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত লুপ রোডের নির্মাণকাজ উদ্বোধন, ৪৫ কোটি টাকার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ ও ৫৮ কোটি টাকার কদমতলী ওভারপাস এবং এক কোটি টাকা ব্যয়ে কুয়াইশে নির্মিত দেশের সবচেয়ে উঁচু বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল।

শনিবার বিকেলে হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী ঢাকায় ফিরে যাবেন বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

দি গ্লোবাল নিউজ ২৪ ডটকম/রিপন/ডেরি

Related posts