September 18, 2018

গৃহবধূ-কিশোরকে এক রশিতে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন

ঢাকাঃ কক্সবাজারের পেকুয়ায় এক গৃহবধূ (২৪) ও এক কিশোরকে (১৭) এক রশিতে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। নির্যাতনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পেকুয়া উপজেলার বলির পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার নেতৃত্বে ছিলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা।

তিন সন্তানের জননী ওই গৃহবধূর স্বামী মালয়েশিয়া প্রবাসী (৫০) বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসী জানায়, পেকুয়া সদর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকা দক্ষিণ মেহেরনামার বলিরপাড়ার ওই প্রবাসী সাড়ে তিন বছর ধরে মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন। মালয়েশিয়া যাওয়ার আগে তিনি ওই গৃহবধূকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এর আগে তার প্রথম স্ত্রী মারা যান।

ওই প্রবাসী মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পর থেকে এলাকার কিছু লোক তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালাতে থাকে। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তারা অনৈতিক সম্পর্কের অপবাদ দিয়ে ওই গৃহবধূ এবং একই এলাকার ওই কিশোরকে এক দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলে।

পরে স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি নাছির উদ্দিনের নেতৃত্বে কয়েকজন লোক ওই গৃহবধূ ও কিশোরকে শারীরিক নির্যাতন চালায়। ঘটনাটি যাতে কাউকে জানাতে না পারে সেজন্যে গৃহবধূর মোবাইল সেটটিও কেড়ে নেয়া হয়।

পরে ওই গৃহবধূকে একটি ঘরে নিয়ে আটকে রাখা হয়। পরদিন সোমবার তাকে ঘর থেকে বের হতে দেয়া হয়নি। তবে রোববার রাতেই ওই কিশোরকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এ সময় ইব্রাহিম খলিল নামের এক ব্যক্তি গৃহবধূ ও কিশোরের ছবি ফেসবুকে আপলোড করে। খবরটি মালয়েশিয়ায় গৃহবধূর স্বামীর কাছে পাঠিয়ে দিয়ে সংসার ভেঙে দেয়ার চেষ্টা চলছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

আওয়ামী লীগ নেতা নাছির উদ্দিনের মোবাইল বন্ধ রাখায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

জানতে চাইলে পেকুয়া থানার ওসি জিয়া মো. মোস্তাফিজ ভুইয়া বলেন, এ ঘটনায় এখনও থানায় অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Related posts