November 19, 2018

গিনেস বুকে নাম তুলতে ফেললেন সব দাঁত!


নয়া দিল্লিঃ  শখ শরীরে ট্যাটু আঁকা। বারাক ওবামা, রানি এলিজাবেথের ট্যাটু আঁকিয়েছেন। একের পর এক রেকর্ড গড়ে গিনেসে বুকে নিজের নাম তুলেছেন। রেকর্ডের জন্য তুলে ফেলেছেন নিজের সব দাঁতও। কারণ, পুরো মুখে ৫০০ স্ট্র ও ৫০টি জ্বলন্ত মোমবাতি ধরবেন বলেই করেছেন ওই কাজ। ৭৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির নাম হর প্রকাশ ঋষি। তাঁর বাড়ি ভারতের নয়া দিল্লিতে।

যৌবন থেকে রেকর্ডের পেছনে ছুটতে থাকা হর প্রকাশ ঋষি নিজেকে ‘গিনেস ঋষি’ বলে পরিচয় দেন। তাঁর দাবি, ২০টির বেশি রেকর্ড গড়েছেন তিনি।

১৯৪২ সালে নয়া দিল্লির একটি সিনেমা হলে জন্ম হর প্রকাশ ঋষির। এখন পর্যন্ত ৩৬৬টি পতাকাসহ শরীরে ৫০০ ট্যাটু বানিয়েছেন। এবার লক্ষ্য সেই ট্যাটুকে রেকর্ড বুকে তুলবেন।

একের পর এক রেকর্ডের আশায় নিজের মাথা, মুখেও ট্যাটু করিয়েছেন। ছবি: রয়টার্সএকের পর এক রেকর্ডের আশায় নিজের মাথা, মুখেও ট্যাটু করিয়েছেন। ছবি: রয়টার্স১৯৯০ সালে দুই বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে একটানা ১ হাজার ১ ঘণ্টা স্কুটার চালিয়ে রেকর্ড গড়ে প্রথম গিনেসে বুকে নাম তোলেন। এরপর থেকেই নিজের নাম রেকর্ড বুকে তোলার জন্য একের পর এক অদ্ভুত সব কীর্তি গড়ে চলেছেন তিনি। একবার নয়া দিল্লি থেকে পিৎজা নিয়ে তা ডেলিভারি করেছিলেন সানফ্রান্সিসকোতে। একবার এক বোতল টমেটো কেচাপ খেয়ে রেকর্ড গড়েছিলেন। কারণ, তিনি চার মিনিটের কম সময়ে তা খেয়ে ফেলেছিলেন।

বারাক ওবামা, রানি এলিজাবেথের ট্যাটুও আঁকিয়েছেন নিজ শরীরে। ছবি: রয়টার্সবারাক ওবামা, রানি এলিজাবেথের ট্যাটুও আঁকিয়েছেন নিজ শরীরে। ছবি: রয়টার্সরেকর্ড গড়ার ক্ষেত্রে হর প্রকাশ ঋষির স্ত্রীও কম যান না। ১৯৯১ সালে তাঁর স্ত্রী বিমলা বিশ্বের সবচেয়ে ছোট উইল লিখে গিনেস রেকর্ডসে নাম তোলেন। উইলে লেখা ছিল মাত্র তিনটি শব্দ, ‘অল টু সন’।

রয়টার্স টিভিকে হর প্রকাশ ঋষি বলেন, ‘৪৯৬টি কোল্ড ড্রিংকসের স্ট্র একসঙ্গে মুখে নেওয়ার ক্ষেত্রে আমার বিশ্বরেকর্ড আছে। এই রেকর্ড গড়ার জন্য আমার মুখে বেশি জায়গা দরকার ছিল। তাই সব দাঁত তুলে ফেলেছি, যাতে বেশি স্ট্র মুখে নিয়ে রেকর্ড গড়তে পারি।’

এখন অদ্ভুত এক নেশা চেপেছে পেশায় অটো স্পেয়ার পার্টস প্রস্তুতকারক হর প্রকাশ ঋষির মাথায়। নিজের সারা শরীরে পতাকার ট্যাটু বানিয়েছেন। তাঁর ইচ্ছা, পতাকা ছাড়াও তাঁর শরীরে থাকবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, রানি এলিজাবেথ, ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহান নেতা মহাত্মা গান্ধীর ট্যাটুও। প্রথম আলো

Related posts